রাস্তার গিঁট খুঁজে ফ্লাইওভার নির্মাণ করুন
jugantor
একনেকে প্রধানমন্ত্রী
রাস্তার গিঁট খুঁজে ফ্লাইওভার নির্মাণ করুন

  যুগান্তর প্রতিবেদন   

২৯ জুন ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী

সারা দেশে চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টিকারী রাস্তার গিঁট খুঁজে বের করে ওভারপাস নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, রাস্তায় চলাচলে যাতে কোনো বাধার সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

এজন্য যেখানেই প্রয়োজন সেখানেই ওভারপাস নির্মাণ করুন। জনগণের জন্য সহজ যাতায়াত ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ নির্দেশ দেন তিনি।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় এই ব্রিফিং।

পরিকল্পনামন্ত্রী সড়কের গিঁট প্রসঙ্গে বলেন, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে যেমন চলাচলের গিঁট ছিল পদ্মা নদী। এখন সেতু তৈরির মাধ্যমে সেই গিঁট খুলে দেওয়া হয়েছে। এরকম দেশের যেখানেই চলাচলের বাধা আছে সেগুলো খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মন্ত্রী জানান, সিলেট, সুনামগঞ্জ অঞ্চলে বন্যায় রাস্তার ক্ষতিগ্রস্ত অংশে আর রাস্তা না করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ওই ভাঙ্গা স্থানে সেতু বা কালভার্ট করতে বলেছেন তিনি।

এ ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য হলো-পানি যাতে অবাধ চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা রাখতে হবে। আর ভাঙা অংশে নতুন করে রাস্তা করা যাবে না। সেই সঙ্গে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলে দ্রুত পুনর্বাসন কাজ করতে হবে।

এ ছাড়া কোথাও নৌরুট থাকলে সেখানে কালভার্ট না করে সেতু তৈরির নির্দেশও দিয়েছেন শেখ হাসিনা। সেই সঙ্গে যেসব শহরে রেললাইন আছে সেখানে ওভারপাস করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

ব্রিফিং-এ পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমরা সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনাসহ যেসব অঞ্চলে বন্যা হয়েছে সেখানে বিশেষ পুনর্বাসন প্রকল্প নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছি। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন এজন্য একটি প্রকল্প তৈরি করুন।

মসলার উন্নতজাত সম্প্রসারণসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন : মসলার উন্নত জাত ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ২ হাজার ২১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এরমধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১ হাজার ৮৭৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৩৪১ কোটি ১৮ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। গণভবন থেকে এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন-পরিকল্পনা সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য (সচিব) মামুন-আল-রশীদ, আইএমইডির সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব ড. শাহনাজ আরেফিনসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা।

এমএ মান্নান বলেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করায় প্রধানমন্ত্রীকে পদ্মা সেতুর আদলে একটি ফুলের তোড়া দিয়ে একনেকের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে বর্তমান অর্থ সচিব গর্ভনর হওয়ায় তাকেও অভিনন্দন জানানো হয়।

তিনি আরও বলেন, এখন আর সড়কের নতুন প্রকল্প নেওয়া হবে না। তবে পুরোনো প্রকল্পগুলোকে সংস্কার এবং প্রয়োজনে রাস্তার ঘাড় ভেঙে সোজা করতে হবে। অর্থাৎ যেসব রাস্তা আঁকাবাঁকা আছে সেগুলোকে সোজা করে চলাচল বাধাহীন করা হবে।

একনেকে প্রধানমন্ত্রী

রাস্তার গিঁট খুঁজে ফ্লাইওভার নির্মাণ করুন

 যুগান্তর প্রতিবেদন  
২৯ জুন ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
প্রধানমন্ত্রী
একনেক সভায় মঙ্গলবার বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা - পিআইডি

সারা দেশে চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টিকারী রাস্তার গিঁট খুঁজে বের করে ওভারপাস নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, রাস্তায় চলাচলে যাতে কোনো বাধার সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

এজন্য যেখানেই প্রয়োজন সেখানেই ওভারপাস নির্মাণ করুন। জনগণের জন্য সহজ যাতায়াত ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ নির্দেশ দেন তিনি।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় এই ব্রিফিং। 

পরিকল্পনামন্ত্রী সড়কের গিঁট প্রসঙ্গে বলেন, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে যেমন চলাচলের গিঁট ছিল পদ্মা নদী। এখন সেতু তৈরির মাধ্যমে সেই গিঁট খুলে দেওয়া হয়েছে। এরকম দেশের যেখানেই চলাচলের বাধা আছে সেগুলো খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

মন্ত্রী জানান, সিলেট, সুনামগঞ্জ অঞ্চলে বন্যায় রাস্তার ক্ষতিগ্রস্ত অংশে আর রাস্তা না করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ওই ভাঙ্গা স্থানে সেতু বা কালভার্ট করতে বলেছেন তিনি।

এ ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য হলো-পানি যাতে অবাধ চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা রাখতে হবে। আর ভাঙা অংশে নতুন করে রাস্তা করা যাবে না। সেই সঙ্গে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলে দ্রুত পুনর্বাসন কাজ করতে হবে।

এ ছাড়া কোথাও নৌরুট থাকলে সেখানে কালভার্ট না করে সেতু তৈরির নির্দেশও দিয়েছেন শেখ হাসিনা। সেই সঙ্গে যেসব শহরে রেললাইন আছে সেখানে ওভারপাস করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। 

ব্রিফিং-এ পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমরা সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনাসহ যেসব অঞ্চলে বন্যা হয়েছে সেখানে বিশেষ পুনর্বাসন প্রকল্প নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছি। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন এজন্য একটি প্রকল্প তৈরি করুন।

মসলার উন্নতজাত সম্প্রসারণসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন : মসলার উন্নত জাত ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণসহ ১০ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ২ হাজার ২১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এরমধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১ হাজার ৮৭৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৩৪১ কোটি ১৮ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। গণভবন থেকে এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম। 

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন-পরিকল্পনা সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য (সচিব) মামুন-আল-রশীদ, আইএমইডির সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব ড. শাহনাজ আরেফিনসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা। 

এমএ মান্নান বলেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করায় প্রধানমন্ত্রীকে পদ্মা সেতুর আদলে একটি ফুলের তোড়া দিয়ে একনেকের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে বর্তমান অর্থ সচিব গর্ভনর হওয়ায় তাকেও অভিনন্দন জানানো হয়।

তিনি আরও বলেন, এখন আর সড়কের নতুন প্রকল্প নেওয়া হবে না। তবে পুরোনো প্রকল্পগুলোকে সংস্কার এবং প্রয়োজনে রাস্তার ঘাড় ভেঙে সোজা করতে হবে। অর্থাৎ যেসব রাস্তা আঁকাবাঁকা আছে সেগুলোকে সোজা করে চলাচল বাধাহীন করা হবে।
 

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন