কালীগঞ্জে হামলায় যুবলীগ নেতা নিহত
jugantor
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব
কালীগঞ্জে হামলায় যুবলীগ নেতা নিহত

  কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি  

০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় আরিফুল ইসলাম (৪৫) নামের এক যুবলীগ নেতা নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে পৌরসভাধীন কাশিপুর বেদেপল্লিতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আরিফ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। এ ঘটনার প্রতিবাদে কালীগঞ্জ শহরে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

নিহতের স্ত্রী রেশমা খাতুন জানান, স্থানীয় কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজল ও মনিরুল ইসলামের নেতৃত্ব তাদের বাড়িতে হামলা হয়। এরপর বাড়ির সামনে তার স্বামীকে পেয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। এ সময় থানা পুলিশের সহযোগিতা চেয়েও পাওয়া যায়নি। ৯৯৯ ফোন দিয়ে তিনি সহযোগিতা চাইলে বাড়ির সামনে একটি অ্যাম্বুলেন্স আসে। পরে তার স্বামীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পথে তার স্বামীর মৃত্যু হয়। তিনি এ হত্যার বিচার দাবি করেছেন। তার ছোট দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। নিহতের বড় ছেলে মাহামুদ হাসান (১৪) জানায়, ঘটনার সময় সে বাইরে র‌্যাকেট খেলছিল। ফোন করে তার বাবা তাকে বাসায় আসতে বলেন। সে বাসার সামনে গিয়ে দেখে তার বাবা মাটিতে পড়ে আছে। জানতে স্থানীয় কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজলের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

নিহতের ভাই ও কালীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম রেজা জানান, কাশিপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপ রয়েছে। তার ভাই ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা জানান, বেদে সম্প্রদায়ের মধ্যে দুটি গ্রুপ আছে। এক পক্ষের নেতৃত্ব দেন মনিরুল ও অন্যপক্ষে শেখ রাসেল। কিছুদিন আগে সাবনুর নামে এক মেয়ে বাদী হয়ে শেখ রাসেলের নামে নারী নির্যাতন মামলা করেন। মঙ্গলবার আবারও শেখ রাসেলের নামে মামলা করেন সাবনুর। এটা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল : আরিফুলের লাশ নিয়ে বুধবার বিকালে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয়রা। মিছিলটি শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

মিছিলে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল হোসেন, সাবেক সংসদ-সদস্য আব্দুল মান্নানের স্ত্রী শামীম আরা মান্নান, ইউপি চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেনসহ বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব

কালীগঞ্জে হামলায় যুবলীগ নেতা নিহত

 কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি 
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় আরিফুল ইসলাম (৪৫) নামের এক যুবলীগ নেতা নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে পৌরসভাধীন কাশিপুর বেদেপল্লিতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আরিফ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। এ ঘটনার প্রতিবাদে কালীগঞ্জ শহরে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

নিহতের স্ত্রী রেশমা খাতুন জানান, স্থানীয় কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজল ও মনিরুল ইসলামের নেতৃত্ব তাদের বাড়িতে হামলা হয়। এরপর বাড়ির সামনে তার স্বামীকে পেয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। এ সময় থানা পুলিশের সহযোগিতা চেয়েও পাওয়া যায়নি। ৯৯৯ ফোন দিয়ে তিনি সহযোগিতা চাইলে বাড়ির সামনে একটি অ্যাম্বুলেন্স আসে। পরে তার স্বামীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পথে তার স্বামীর মৃত্যু হয়। তিনি এ হত্যার বিচার দাবি করেছেন। তার ছোট দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। নিহতের বড় ছেলে মাহামুদ হাসান (১৪) জানায়, ঘটনার সময় সে বাইরে র‌্যাকেট খেলছিল। ফোন করে তার বাবা তাকে বাসায় আসতে বলেন। সে বাসার সামনে গিয়ে দেখে তার বাবা মাটিতে পড়ে আছে। জানতে স্থানীয় কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজলের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

নিহতের ভাই ও কালীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম রেজা জানান, কাশিপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপ রয়েছে। তার ভাই ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা জানান, বেদে সম্প্রদায়ের মধ্যে দুটি গ্রুপ আছে। এক পক্ষের নেতৃত্ব দেন মনিরুল ও অন্যপক্ষে শেখ রাসেল। কিছুদিন আগে সাবনুর নামে এক মেয়ে বাদী হয়ে শেখ রাসেলের নামে নারী নির্যাতন মামলা করেন। মঙ্গলবার আবারও শেখ রাসেলের নামে মামলা করেন সাবনুর। এটা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল : আরিফুলের লাশ নিয়ে বুধবার বিকালে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয়রা। মিছিলটি শহরের মেইন বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

মিছিলে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল হোসেন, সাবেক সংসদ-সদস্য আব্দুল মান্নানের স্ত্রী শামীম আরা মান্নান, ইউপি চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেনসহ বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন