ছাত্রলীগ নেতা ও বিজিবি সদস্যসহ নিহত ৬
jugantor
তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনে সংঘর্ষ গুলি
ছাত্রলীগ নেতা ও বিজিবি সদস্যসহ নিহত ৬

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিহত

সহিংসতা, জাল ভোট, কেন্দ্র দখলসহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে তৃতীয় ধাপে ৯৮৬ ইউনিয়ন পরিষদ এবং নয়টি পৌরসভায় রোববার ভোটগ্রহণ হয়েছে। ভোট চলাকালে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ, লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ, নরসিংদীর রায়পুরা ও মুন্সীগঞ্জ সদরে হামলা-সংঘর্ষে বিজিবি সদস্য ও ছাত্রলীগ নেতাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

এছাড়া শনিবার রাতে খুলনার তেরখাদায় এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থককে পিটিয়ে আহত করা হয়। রোববার ভোরে মারা যান তিনি। রামগঞ্জের ইছাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন সজিবকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

রায়পুরার চান্দেরকান্দী ইউনিয়নে পুলিশের গাড়িতে হামলা করে ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে আরিফ নামের এক সিএনজি অটোচালক নিহত হয়েছেন। মুন্সীগঞ্জের বাংলাবাজার ও পঞ্চসার ইউনিয়নে পৃথক সংঘর্ষের ঘটনায় মারা গেছেন শাকিল মোল্লা ও রিয়াজুল শেখ।

সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। দিনভর বিভিন্ন ইউনিয়নে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে গুলিবিদ্ধসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন।

এ ধাপের নির্বাচনে আগের চেয়ে বেশি তৎপর ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। বিভিন্ন স্থানে জাল ভোট, ব্যালট ছিনতাই ও আচরণবিধি ভঙ্গসহ নানা অপরাধে শতাধিক লোককে আটক করেছে তারা। এরমধ্যে অনেককে তাৎক্ষণিকভাবে জেল-জরিমানা করা হয়েছে।

তৃতীয় ধাপের নির্বাচনকে উৎসবমুখর ও মডেল হিসাবে উল্লেখ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ভোট শেষ হওয়ার পর নির্বাচন ভবনে ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার সাংবাদিকদের বলেন, সামান্য কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সারা দেশে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় ২১ কেন্দ্রের নির্বাচন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ নির্বাচনে মোট ভোটকেন্দ্র ছিল ৯ হাজার ৮৭৩টি। কেন্দ্র বন্ধের হার শূন্য দশমিক ২১ শতাংশ।

সহিংস ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, এবার সহিংসতায় ২৪ জন আহত হয়েছেন। দ্বিতীয় ধাপে প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, যদিও সেগুলো কেন্দ্রের বাহিরে ঘটেছে। এবার একটি জীবনকেও হারাতে হয়নি। এটি আমরা মনে করি, নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারীরা ভালো কাজ করেছেন।

প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা কিছুটা হলেও সহনশীল ছিলেন। লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিকের ওপর হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, আসলে যখনই কোনো ঘটনা ঘটে যায়, হঠাৎ করেই হয়। এ ঘটনা আমাদের জানানো হয়েছে। আমরা জেলা প্রশাসককে জানিয়েছি।

তিনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন এবং ক্যামেরাটি উদ্ধারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছেন। এছাড়া যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। যুগান্তর ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ইউপি নির্বাচনি সহিংসতায় এক বিজিবি সদস্য নিহত হয়েছেন। এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গুলি ও রাবার বুলেট নিক্ষেপে ২০ জন এলাকাবাসী আহত হয়েছেন। নিহত ওই বিজিবি সদস্যর নাম রুবেল মন্ডল।

তিনি ৫৬ ব্যাটালিয়নের সদস্য বলে জানা গেছে। গাড়াগ্রাম ইউনিয়নের পশ্চিম দলিরাম মাঝাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে রোববার রাত সাড়ে ১০ টায় এ সহিংসতার ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান, ওই কেন্দ্রের ভোট গণনার পর লাঙ্গল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেন।

পরে কর্মরত পোলিং, পিজাইডিং অফিসার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদেরকে তারা অবরুদ্ধ করে রাখেন। এক পর্যায়ে সমর্থকদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। এ সময় রুবেল মন্ডল নামে ওই বিজিবি সদস্য নিহত হন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ও রাবার বুলেট নিক্ষেপে করে। এতে ২০জন এলাকাবাসী আহত হয়েছেন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ললিত চন্দ্র রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এখনো কেন্দ্রে অবস্থান করছি। এখানে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নবীরুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি পরে কল ব্যাক করবেন বলে ক্ষুদে বার্তায় জানিয়েছেন।

লক্ষ্মীপুর, রামগঞ্জ ও রায়পুর : রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের নয়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে বেলা ৩টার দিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আমির হোসেন খানের (আনারস) লোকজনের সঙ্গে নৌকার প্রার্থীর কর্মীদের সংঘর্ষ হয়।

এসময় ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন সজিবকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যান তিনি। সজিব উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ছিলেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ফয়সাল মাল ও সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান মঞ্জু তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মঞ্জু বলেন, সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছিল। হঠাৎ বিদ্রোহী প্রার্থীর লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালায়। ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মাঞ্জুর এলাহি বলেন, কেন্দ্রের ভেতরে কোনো বিশৃঙ্খল হয়নি। বাইরে কী হয়েছে তা আমার জানা নেই।

রামগঞ্জের ভাদুর ইউনিয়নের হানুবাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকার প্রার্থী জাবেদ হোসেনের সমর্থকরা হামলা চালায়। তাদের ছোড়া ইটের আঘাতে এক নারীর মাথা ফেটে যায়। ঘটনার সময় কেন্দ্রের বাইরে থাকা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহিদ হোসেন ভূঁইয়ার গাড়ি ভাঙচুর করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

একই ইউনিয়নের সমেষপুর সরকারির প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায়, গোপন বুথে ঢুকে আওয়ামী লীগের কর্মীরা নৌকায় ভোট দিতে ভোটারদের বাধ্য করছেন। কক্ষের বাইরে থেকে ছবি তুলতে গেলে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার সাংবাদিকদের বাধা দেন।

এদিকে দুপুরে লক্ষ্মীপুর পৌরসভায় পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে হাতপাখার মেয়র প্রার্থী মাওলানা জহির উদ্দিন ভোট বর্জন করেছেন। তিনি অভিযোগ করেন, তার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ : সন্ধ্যায় মুন্সীগঞ্জ সদরের পঞ্চসার ইউনিয়নের গোসাইবাগে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফার লোকজন পরজিত প্রার্থী আলী সিদ্দিকীর বাড়িতে হামলা করে। এ সময় তার চাচাতো ভাই রিয়াজুল শেখ (৭০) আহত হন। তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

প্রায় একই সময় মুন্সীগঞ্জ সদরের বাংলাবাজার ইউনিয়নে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দুই মহিলা মেম্বার প্রার্থী আরিফা বেগম ও রাবেয়া বেগমের সমর্থকদের সংঘর্ষে শাকিল মোল্লা নামের একজন নিহত হয়েছেন। নিহত শাকিল শরীয়তপুরের সখিপুর কাঁচিকাটা এলাকার হারুন মোল্লার ছেলে।

নরসিংদী : রায়পুরা উপজেলার চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের দাইরের পার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনার পর ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আব্দুল ওহাব পরাজিত হন। কিন্তু ফলাফল না মেনে ওহাবের ছেলে উত্তেজিত হয়ে কেন্দ্র থেকে বের হয়ে যান।

কিছুক্ষণ পর অর্ধশতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের গাড়িতে হামলা করে ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্ট চালায়। পুলিশ সদস্যরা সরকারি মালামাল ও ব্যালট বক্স রক্ষায় ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

এসময় ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও এলোপাতাড়ি গুলিতে পুলিশের রিকুইজিশন করা সিএনজি অটোচালক আরিফ (৩২) নিহত হয়েছেন। তিনি শিবপুর যোশর জাঙ্গারটেক গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে। সংঘর্ষে পুলিশ সদস্য শহিনুর ইসলাম ও আনসার সদস্যসহ আরও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

খুলনা : পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নির্বাচনি বিরোধকে কেন্দ্র করে শনিবার রাত সোয়া ১২টা দিকে তেরখাদা উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের কুলাপাটগা?তি গ্রামের বাবুল শিকদারকে (৩৮) প্রতিপক্ষের লোকজন মারধর করে পালিয়ে যায়।

তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার ভোর ৪টার দিকে মারা যান তিনি। বাবুল শিকদার ওই এলাকার মো. সিরাজের ছেলে।

তিনি নৌকার প্রার্থী মো. মহসিনের সমর্থক ছিলেন। মহসিন বলেন, আনারসের প্রার্থী কামাল হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা হাতুড়ি, লাঠি ও দা-রামদা নিয়ে বাবুলের ওপর হামলা করে। তিনি এ হত্যার বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে রোববার সকালে রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের পুটিমারি ইসলামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ইউপি সদস্য প্রার্থী আসাদ ফকিরের ছেলে শামীম ফকিরকে চাপাতিসহ আটক করেছে পুলিশ।

নরসিংদী : দুপুরে নজরপুর ইউনিয়নের দিলাপুর কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টাকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ করা হয়।

একই সময় করিমপুর ১নং কেন্দ্রে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালায়। ওই সময় নৌকার সমর্থকরা বাধা দিলে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি হয়। এতে ২০ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ ৫ জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) : ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের রাজেশ্বরদী কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনসুর মুন্সী ও নিরু খলিফার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের ঘটনায় এক ঘণ্টা ভোট গ্রহণ বন্ধ ছিল।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) : কেরানীগঞ্জের হযরতপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলাউদ্দিনের (ঘোড়া প্রতীক) সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। ভোট গণনা শেষে রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটে। হযরতপুর ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন।

কিন্তু মনোনয়ন নিয়ে নৌকা পান আওয়ামী লীগ নেতা (বর্তমান চেয়ারম্যান) আনোয়ার হোসেন আয়নাল। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হিসাবে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন।

দলীয় নির্দেশ অমান্য করে প্রার্থী হওয়ায় তাকে সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। ভোট গ্রহণ শেষে নৌকার প্রার্থী সামান্য ভোটে বিজয়ী হয়।

কিন্তু পরাজয় মেনে না নিয়ে কারচুপির অভিযোগে হযরতপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে থাকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে অবরুদ্ধ করে রাখে আলাউদ্দিন সমর্থকেরা।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালাম বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) : সন্ধ্যায় উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড নাপিতপুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে হামলায় সদস্য প্রার্থীসহ চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

আহতরা হলেন বর্তমান ইউপি সদস্য ও নির্বাচনে ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী মো. ফারুক এবং তার সমর্থক শাহ আলম, মো. সেলিম ও খোকন দে। তাদের প্রথমে চন্দ্রঘোনা খ্রিস্টিয়ান হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গাইবান্ধা : সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নে মেম্বার প্রার্থী মহাসিন আলীর সমর্থকরা ব্যালট ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এ সময় সংঘর্ষে পুলিশ কনস্টেবল মোমিনুল ও মাহবুব মিয়া আহত হন। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) : ঘাটাইল পৌরসভা নির্বাচনে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই কাউ?ন্সিলর প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত দুজন আহত হয়েছেন।

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) : দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের ছোটলেখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রার্থীর সমর্থকরা প্রিসাইডিং অফিসারের কাছ থেকে জোরপূর্বক ২০০ ব্যালট পেপার ছিনিয়ে ১৩৪টিতে সিল মারে। পরে সেগুলো উদ্ধার করে বাতিল করা হয়েছে।

চাঁদপুর : মতলব দক্ষিণ উপজেলার উপাধি দক্ষিণ ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউসুফ পাটোয়ারী ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করতে গেলে নৌকার প্রার্থী গোলাম মোস্তফার কয়েকজন কর্মী তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

পঞ্চগড় : পঞ্চগড় সদর উপজেলার লাঠুয়াপাড়া ভোটকেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মী মুস্তাফিজ রুবেলের ছুরিকাঘাতে সাগর ও লায়ন নামে জাতীয় পার্টির ২ কর্মী আহত হয়েছেন।

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) : হাটহাজারীতে সীমানাসংক্রান্ত জটিলতার কারণে ফরহাদাবাদ ইউনিয়ন বাদে উপজেলার ১৩ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হয়েছে। দুই একটি ইউনিয়ন ছাড়া প্রায় সবকটিতে ভোটকেন্দ্র দখল, ব্যালেট পেপার ছিনতাই ও সংঘর্ষ হয়েছে।

বেনাপোল : দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন যশোরের শার্শার বাগআঁচড়া ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী ইলিয়াস কবির বকুল। তিনি অভিযোগ করেন, সকাল থেকে তিনি নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ ছিলেন।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল খালেকের সমর্থকরা তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। তিনি নিজেও ভোট দিতে পারেননি। এদিকে বিকালে বাগাআঁচড়া ছোট কলোনি কেন্দ্রে নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৮ জন আহত হয়েছেন।

আরও বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা ও অনিয়ম : বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নে কেন্দ্র দখল নিয়ে সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদুল হক বাচ্চুসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। মুন্সীগঞ্জে চরকেওয়ার ইউনিয়নে ফুলতলা কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে।

এসময় ককটেল বিস্ফোরণে আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। ময়মনসিংহের ত্রিশাল বর্মা কাকচর মাদ্রাসা কেন্দ্রে ব্যালট ছিনিয়ে নেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। মেহেরপুরের কুতুবপুর ইউনিয়নের কুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রকাশ্যে সিল মেরে ভোট নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই জেলার গাংনী উপজেলার ধানখোলা ইউনিয়নে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন।

বিভিন্ন স্থানে আটক/গ্রেফতার : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ভোটকেন্দ্রে সহিংসতার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়ার অভিযোগে ৩১ যুবককে অস্ত্রসহ আটক করা হয়েছে। ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নে জাল ভোট দেওয়ায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।

বরিশালের মুলাদী ও বাবুগঞ্জে ভোট কেন্দ্র থেকে ১০ বহিরাগতকে আটক করা হয়েছে। ফেনীর শুভপুর ইউনিয়নে কেন্দ্রের পাশে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় চার মেম্বার প্রার্থীসহ ১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ভোলার চরফ্যাশনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জালভোট দেওয়ার অভিযোগে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জাল ভোট দেওয়ায় আলাউদ্দিন নামে একজনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। নেত্রকোনার কলমাকান্দার লেঙ্গুরা ইউনিয়নে জালভোট দেওয়ার সময় এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

নোয়াখালীর সেনবাগে দুটি মাইক্রোবাসসহ ১২ যুবককে আটক করা হয়েছে। সাতক্ষীরার কালীগঞ্জের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে দুটি শাটারগান ও ৩০টি ককটেলসহ দুজনকে আটক করেছে র‌্যাব। বরিশালের বাবুগঞ্জে ভোট কেন্দ্রে চার বহিরাগতকে জরিমানা করা হয়েছে।

তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনে সংঘর্ষ গুলি

ছাত্রলীগ নেতা ও বিজিবি সদস্যসহ নিহত ৬

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নিহত
মুন্সীগঞ্জের পঞ্চসার ইউপিতে রোববার নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত রিয়াজুল শেখকে ধরে স্বজনদের আহাজারি। জেনারেল হাসপাতাল থেকে তোলা -যুগান্তর

সহিংসতা, জাল ভোট, কেন্দ্র দখলসহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে তৃতীয় ধাপে ৯৮৬ ইউনিয়ন পরিষদ এবং নয়টি পৌরসভায় রোববার ভোটগ্রহণ হয়েছে। ভোট চলাকালে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ, লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ, নরসিংদীর রায়পুরা ও মুন্সীগঞ্জ সদরে হামলা-সংঘর্ষে বিজিবি সদস্য ও ছাত্রলীগ নেতাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

এছাড়া শনিবার রাতে খুলনার তেরখাদায় এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থককে পিটিয়ে আহত করা হয়। রোববার ভোরে মারা যান তিনি। রামগঞ্জের ইছাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন সজিবকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

রায়পুরার চান্দেরকান্দী ইউনিয়নে পুলিশের গাড়িতে হামলা করে ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে আরিফ নামের এক সিএনজি অটোচালক নিহত হয়েছেন। মুন্সীগঞ্জের বাংলাবাজার ও পঞ্চসার ইউনিয়নে পৃথক সংঘর্ষের ঘটনায় মারা গেছেন শাকিল মোল্লা ও রিয়াজুল শেখ। 

সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। দিনভর বিভিন্ন ইউনিয়নে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে গুলিবিদ্ধসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন।

এ ধাপের নির্বাচনে আগের চেয়ে বেশি তৎপর ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। বিভিন্ন স্থানে জাল ভোট, ব্যালট ছিনতাই ও আচরণবিধি ভঙ্গসহ নানা অপরাধে শতাধিক লোককে আটক করেছে তারা। এরমধ্যে অনেককে তাৎক্ষণিকভাবে জেল-জরিমানা করা হয়েছে। 

তৃতীয় ধাপের নির্বাচনকে উৎসবমুখর ও মডেল হিসাবে উল্লেখ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ভোট শেষ হওয়ার পর নির্বাচন ভবনে ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার সাংবাদিকদের বলেন, সামান্য কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সারা দেশে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় ২১ কেন্দ্রের নির্বাচন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ নির্বাচনে মোট ভোটকেন্দ্র ছিল ৯ হাজার ৮৭৩টি। কেন্দ্র বন্ধের হার শূন্য দশমিক ২১ শতাংশ।

সহিংস ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, এবার সহিংসতায় ২৪ জন আহত হয়েছেন। দ্বিতীয় ধাপে প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, যদিও সেগুলো কেন্দ্রের বাহিরে ঘটেছে। এবার একটি জীবনকেও হারাতে হয়নি। এটি আমরা মনে করি, নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারীরা ভালো কাজ করেছেন।

প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা কিছুটা হলেও সহনশীল ছিলেন। লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিকের ওপর হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, আসলে যখনই কোনো ঘটনা ঘটে যায়, হঠাৎ করেই হয়। এ ঘটনা আমাদের জানানো হয়েছে। আমরা জেলা প্রশাসককে জানিয়েছি।

তিনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন এবং ক্যামেরাটি উদ্ধারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছেন। এছাড়া যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। যুগান্তর ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- 

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ইউপি নির্বাচনি সহিংসতায় এক বিজিবি সদস্য নিহত হয়েছেন। এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গুলি ও রাবার বুলেট নিক্ষেপে ২০ জন এলাকাবাসী আহত হয়েছেন। নিহত ওই বিজিবি সদস্যর নাম রুবেল মন্ডল।

তিনি ৫৬ ব্যাটালিয়নের সদস্য বলে জানা গেছে। গাড়াগ্রাম ইউনিয়নের পশ্চিম দলিরাম মাঝাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে রোববার রাত সাড়ে ১০ টায় এ সহিংসতার ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান, ওই কেন্দ্রের ভোট গণনার পর লাঙ্গল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেন।

পরে কর্মরত পোলিং, পিজাইডিং অফিসার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদেরকে তারা অবরুদ্ধ করে রাখেন। এক পর্যায়ে সমর্থকদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। এ সময় রুবেল মন্ডল নামে ওই বিজিবি সদস্য নিহত হন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ও রাবার বুলেট নিক্ষেপে করে। এতে ২০জন এলাকাবাসী আহত হয়েছেন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ললিত চন্দ্র রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এখনো কেন্দ্রে অবস্থান করছি। এখানে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নবীরুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি পরে কল ব্যাক করবেন বলে ক্ষুদে বার্তায় জানিয়েছেন। 

লক্ষ্মীপুর, রামগঞ্জ ও রায়পুর : রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের নয়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে বেলা ৩টার দিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আমির হোসেন খানের (আনারস) লোকজনের সঙ্গে নৌকার প্রার্থীর কর্মীদের সংঘর্ষ হয়।

এসময় ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন সজিবকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যান তিনি। সজিব উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ছিলেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ফয়সাল মাল ও সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান মঞ্জু তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মঞ্জু বলেন, সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছিল। হঠাৎ বিদ্রোহী প্রার্থীর লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালায়। ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মাঞ্জুর এলাহি বলেন, কেন্দ্রের ভেতরে কোনো বিশৃঙ্খল হয়নি। বাইরে কী হয়েছে তা আমার জানা নেই। 

রামগঞ্জের ভাদুর ইউনিয়নের হানুবাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকার প্রার্থী জাবেদ হোসেনের সমর্থকরা হামলা চালায়। তাদের ছোড়া ইটের আঘাতে এক নারীর মাথা ফেটে যায়। ঘটনার সময় কেন্দ্রের বাইরে থাকা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহিদ হোসেন ভূঁইয়ার গাড়ি ভাঙচুর করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

একই ইউনিয়নের সমেষপুর সরকারির প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায়, গোপন বুথে ঢুকে আওয়ামী লীগের কর্মীরা নৌকায় ভোট দিতে ভোটারদের বাধ্য করছেন। কক্ষের বাইরে থেকে ছবি তুলতে গেলে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার সাংবাদিকদের বাধা দেন। 

এদিকে দুপুরে লক্ষ্মীপুর পৌরসভায় পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে হাতপাখার মেয়র প্রার্থী মাওলানা জহির উদ্দিন ভোট বর্জন করেছেন। তিনি অভিযোগ করেন, তার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ : সন্ধ্যায় মুন্সীগঞ্জ সদরের পঞ্চসার ইউনিয়নের গোসাইবাগে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফার লোকজন পরজিত প্রার্থী আলী সিদ্দিকীর বাড়িতে হামলা করে। এ সময় তার চাচাতো ভাই রিয়াজুল শেখ (৭০) আহত হন। তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

প্রায় একই সময় মুন্সীগঞ্জ সদরের বাংলাবাজার ইউনিয়নে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দুই মহিলা মেম্বার প্রার্থী আরিফা বেগম ও রাবেয়া বেগমের সমর্থকদের সংঘর্ষে শাকিল মোল্লা নামের একজন নিহত হয়েছেন। নিহত শাকিল শরীয়তপুরের সখিপুর কাঁচিকাটা এলাকার হারুন মোল্লার ছেলে।

নরসিংদী : রায়পুরা উপজেলার চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের দাইরের পার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনার পর ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আব্দুল ওহাব পরাজিত হন। কিন্তু ফলাফল না মেনে ওহাবের ছেলে উত্তেজিত হয়ে কেন্দ্র থেকে বের হয়ে যান।

কিছুক্ষণ পর অর্ধশতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের গাড়িতে হামলা করে ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্ট চালায়। পুলিশ সদস্যরা সরকারি মালামাল ও ব্যালট বক্স রক্ষায় ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

এসময় ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও এলোপাতাড়ি গুলিতে পুলিশের রিকুইজিশন করা সিএনজি অটোচালক আরিফ (৩২) নিহত হয়েছেন। তিনি শিবপুর যোশর জাঙ্গারটেক গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে। সংঘর্ষে পুলিশ সদস্য শহিনুর ইসলাম ও আনসার সদস্যসহ আরও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। 

খুলনা : পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নির্বাচনি বিরোধকে কেন্দ্র করে শনিবার রাত সোয়া ১২টা দিকে তেরখাদা উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের কুলাপাটগা?তি গ্রামের বাবুল শিকদারকে (৩৮) প্রতিপক্ষের লোকজন মারধর করে পালিয়ে যায়।

তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার ভোর ৪টার দিকে মারা যান তিনি। বাবুল শিকদার ওই এলাকার মো. সিরাজের ছেলে।

তিনি নৌকার প্রার্থী মো. মহসিনের সমর্থক ছিলেন। মহসিন বলেন, আনারসের প্রার্থী কামাল হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা হাতুড়ি, লাঠি ও দা-রামদা নিয়ে বাবুলের ওপর হামলা করে। তিনি এ হত্যার বিচারের দাবি জানিয়েছেন। 

এদিকে রোববার সকালে রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের পুটিমারি ইসলামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ইউপি সদস্য প্রার্থী আসাদ ফকিরের ছেলে শামীম ফকিরকে চাপাতিসহ আটক করেছে পুলিশ। 

নরসিংদী : দুপুরে নজরপুর ইউনিয়নের দিলাপুর কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টাকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ করা হয়।

একই সময় করিমপুর ১নং কেন্দ্রে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালায়। ওই সময় নৌকার সমর্থকরা বাধা দিলে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি হয়। এতে ২০ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ ৫ জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। 

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) : ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের রাজেশ্বরদী কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনসুর মুন্সী ও নিরু খলিফার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের ঘটনায় এক ঘণ্টা ভোট গ্রহণ বন্ধ ছিল।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) : কেরানীগঞ্জের হযরতপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আলাউদ্দিনের (ঘোড়া প্রতীক) সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। ভোট গণনা শেষে রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটে। হযরতপুর ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন।

কিন্তু মনোনয়ন নিয়ে নৌকা পান আওয়ামী লীগ নেতা (বর্তমান চেয়ারম্যান) আনোয়ার হোসেন আয়নাল। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হিসাবে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আলাউদ্দিন।

দলীয় নির্দেশ অমান্য করে প্রার্থী হওয়ায় তাকে সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। ভোট গ্রহণ শেষে নৌকার প্রার্থী সামান্য ভোটে বিজয়ী হয়।

কিন্তু পরাজয় মেনে না নিয়ে কারচুপির অভিযোগে হযরতপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে থাকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে অবরুদ্ধ করে রাখে আলাউদ্দিন সমর্থকেরা।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালাম বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। 

রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) : সন্ধ্যায় উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড নাপিতপুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে হামলায় সদস্য প্রার্থীসহ চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

আহতরা হলেন বর্তমান ইউপি সদস্য ও নির্বাচনে ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী মো. ফারুক এবং তার সমর্থক শাহ আলম, মো. সেলিম ও খোকন দে। তাদের প্রথমে চন্দ্রঘোনা খ্রিস্টিয়ান হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

গাইবান্ধা : সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নে মেম্বার প্রার্থী মহাসিন আলীর সমর্থকরা ব্যালট ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এ সময় সংঘর্ষে পুলিশ কনস্টেবল মোমিনুল ও মাহবুব মিয়া আহত হন। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) : ঘাটাইল পৌরসভা নির্বাচনে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই কাউ?ন্সিলর প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত দুজন আহত হয়েছেন। 

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) : দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের ছোটলেখা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রার্থীর সমর্থকরা প্রিসাইডিং অফিসারের কাছ থেকে জোরপূর্বক ২০০ ব্যালট পেপার ছিনিয়ে ১৩৪টিতে সিল মারে। পরে সেগুলো উদ্ধার করে বাতিল করা হয়েছে। 

চাঁদপুর : মতলব দক্ষিণ উপজেলার উপাধি দক্ষিণ ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউসুফ পাটোয়ারী ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করতে গেলে নৌকার প্রার্থী গোলাম মোস্তফার কয়েকজন কর্মী তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। 

পঞ্চগড় : পঞ্চগড় সদর উপজেলার লাঠুয়াপাড়া ভোটকেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মী মুস্তাফিজ রুবেলের ছুরিকাঘাতে সাগর ও লায়ন নামে জাতীয় পার্টির ২ কর্মী আহত হয়েছেন। 

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) : হাটহাজারীতে সীমানাসংক্রান্ত জটিলতার কারণে ফরহাদাবাদ ইউনিয়ন বাদে উপজেলার ১৩ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হয়েছে। দুই একটি ইউনিয়ন ছাড়া প্রায় সবকটিতে ভোটকেন্দ্র দখল, ব্যালেট পেপার ছিনতাই ও সংঘর্ষ হয়েছে। 

বেনাপোল : দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন যশোরের শার্শার বাগআঁচড়া ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী ইলিয়াস কবির বকুল। তিনি অভিযোগ করেন, সকাল থেকে তিনি নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ ছিলেন।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল খালেকের সমর্থকরা তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। তিনি নিজেও ভোট দিতে পারেননি। এদিকে বিকালে বাগাআঁচড়া ছোট কলোনি কেন্দ্রে নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৮ জন আহত হয়েছেন।

আরও বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা ও অনিয়ম : বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নে কেন্দ্র দখল নিয়ে সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদুল হক বাচ্চুসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। মুন্সীগঞ্জে চরকেওয়ার ইউনিয়নে ফুলতলা কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে।

এসময় ককটেল বিস্ফোরণে আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। ময়মনসিংহের ত্রিশাল বর্মা কাকচর মাদ্রাসা কেন্দ্রে ব্যালট ছিনিয়ে নেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। মেহেরপুরের কুতুবপুর ইউনিয়নের কুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রকাশ্যে সিল মেরে ভোট নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই জেলার গাংনী উপজেলার ধানখোলা ইউনিয়নে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। 

বিভিন্ন স্থানে আটক/গ্রেফতার : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ভোটকেন্দ্রে সহিংসতার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়ার অভিযোগে ৩১ যুবককে অস্ত্রসহ আটক করা হয়েছে। ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নে জাল ভোট দেওয়ায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।

বরিশালের মুলাদী ও বাবুগঞ্জে ভোট কেন্দ্র থেকে ১০ বহিরাগতকে আটক করা হয়েছে। ফেনীর শুভপুর ইউনিয়নে কেন্দ্রের পাশে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় চার মেম্বার প্রার্থীসহ ১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ভোলার চরফ্যাশনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে ১২ জনকে আটক করা হয়েছে।

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জালভোট দেওয়ার অভিযোগে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জাল ভোট দেওয়ায় আলাউদ্দিন নামে একজনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। নেত্রকোনার কলমাকান্দার লেঙ্গুরা ইউনিয়নে জালভোট দেওয়ার সময় এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

নোয়াখালীর সেনবাগে দুটি মাইক্রোবাসসহ ১২ যুবককে আটক করা হয়েছে। সাতক্ষীরার কালীগঞ্জের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে দুটি শাটারগান ও ৩০টি ককটেলসহ দুজনকে আটক করেছে র‌্যাব। বরিশালের বাবুগঞ্জে ভোট কেন্দ্রে চার বহিরাগতকে জরিমানা করা হয়েছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন