ডিএসসিসি’র ময়লার গাড়ির চালক হারুন গ্রেফতার
jugantor
সড়কে নটর ডেম ছাত্রের মৃত্যু 
ডিএসসিসি’র ময়লার গাড়ির চালক হারুন গ্রেফতার

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সড়কে নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় ডিএসসিসি’র ময়লার গাড়ির মূল চালক হারুন অর রশিদ ওরফে কাইল্লা হারুনকে (৩৭) গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার ভোরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৩ এর একটি দল যাত্রাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

হারুনের বাড়ি বি-বাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর থানার ফরদাবাদ গ্রামে। বুধবার রাজধানীর গুলিস্তানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির চাপায় শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের মৃত্যু হয়। ওই সময় মূল চালক হারুনের পরিবর্তে গাড়ি চালাচ্ছিলেন পরিচ্ছন্নতাকর্মী রাসেল মিয়া।

তাকে (রাসেল) বৃহস্পতিবার ৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জিজ্ঞাসাবাদে হারুন র‌্যাবকে জানিয়েছে, ২০২০ সাল থেকে সে গাড়িটি নিয়মিতভাবে চালিয়ে আসছে। তার ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। রাসেলেরও ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই।

র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মঈন শুক্রবার যুগান্তরকে বলেন, ওই গাড়িটি নিজে না চালিয়ে বদলি চালক রাসেল খানকে দিয়ে চালাচ্ছিলেন হারুন। ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির চাপায় নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসান নিহতের ঘটনায় ছায়াতদন্ত শুরু করে র‌্যাবের গোয়েন্দা দল। তদন্তকালে র‌্যাবের অভিযানে মূল চালক হারুনকে গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তান গোলচত্বরে হল মার্কেটের সামনে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন।

ওই ঘটনায় ঘাতকের ফাঁসির দাবিতে তার সহপাঠীরা ওইদিন বিকালে রাজধানীর গুলিস্তানে এবং বৃহস্পতিবার নটর ডেমসহ কয়েকটি কলেজের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।

তারা নাঈমের মৃত্যুর বিচার ও সড়ক আইনের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নসহ ছয় দফা দাবি পেশ করেন। ডিএসসিসি’র মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপস্থিত হয়ে দাবি বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর কর্মসূচি স্থগিত করে সড়ক ছাড়েন তারা। আর দাবি বাস্তবায়ন না হলে ফের রোববার আন্দোলনে যাবেন-এমন ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মধ্যে বৃহস্পতিবার ডিএসসিসির এক দাপ্তরিক আদেশে বলা হয়, অবৈধভাবে গাড়ি বরাদ্দ করে চালানোয় পরিচ্ছন্নতাকর্মী হারুন অর রশিদ (র‌্যাবের দাবি মূল চালক, যিনি শুক্রবার গ্রেফতার হয়েছেন) ও গাড়ি চালানোর কাজে তাকে সহযোগিতা করায় আরেক পরিচ্ছন্নতাকর্মী আব্দুর রাজ্জাককে কর্মচ্যুত করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রের অভিযোগ-হারুন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বিশেষ ট্রাকের পরিচ্ছন্নতাকর্মী। কিন্তু সে এই ট্রাক মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে নিজের নামে বরাদ্দ নেয়। এতেই হয়ে ওঠে ডিএসসিসির ময়লার গাড়িচালক।

হারুনের বিরুদ্ধে রয়েছে তেল চুরির অভিযোগ। ময়লার গাড়ির জন্য প্রতিদিন বরাদ্দকৃত ১১ লিটার তেলের মধ্যে ছয় লিটার চুরি করে বিক্রি করে দেওয়া হতো। এভাবে হারুন প্রতি মাসে ১৮০ লিটার তেল চুরি করে বিক্রি করে দিত। এতে তার আয় কয়েক গুণ বেড়ে যায়। র‌্যাব জানিয়েছে, গ্রেফতার হারুনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করবে।

সড়কে নটর ডেম ছাত্রের মৃত্যু 

ডিএসসিসি’র ময়লার গাড়ির চালক হারুন গ্রেফতার

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সড়কে নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় ডিএসসিসি’র ময়লার গাড়ির মূল চালক হারুন অর রশিদ ওরফে কাইল্লা হারুনকে (৩৭) গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার ভোরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৩ এর একটি দল যাত্রাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

হারুনের বাড়ি বি-বাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর থানার ফরদাবাদ গ্রামে। বুধবার রাজধানীর গুলিস্তানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির চাপায় শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের মৃত্যু হয়। ওই সময় মূল চালক হারুনের পরিবর্তে গাড়ি চালাচ্ছিলেন পরিচ্ছন্নতাকর্মী রাসেল মিয়া।

তাকে (রাসেল) বৃহস্পতিবার ৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জিজ্ঞাসাবাদে হারুন র‌্যাবকে জানিয়েছে, ২০২০ সাল থেকে সে গাড়িটি নিয়মিতভাবে চালিয়ে আসছে। তার ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। রাসেলেরও ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই।

র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মঈন শুক্রবার যুগান্তরকে বলেন, ওই গাড়িটি নিজে না চালিয়ে বদলি চালক রাসেল খানকে দিয়ে চালাচ্ছিলেন হারুন। ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির চাপায় নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসান নিহতের ঘটনায় ছায়াতদন্ত শুরু করে র‌্যাবের গোয়েন্দা দল। তদন্তকালে র‌্যাবের অভিযানে মূল চালক হারুনকে গ্রেফতার করা হয়। 

বুধবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তান গোলচত্বরে হল মার্কেটের সামনে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন।

ওই ঘটনায় ঘাতকের ফাঁসির দাবিতে তার সহপাঠীরা ওইদিন বিকালে রাজধানীর গুলিস্তানে এবং বৃহস্পতিবার নটর ডেমসহ কয়েকটি কলেজের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।

তারা নাঈমের মৃত্যুর বিচার ও সড়ক আইনের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নসহ ছয় দফা দাবি পেশ করেন। ডিএসসিসি’র মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপস্থিত হয়ে দাবি বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর কর্মসূচি স্থগিত করে সড়ক ছাড়েন তারা। আর দাবি বাস্তবায়ন না হলে ফের রোববার আন্দোলনে যাবেন-এমন ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।  

এদিকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মধ্যে বৃহস্পতিবার ডিএসসিসির এক দাপ্তরিক আদেশে বলা হয়, অবৈধভাবে গাড়ি বরাদ্দ করে চালানোয় পরিচ্ছন্নতাকর্মী হারুন অর রশিদ (র‌্যাবের দাবি মূল চালক, যিনি শুক্রবার গ্রেফতার হয়েছেন) ও গাড়ি চালানোর কাজে তাকে সহযোগিতা করায় আরেক পরিচ্ছন্নতাকর্মী আব্দুর রাজ্জাককে কর্মচ্যুত করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রের অভিযোগ-হারুন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বিশেষ ট্রাকের পরিচ্ছন্নতাকর্মী। কিন্তু সে এই ট্রাক মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে নিজের নামে বরাদ্দ নেয়। এতেই হয়ে ওঠে ডিএসসিসির ময়লার গাড়িচালক।

হারুনের বিরুদ্ধে রয়েছে তেল চুরির অভিযোগ। ময়লার গাড়ির জন্য প্রতিদিন বরাদ্দকৃত ১১ লিটার তেলের মধ্যে ছয় লিটার চুরি করে বিক্রি করে দেওয়া হতো। এভাবে হারুন প্রতি মাসে ১৮০ লিটার তেল চুরি করে বিক্রি করে দিত। এতে তার আয় কয়েক গুণ বেড়ে যায়। র‌্যাব জানিয়েছে, গ্রেফতার হারুনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন