সমাবেশে খালেদা জিয়া গেলে ব্যবস্থা নেবেন আদালত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
jugantor
সমাবেশে খালেদা জিয়া গেলে ব্যবস্থা নেবেন আদালত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি সমাবেশের নামে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নষ্ট করলে ভুল করবে।

খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে আদালত জামিন দিয়েছেন। ১০ ডিসেম্বর যদি খালেদা জিয়া সমাবেশে যোগ দেন, তাহলে আদালত ব্যবস্থা নেবেন।

রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে বুধবার বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের বার্ষিক প্রশিক্ষণ সম্মেলন উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সাংবাদিকরা জানতে চেয়েছিলেন, যদি সমাবেশে খালেদা জিয়া যোগ দেন, তার জামিন বাতিল হবে কি না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সুন্দর পরিবেশের জন্যই তাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বিএনপি বলেছিল সমাবেশে অনেক লোকের সমাগম করবে। তারা দুটি জায়গার কথা বলেছে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ (সংসদ ভবনের সামনে)। মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে জাতীয় সংসদ ভবন রয়েছে। সেখানে কাউকে সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না। তাদের দাবির বিষয়টি লক্ষ রেখেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই অরাজক পরিস্থিতি যাতে না হয় তার ব্যবস্থা করতে। বিএনপি যাতে স্বাচ্ছন্দ্যে সমাবেশ করতে পারে, সেজন্য সোহরাওয়ার্দীতে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা সব সময় বলে আসছি, আপনাদের (বিএনপি) পার্টির যে কোনো কার্যক্রম করতে চান অবশ্যই করবেন। এটা রাজনৈতিক অধিকার। কিন্তু আপনারা কোনোক্রমেই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারবেন না এবং তার চেষ্টাও করবেন না।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, আপনারা নিশ্চয়ই জানেন, নয়াপল্টনের রাস্তার অবস্থা। ওই রাস্তায় যদি তারা সমাবেশ করে আর বলছেন লাখ লাখ লোকের সমাগম করবেন। তাহলে ওই রাস্তার অবস্থা কী হবে? এসব বিষয় চিন্তা করেই তাদের একটা বড় জায়গায় সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আমি একটি কথা স্পষ্ট করে বলতে চাই-বিএনপি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করলে ভুল করবে।

এর আগে বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের বার্ষিক প্রশিক্ষণ সম্মেলন-২০২২ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উজ্জ্বল ভবিষ্যতের স্বপ্ন নিয়ে গড়ে ওঠা নারী পুলিশ সদস্যরা বর্তমান শিশুদের জন্য বড় অনুপ্রেরণা হিসাবে কাজ করছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী পদক্ষেপে নারী পুলিশের সংখ্যা কয়েকটি ধাপে বাড়ানো হয়েছে ১৫ হাজার ৫৬১ জন, যা সামগ্রিক পুলিশ সদস্যের ৮ দশমিক ১৯ শতাংশ।

মন্ত্রী বলেন, সামাজিক অপরাধ দমনে প্রযুক্তিনির্ভরতা ও বিজ্ঞানভিত্তিক অপরাধ ব্যবস্থাপনার যেমন বিকল্প নেই, তেমনইভাবে অপরাধকে সমূলে উপড়ে ফেলতে এর উৎস অনুসন্ধান করা প্রয়োজন। যে ক্ষেত্রে পুলিশের গোয়েন্দা ও কার্যকরী গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা আবশ্যক।

বাংলাদেশ উইমেন পুলিশ নেটওয়ার্কের (বিপিডব্লিউএন) সভাপতি ও পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের ডিআইজি (প্রটেকশন অ্যান্ড প্রটোকল) আমেনা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন প্রমুখ।

সমাবেশে খালেদা জিয়া গেলে ব্যবস্থা নেবেন আদালত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি সমাবেশের নামে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নষ্ট করলে ভুল করবে।

খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে আদালত জামিন দিয়েছেন। ১০ ডিসেম্বর যদি খালেদা জিয়া সমাবেশে যোগ দেন, তাহলে আদালত ব্যবস্থা নেবেন।

রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে বুধবার বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের বার্ষিক প্রশিক্ষণ সম্মেলন উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সাংবাদিকরা জানতে চেয়েছিলেন, যদি সমাবেশে খালেদা জিয়া যোগ দেন, তার জামিন বাতিল হবে কি না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সুন্দর পরিবেশের জন্যই তাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বিএনপি বলেছিল সমাবেশে অনেক লোকের সমাগম করবে। তারা দুটি জায়গার কথা বলেছে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ (সংসদ ভবনের সামনে)। মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে জাতীয় সংসদ ভবন রয়েছে। সেখানে কাউকে সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না। তাদের দাবির বিষয়টি লক্ষ রেখেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই অরাজক পরিস্থিতি যাতে না হয় তার ব্যবস্থা করতে। বিএনপি যাতে স্বাচ্ছন্দ্যে সমাবেশ করতে পারে, সেজন্য সোহরাওয়ার্দীতে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা সব সময় বলে আসছি, আপনাদের (বিএনপি) পার্টির যে কোনো কার্যক্রম করতে চান অবশ্যই করবেন। এটা রাজনৈতিক অধিকার। কিন্তু আপনারা কোনোক্রমেই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারবেন না এবং তার চেষ্টাও করবেন না।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, আপনারা নিশ্চয়ই জানেন, নয়াপল্টনের রাস্তার অবস্থা। ওই রাস্তায় যদি তারা সমাবেশ করে আর বলছেন লাখ লাখ লোকের সমাগম করবেন। তাহলে ওই রাস্তার অবস্থা কী হবে? এসব বিষয় চিন্তা করেই তাদের একটা বড় জায়গায় সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আমি একটি কথা স্পষ্ট করে বলতে চাই-বিএনপি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করলে ভুল করবে।

এর আগে বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের বার্ষিক প্রশিক্ষণ সম্মেলন-২০২২ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উজ্জ্বল ভবিষ্যতের স্বপ্ন নিয়ে গড়ে ওঠা নারী পুলিশ সদস্যরা বর্তমান শিশুদের জন্য বড় অনুপ্রেরণা হিসাবে কাজ করছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী পদক্ষেপে নারী পুলিশের সংখ্যা কয়েকটি ধাপে বাড়ানো হয়েছে ১৫ হাজার ৫৬১ জন, যা সামগ্রিক পুলিশ সদস্যের ৮ দশমিক ১৯ শতাংশ।

মন্ত্রী বলেন, সামাজিক অপরাধ দমনে প্রযুক্তিনির্ভরতা ও বিজ্ঞানভিত্তিক অপরাধ ব্যবস্থাপনার যেমন বিকল্প নেই, তেমনইভাবে অপরাধকে সমূলে উপড়ে ফেলতে এর উৎস অনুসন্ধান করা প্রয়োজন। যে ক্ষেত্রে পুলিশের গোয়েন্দা ও কার্যকরী গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা আবশ্যক।

বাংলাদেশ উইমেন পুলিশ নেটওয়ার্কের (বিপিডব্লিউএন) সভাপতি ও পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের ডিআইজি (প্রটেকশন অ্যান্ড প্রটোকল) আমেনা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন