বাজেটে পোশাক শিল্পের কোনো সুখবর নেই

বিজিএমইএ

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গার্মেটস
ছবি: সংগৃহীত

প্রস্তাবিত বাজেটে পোশাক শিল্পবান্ধব হয়নি বলে দাবি করেছে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ব্যাংক খাতে কর্পোরেট কর কমানো হয়েছে।

কিন্তু যে খাতে সবচেয়ে বেশি কর্মসংস্থান হচ্ছে, সেই পোশাক খাতে কর্পোরেট কর হার বাড়ানো হয়েছে। আমরা মনে করি এটি তৈরি পোশাক খাতের উদ্যোক্তাদের ব্যাপকভাবে নিরুৎসাহিত করবে।

এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়। প্রস্তাবিত বাজেটে পোশাক শিল্পের জন্য কোনো সুখবরও নেই। বাজেট পাস হওয়ার আগে এ খাতে অর্থমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপের পুনর্বিবেচনা করারও আহ্বান জানানো হয়।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে সংগঠনের নিজস্ব কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তৈরি পোশাক খাতসহ সামগ্রিক বাজেট সম্পর্কে সংগঠনের মূল্যায়ন তুলে ধরেন বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান। এ সময় সংগঠনের ঊর্ধ্বতন নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে যেমন পোশাক শিল্পের জন্য কোনো সুখবর নেই তেমনি আবার খারাপ খবরও নেই। শুধু এটুকুই বলব, বাজেটে আমাদের দাবির কোনো প্রতিফলন ঘটেনি। এটা পোশাক শিল্পবান্ধবও হয়নি। তিনি জানান, সবাই পোশাক খাত ভালোবাসেন। তাই এ খাত নিয়ে টম অ্যান্ড জেরি খেলা খেলেন।

বাজেট এলেই এ খাতে কর বাড়ানো হয়। আবার বাজেটের পর সেটি সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে দেনদরবার করে কমিয়ে আনতে হয়। এবারের বাজেটেও তাদের দাবি- দাওয়া পূরণের জন্য সর্বোচ্চ পর্যায়েই যাবেন। সেখান থেকে তাদের প্রত্যাশা পূরণ করে আনতে সক্ষম হবেন বলেও দাবি করেন বিজিএমইএ সভাপতি।

পোশাক খাত নিয়ে হতাশার কথা বললেও তিনি এ বাজেটকে সময়োপযোগী ও ব্যবসাবান্ধব বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, শুধু পোশাক শিল্পের ওপর ভিত্তি করে বাজেট হবে না। সামগ্রিক দৃষ্টিকোণ থেকে বাজেট করতে হয়। অর্থমন্ত্রী হয়তো সেটিই করেছেন। আমরা বাজেট পর্যালোচনা করে দেখেছি, এতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান সহায়ক অনেক পদক্ষেপ আছে। আমরা মনে করি, এতে দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। বিনিয়োগ বাড়বে।

পোশাক খাত নিয়ে বাজেটে গৃহীত পদক্ষেপ তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন, এ বাজেটে পোশাক খাতের কর্পোরেট কর হার ১২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ এবং সবুজ শিল্পের জন্য ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২ শতাংশ করা হয়েছে।

প্রাক-বাজেট আলোচনায় এই ইস্যুতে বিজিএমইএ’র অনুরোধ ছিল- এটা যেন ১২ শতাংশ থেকে আরও কমিয়ে ১০ শতাংশে নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু বাজেটে আমরা তা দেখতে পাইনি।

আমরা মনে করি, কর্পোরেট কর হার বাড়ানোর ফলে পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তারা নিরুৎসাহিত হবেন। সরকারের কাছে আমাদের অনুরোধ, পোশাক শিল্পে কর্পোরেট কর হার ১০ শতাংশ নির্ধারণের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করুন। আমরা আশা করি আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এর সমাধান হয়ে যাবে।

সংগঠনের দাবি পূরণ হয়নি উল্লেখ করে বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর বলেন, পোশাক শিল্পের জন্য সব থেকে সমস্যার বিষয় হল ভ্যাট। ভ্যাট থাকলেই হয়রানি হবে। তাই আমরা রফতানি খাতকে সম্পূর্ণভাবে ভ্যাটমুক্ত রাখার দাবি করেছিলাম- যা ঘোষিত বাজেটে প্রতিফলিত হয়নি।

আমরা সেই দাবি পুনর্ব্যক্ত করছি। পোশাক শিল্প থেকে উৎস কর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার অথবা অন্তত তিন বছরের জন্য ওই কর ধার্য প্রক্রিয়া থেকে পোশাক খাতকে অব্যাহতি দেয়ার প্রস্তাব করেছিলাম। বাজেটে দাবিটিও প্রতিফলিত হয়নি।

প্রস্তাবিত বাজেটে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা আমরা পাইনি। চূড়ান্তভাবে বাজেট পাস হওয়ার আগেই এ বিষয়টিও আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হয়ে যাবে বলে আমরা আশা করছি।

ঘটনাপ্রবাহ : বাজেট ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter