করোনায় পাঁচ মৃত্যু, ১৬ সপ্তাহে সর্বোচ্চ
jugantor
করোনায় পাঁচ মৃত্যু, ১৬ সপ্তাহে সর্বোচ্চ
শনাক্ত ১৮৯৭

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে গত একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে-যা ১৬ সপ্তাহের মধ্যে সর্বোচ্চ। তবে চার দিন পর দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজারের নিচে নেমে এসেছে। শুক্রবার ১ হাজার ৮৯৭ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ লাখ ৭৫ হাজার ৬৮২ জন। তাদের মধ্যে ২৯ হাজার ১৫৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৮৮০টি ল্যাবরেটরিতে ১২ হাজার ৪০৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর ১২ হাজার ৩৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৩১ শতাংশ। গত এক দিনে শনাক্ত নতুন রোগীর মধ্যে ১৩৬৭ জনই ঢাকা মহানগর ও জেলার বাসিন্দা। দেশের আট বিভাগের ৫২টি জেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

সোমবার দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ছাড়ায়। সেদিন ২ হাজার ১০১ জন শনাক্তের কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরদিন মঙ্গলবার ২ হাজার ৮৭ জন, বুধবার ২ হাজার ২৪১ জন এবং বৃহস্পতিবার ২ হাজার ১৮৩ জন রোগী শনাক্ত হন।

আগে ৮ মার্চ একদিনে করোনায় সাতজনের মৃত্যু হয়েছিল। ১১ মার্চ তা নেমে এসেছিল ৫ জনে। মাঝের সময়টায় দৈনিক মৃত্যু এর নিচেই ছিল। টানা ২০ দিন ভাইরাসটিতে মৃত্যুহীনও ছিল বাংলাদেশ। করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের দাপট কমলে ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হাজারের নিচে নেমে আসে। ধারাবাহিকভাবে কমতে কমতে একপর্যায়ে ২৬ মার্চ তা একশর নিচে নেমে যায়। কিন্তু ২২ মের পর থেকে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আবারও বাড়ছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪৮ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাদের নিয়ে ১৯ লাখ ৭ হাজার ৭৫৭ জন সেরে উঠলেন।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হন। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ২০২০ সালের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০২১ সালের ৫ আগস্ট ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারির মধ্যে একদিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৩ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৭৫ লাখ।

করোনায় পাঁচ মৃত্যু, ১৬ সপ্তাহে সর্বোচ্চ

শনাক্ত ১৮৯৭
 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে গত একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে-যা ১৬ সপ্তাহের মধ্যে সর্বোচ্চ। তবে চার দিন পর দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজারের নিচে নেমে এসেছে। শুক্রবার ১ হাজার ৮৯৭ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ লাখ ৭৫ হাজার ৬৮২ জন। তাদের মধ্যে ২৯ হাজার ১৫৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৮৮০টি ল্যাবরেটরিতে ১২ হাজার ৪০৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর ১২ হাজার ৩৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৩১ শতাংশ। গত এক দিনে শনাক্ত নতুন রোগীর মধ্যে ১৩৬৭ জনই ঢাকা মহানগর ও জেলার বাসিন্দা। দেশের আট বিভাগের ৫২টি জেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

সোমবার দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ছাড়ায়। সেদিন ২ হাজার ১০১ জন শনাক্তের কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরদিন মঙ্গলবার ২ হাজার ৮৭ জন, বুধবার ২ হাজার ২৪১ জন এবং বৃহস্পতিবার ২ হাজার ১৮৩ জন রোগী শনাক্ত হন।

আগে ৮ মার্চ একদিনে করোনায় সাতজনের মৃত্যু হয়েছিল। ১১ মার্চ তা নেমে এসেছিল ৫ জনে। মাঝের সময়টায় দৈনিক মৃত্যু এর নিচেই ছিল। টানা ২০ দিন ভাইরাসটিতে মৃত্যুহীনও ছিল বাংলাদেশ। করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের দাপট কমলে ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হাজারের নিচে নেমে আসে। ধারাবাহিকভাবে কমতে কমতে একপর্যায়ে ২৬ মার্চ তা একশর নিচে নেমে যায়। কিন্তু ২২ মের পর থেকে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আবারও বাড়ছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪৮ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাদের নিয়ে ১৯ লাখ ৭ হাজার ৭৫৭ জন সেরে উঠলেন।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হন। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ২০২০ সালের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০২১ সালের ৫ আগস্ট ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারির মধ্যে একদিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৩ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৭৫ লাখ।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন