নারী দলের দুই ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত
jugantor
নারী দলের দুই ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত

  ক্রীড়া প্রতিবেদক  

০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জিম্বাবুয়ে থেকে ফেরা বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের দুই ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বিসিবির একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সোমবার দুপুরে পাওয়া পরীক্ষার রিপোর্টে দুজনের করোনা পজিটিভ আসে। তাদের আলাদা করে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। বাকিরা হোটেল সোনারগাঁওয়ে কোয়ারেন্টিনে আছেন। আফ্রিকা মহাদেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় জিম্বাবুয়েতে মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব মাঝপথে বাতিল করা হয়। গত ১ ডিসেম্বর দেশে ফিরে কোয়ারেন্টিনে চলে যায় বাংলাদেশ নারী দল। যে ভয়ে টুর্নামেন্ট বাতিল হয়েছে, সেটাই সত্যি হলো। তবে কোন দুজন ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, সেটা গোপন রাখতে চায় বিসিবি। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান কাল হোটেলে গিয়েছিলেন নারী দলের সবার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে। কিন্তু দুজন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় সাক্ষাৎ পর্ব বাতিল করা হয়। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমরা নারী ক্রিকেট দলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। যখন তারা জিম্বাবুয়েতে ছিল তখনো আমরা তাদের সঙ্গে নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ রেখেছিলাম। এমনকি আমি তাদের সঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতার কথাও বলেছি।’

দেশে ফেরার পথে ও ফেরার পর নারী ক্রিকেটার, কোচ ও কর্মকর্তাদের একাধিকবার পরীক্ষা করা হয়েছে। দুজন পজিটিভ হওয়ার পর সবার আরেক দফা পরীক্ষা করানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার কথা ছিল সোমবার রাতে। বাছাইপর্ব বাতিল হলেও বাংলাদেশ মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপে প্রথমবার খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। জিম্বাবুয়ে থেকে নারী দলের দেশে ফিরতে দেরি হয় ওমিক্রনের জেরে একের পর এক ফ্লাইট বাতিল হওয়ায়। পাঁচদিনের কোয়ারেন্টিন শেষ হওয়ার কথা ছিল কাল। কিন্তু দুজন করোনা পজিটিভ হওয়ায় বাকিদের কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

দেশে ফেরার পথে জিম্বাবুয়ে থেকে প্রথমে নামিবিয়া যায় নারী দল। সেখানে থেকে ওমানে যাওয়ার পর কয়েক দফা ফ্লাইট বাতিল হয়। দলগুলোকে নিরাপদে দেশে পাঠানোর দায়িত্ব ছিল আইসিসির। শেষ পর্যন্ত ওমানের মাসকাট থেকে আইসিসি একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশ দলকে দেশে ফেরত পাঠায়।

বাছাইপর্বে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। প্রথম ম্যাচে তারা পাকিস্তানকে হারায়। এরপর শারমিন আক্তার সুপ্তার সেঞ্চুরিতে যুক্তরাষ্ট্রকে উড়িয়ে দেন নিগার সুলতানারা। তৃতীয় ম্যাচে বৃষ্টি-আইনে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে হারে বাংলাদেশ। তবে খেলেই বাছাইপর্ব উতরে যাওয়ার উজ্জ্বল সম্ভাবনা ছিল। টুর্নামেন্ট বাতিল হলেও র‌্যাংকিংয়ে উপরের দিকে অবস্থানের কারণে নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের মেয়েদের বিশ্বকাপে খেলা। আগামী বছর মার্চ-এপ্রিলে আট দলের ওয়ানডে বিশ্বকাপ হবে নিউজিল্যান্ডে।

নারী দলের দুই ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত

 ক্রীড়া প্রতিবেদক 
০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জিম্বাবুয়ে থেকে ফেরা বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের দুই ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বিসিবির একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সোমবার দুপুরে পাওয়া পরীক্ষার রিপোর্টে দুজনের করোনা পজিটিভ আসে। তাদের আলাদা করে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। বাকিরা হোটেল সোনারগাঁওয়ে কোয়ারেন্টিনে আছেন। আফ্রিকা মহাদেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় জিম্বাবুয়েতে মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব মাঝপথে বাতিল করা হয়। গত ১ ডিসেম্বর দেশে ফিরে কোয়ারেন্টিনে চলে যায় বাংলাদেশ নারী দল। যে ভয়ে টুর্নামেন্ট বাতিল হয়েছে, সেটাই সত্যি হলো। তবে কোন দুজন ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, সেটা গোপন রাখতে চায় বিসিবি। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান কাল হোটেলে গিয়েছিলেন নারী দলের সবার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে। কিন্তু দুজন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় সাক্ষাৎ পর্ব বাতিল করা হয়। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমরা নারী ক্রিকেট দলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। যখন তারা জিম্বাবুয়েতে ছিল তখনো আমরা তাদের সঙ্গে নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ রেখেছিলাম। এমনকি আমি তাদের সঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতার কথাও বলেছি।’

দেশে ফেরার পথে ও ফেরার পর নারী ক্রিকেটার, কোচ ও কর্মকর্তাদের একাধিকবার পরীক্ষা করা হয়েছে। দুজন পজিটিভ হওয়ার পর সবার আরেক দফা পরীক্ষা করানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার কথা ছিল সোমবার রাতে। বাছাইপর্ব বাতিল হলেও বাংলাদেশ মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপে প্রথমবার খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। জিম্বাবুয়ে থেকে নারী দলের দেশে ফিরতে দেরি হয় ওমিক্রনের জেরে একের পর এক ফ্লাইট বাতিল হওয়ায়। পাঁচদিনের কোয়ারেন্টিন শেষ হওয়ার কথা ছিল কাল। কিন্তু দুজন করোনা পজিটিভ হওয়ায় বাকিদের কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

দেশে ফেরার পথে জিম্বাবুয়ে থেকে প্রথমে নামিবিয়া যায় নারী দল। সেখানে থেকে ওমানে যাওয়ার পর কয়েক দফা ফ্লাইট বাতিল হয়। দলগুলোকে নিরাপদে দেশে পাঠানোর দায়িত্ব ছিল আইসিসির। শেষ পর্যন্ত ওমানের মাসকাট থেকে আইসিসি একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশ দলকে দেশে ফেরত পাঠায়।

বাছাইপর্বে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। প্রথম ম্যাচে তারা পাকিস্তানকে হারায়। এরপর শারমিন আক্তার সুপ্তার সেঞ্চুরিতে যুক্তরাষ্ট্রকে উড়িয়ে দেন নিগার সুলতানারা। তৃতীয় ম্যাচে বৃষ্টি-আইনে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে হারে বাংলাদেশ। তবে খেলেই বাছাইপর্ব উতরে যাওয়ার উজ্জ্বল সম্ভাবনা ছিল। টুর্নামেন্ট বাতিল হলেও র‌্যাংকিংয়ে উপরের দিকে অবস্থানের কারণে নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের মেয়েদের বিশ্বকাপে খেলা। আগামী বছর মার্চ-এপ্রিলে আট দলের ওয়ানডে বিশ্বকাপ হবে নিউজিল্যান্ডে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন