অভিযানে ৭ বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা
jugantor
চট্টগ্রামে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত আদায়
অভিযানে ৭ বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

০৯ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জরিমানা

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে সরকার নতুন ভাড়া নির্ধারণ করলেও বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে নগরীর গণপরিবহণগুলোতে। যাত্রীদের দাবি, সরকার নির্ধারিত যে ভাড়া রয়েছে তার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে তাদের কাছ থেকে। এমনকি সিএনজিচালিত যানবাহনগুলোও এ সুযোগের ফায়দা লুটছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে নগরীতে গণপরিবহণে অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত। নগরীর ওয়াসা মোড় এলাকায় সোমবার অভিযান পরিচালনাকালে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং কাগজপত্রে ত্রুটি থাকায় সাতটি যাত্রীসেবা বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন বিআরটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাতুল তামান্না।

অভিযান দলে থাকা বিআরটিএর মোটরযান পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন যুগান্তরকে বলেন, নতুন তালিকায় নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নিয়েছে এমন ৫টি বাসকে এবং লাইসেন্স ও ট্যাক্স টোকেনের মেয়াদ চলে গেছে এ কারণে দুটি বাসকে মোট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। মঙ্গলবারও অভিযান পরিচালনার শিডিউল রয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা। এর আগে গত শুক্রবার রাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর কথা জানানো হয়। ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা, পেট্রোলের দাম ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেনের দাম ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা করা হয়। পরদিন শনিবার সকালে চট্টগ্রাম নগর থেকে গণপরিবহণ কার্যত উধাও হয়ে যায়। পরে চলাচল শুরু করলেও পরিবহণ শ্রমিকেরা বিভিন্ন মোড়ে বাধা দেন। আর রোববার যান চলাচল স্বাভাবিক হলেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন যাত্রীরা।

এদিকে রোববার নগরীর বিভিন্ন রুটের ভাড়ার তালিকা নির্ধারণ করেছে চট্টগ্রাম বিআরটিএ। এতে যাত্রীসেবা বাসে সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা এবং মিনিবাস বা হিউম্যান হলারে ৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া প্রতি কিলোমিটার ৩৫ পয়সা বাড়িয়ে ২ টাকা ৫০ পয়সা করা হয়, যা আগে ছিল ২ টাকা ১৫ পয়সা। তবে বর্ধিত ভাড়া সিএনজি গ্যাস চালিত গণপরিবহণে কার্যকর হবে না বলে বিআরটিএর নির্দেশনায় বলা হয়েছে। অপরদিকে চালক ও হেলপারদের দাবি তারা এখনো ভাড়ার চার্ট হাতে পাননি। এ কারণে অনুমান করে ভাড়া আদায় করছেন। এ নিয়ে প্রতিনিয়ত বাকবিতণ্ডা হচ্ছে।

নগরীর মার্কেট মোড়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষমাণ এক যাত্রী মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, গণপরিবহণে নতুন বর্ধিত ভাড়া না মেনে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়তি আদায় করা হচ্ছে। নিউমার্কেট থেকে ভাটিয়ারীর দূরত্ব ১৫ কিলোমিটারে নতুন ভাড়া অনুযায়ী ৩৮ টাকা হলেও বাসগুলো ৪০ টাকা নিচ্ছে। এ নিয়ে কিছু বললেই চালক ও হেলপার বাস থেকে নামিয়ে দিতে চাইছেন।

নুরুল আলম নামে এক সিকিউরিটি গার্ড বলেন, নতুন ব্রিজ থেকে চাতরি চৌমুহনী পর্যন্ত আগে ভাড়া নিত ২০ টাকা। এখন নেওয়া হচ্ছে ৩০ টাকা। সরকারি নির্ধারিত দরে বড়জোর ২৫ টাকা ভাড়া হওয়ার কথা।

চট্টগ্রামে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত আদায়

অভিযানে ৭ বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
০৯ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
জরিমানা
চট্টগ্রামে ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার জমিয়াতুল ফালাহ পশ্চিম গেটের সামনে -যুগান্তর

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে সরকার নতুন ভাড়া নির্ধারণ করলেও বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে নগরীর গণপরিবহণগুলোতে। যাত্রীদের দাবি, সরকার নির্ধারিত যে ভাড়া রয়েছে তার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে তাদের কাছ থেকে। এমনকি সিএনজিচালিত যানবাহনগুলোও এ সুযোগের ফায়দা লুটছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে নগরীতে গণপরিবহণে অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত। নগরীর ওয়াসা মোড় এলাকায় সোমবার অভিযান পরিচালনাকালে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং কাগজপত্রে ত্রুটি থাকায় সাতটি যাত্রীসেবা বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন বিআরটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাতুল তামান্না।

অভিযান দলে থাকা বিআরটিএর মোটরযান পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন যুগান্তরকে বলেন, নতুন তালিকায় নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নিয়েছে এমন ৫টি বাসকে এবং লাইসেন্স ও ট্যাক্স টোকেনের মেয়াদ চলে গেছে এ কারণে দুটি বাসকে মোট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। মঙ্গলবারও অভিযান পরিচালনার শিডিউল রয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা। এর আগে গত শুক্রবার রাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর কথা জানানো হয়। ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা, পেট্রোলের দাম ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেনের দাম ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা করা হয়। পরদিন শনিবার সকালে চট্টগ্রাম নগর থেকে গণপরিবহণ কার্যত উধাও হয়ে যায়। পরে চলাচল শুরু করলেও পরিবহণ শ্রমিকেরা বিভিন্ন মোড়ে বাধা দেন। আর রোববার যান চলাচল স্বাভাবিক হলেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন যাত্রীরা।

এদিকে রোববার নগরীর বিভিন্ন রুটের ভাড়ার তালিকা নির্ধারণ করেছে চট্টগ্রাম বিআরটিএ। এতে যাত্রীসেবা বাসে সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা এবং মিনিবাস বা হিউম্যান হলারে ৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া প্রতি কিলোমিটার ৩৫ পয়সা বাড়িয়ে ২ টাকা ৫০ পয়সা করা হয়, যা আগে ছিল ২ টাকা ১৫ পয়সা। তবে বর্ধিত ভাড়া সিএনজি গ্যাস চালিত গণপরিবহণে কার্যকর হবে না বলে বিআরটিএর নির্দেশনায় বলা হয়েছে। অপরদিকে চালক ও হেলপারদের দাবি তারা এখনো ভাড়ার চার্ট হাতে পাননি। এ কারণে অনুমান করে ভাড়া আদায় করছেন। এ নিয়ে প্রতিনিয়ত বাকবিতণ্ডা হচ্ছে।

নগরীর মার্কেট মোড়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষমাণ এক যাত্রী মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, গণপরিবহণে নতুন বর্ধিত ভাড়া না মেনে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়তি আদায় করা হচ্ছে। নিউমার্কেট থেকে ভাটিয়ারীর দূরত্ব ১৫ কিলোমিটারে নতুন ভাড়া অনুযায়ী ৩৮ টাকা হলেও বাসগুলো ৪০ টাকা নিচ্ছে। এ নিয়ে কিছু বললেই চালক ও হেলপার বাস থেকে নামিয়ে দিতে চাইছেন।

নুরুল আলম নামে এক সিকিউরিটি গার্ড বলেন, নতুন ব্রিজ থেকে চাতরি চৌমুহনী পর্যন্ত আগে ভাড়া নিত ২০ টাকা। এখন নেওয়া হচ্ছে ৩০ টাকা। সরকারি নির্ধারিত দরে বড়জোর ২৫ টাকা ভাড়া হওয়ার কথা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন