ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি টিংকুকে অব্যাহতি
jugantor
নড়াইলে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছনা
ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি টিংকুকে অব্যাহতি

  নড়াইল প্রতিনিধি  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নড়াইলে মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় বিছালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আকতার হোসেন টিংকুকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে উপস্থিত থেকেও দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার অভিযোগ আনা হয়েছে। টিংকু একই কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ছিলেন। ঘটনার পরদিন (১৯ জুন) লাঞ্ছিত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে সরিয়ে তাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেয়া হয়।

একই সঙ্গে এ ঘটনায় টিংকুকে তিন দিনের মধ্যে লিখিতভাবে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। ওই ইউনিয়ন আ.লীগের সহসভাপতি মশিয়ার রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে নড়াইল সদর উপজেলা আ.লীগের সভাপতি অচিন কুমার চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক মো. ওমর ফারুক স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি অচিন কুমার চক্রবর্তী বলেন, অধ্যক্ষকে হেনস্তা করার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনার পাশাপাশি বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর বিশ্লেষণ করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কারণ দর্শানোর চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের এক ছাত্রের মোবাইলে স্ট্যাটাস নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। আপনি ওই কলেজের একজন শিক্ষক। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, আপনি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। আপনার উপস্থিতিতেই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে জুতার মালা পরিয়ে বের করে আনা হয়, যা নিন্দনীয় ও শিক্ষকসমাজকে হেয়প্রতিপন্ন করার শামিল। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ও মিডিয়ার খবরে আপনাকে জড়িত করে সংবাদ হচ্ছে। সে কারণে আপনি এর দায়িত্ব এড়াতে পারেন না। আমরা মনে করি, আপনি সভাপতি হিসাবে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন।’

দলীয় পদ থেকে অব্যাহতিপত্র হাতে পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে আকতার হোসেন টিংকু বলেন, যেখানে হাজার হাজার লোকের বিক্ষোভে উত্তাল, পরিস্থিতি মোকাবিলায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সর্বোচ্চ নির্বাহীসহ অসংখ্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হিমশিম খাচ্ছেন-সেখানে আমার মতো নগণ্য একজন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির কী ভূমিকা থাকতে পারে? এরপরও আমি বিষয়টি সামলাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি।

তিনি আরও বলেন, প্রকৃতপক্ষে ঘটনার পরের দিন নড়াইল-১ আসনের এমপি মহোদয়ের উপস্থিতিতে সংশ্লিষ্টরা আমাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের মৌখিক দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকে প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠেছে।

নড়াইলে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছনা

ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি টিংকুকে অব্যাহতি

 নড়াইল প্রতিনিধি 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নড়াইলে মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় বিছালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আকতার হোসেন টিংকুকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে উপস্থিত থেকেও দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার অভিযোগ আনা হয়েছে। টিংকু একই কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ছিলেন। ঘটনার পরদিন (১৯ জুন) লাঞ্ছিত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে সরিয়ে তাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেয়া হয়।

একই সঙ্গে এ ঘটনায় টিংকুকে তিন দিনের মধ্যে লিখিতভাবে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। ওই ইউনিয়ন আ.লীগের সহসভাপতি মশিয়ার রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে নড়াইল সদর উপজেলা আ.লীগের সভাপতি অচিন কুমার চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক মো. ওমর ফারুক স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি অচিন কুমার চক্রবর্তী বলেন, অধ্যক্ষকে হেনস্তা করার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনার পাশাপাশি বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর বিশ্লেষণ করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কারণ দর্শানোর চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের এক ছাত্রের মোবাইলে স্ট্যাটাস নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। আপনি ওই কলেজের একজন শিক্ষক। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, আপনি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। আপনার উপস্থিতিতেই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে জুতার মালা পরিয়ে বের করে আনা হয়, যা নিন্দনীয় ও শিক্ষকসমাজকে হেয়প্রতিপন্ন করার শামিল। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ও মিডিয়ার খবরে আপনাকে জড়িত করে সংবাদ হচ্ছে। সে কারণে আপনি এর দায়িত্ব এড়াতে পারেন না। আমরা মনে করি, আপনি সভাপতি হিসাবে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন।’

দলীয় পদ থেকে অব্যাহতিপত্র হাতে পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে আকতার হোসেন টিংকু বলেন, যেখানে হাজার হাজার লোকের বিক্ষোভে উত্তাল, পরিস্থিতি মোকাবিলায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সর্বোচ্চ নির্বাহীসহ অসংখ্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হিমশিম খাচ্ছেন-সেখানে আমার মতো নগণ্য একজন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির কী ভূমিকা থাকতে পারে? এরপরও আমি বিষয়টি সামলাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি।

তিনি আরও বলেন, প্রকৃতপক্ষে ঘটনার পরের দিন নড়াইল-১ আসনের এমপি মহোদয়ের উপস্থিতিতে সংশ্লিষ্টরা আমাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের মৌখিক দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকে প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন