বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত আজ

ফিরে গেলেন মাওলানা সাদ

  গাজীপুর ও ঢাকা (উত্তর) প্রতিনিধি ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইজতেমা

বয়ান-তাশকিল, তালিম-তরবিয়ত, ইবাদত বন্দেগির মধ্য দিয়ে শনিবার কেটেছে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিন। দেশ-বিদেশের লাখো ধর্মপ্রাণ মুসলমানের কণ্ঠের আল্লাহ আকবর ধ্বনিতে এদিন মুখর ছিল তুরাগ তীর। আজ আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ জমায়েতের প্রথম পর্ব।

তাবলিগ জামাতের বাংলাদেশ শূরার সদস্য ও কাকরাইল মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ জোবায়ের আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন। এর আগে হেদায়েতি বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা আবদুল মতিন। সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টার মধ্যে মোনাজাত হতে পারে।

শনিবার নিজ দেশে ফিরে গেছেন বিশ্ব তাবলিগ জামাতের শীর্ষ ব্যক্তিত্ব দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভী। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে জেট এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে দিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন তিনি। এর আগে সকালে কাকরাইল মসজিদ থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাকে হযরত শাহজালাল (রহ.) বিমানবন্দরে আনা হয়। বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের এএসপি তারিক আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মাওলানা সাদের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণ ঠেকাতে বুধবার বিমানবন্দর গোলচত্বর এলাকায় বিক্ষোভ করে কওমিপন্থী আলেম, হেফাজতে ইসলাম ও তাবলিগের কর্মীদের একাংশ। এর মুখে তাকে কাকরাইল মসজিদে নেয়া হয়। বৃহস্পতিবার দু’পক্ষকে নিয়ে বৈঠকের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা দেন, মাওলানা সাদ ইজতেমায় যাবেন না, সুবিধাজনক সময়ে ভারতে ফিরে যাবেন। বিশ্ব ইজতেমার ইতিহাসে এবারই প্রথম আখেরি মোনাজাত করছেন একজন বাংলাদেশি। এ কারণে মোনাজাত আরবি ও বাংলা ভাষায় হবে বলে আশা করছেন অনেকেই। এতদিন তা আরবি ও উর্দু ভাষায় হয়ে আসছিল। শেষ দশকে ভারতের মাওলানা জোবায়েরুল হাসান, শেষ ২ বছরে মাওলানা সাদ কান্ধলভী আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেছিলেন। এছাড়া প্রায় এক দশক ধরে হেদায়েতি বয়ান করে আসছিলেন মাওলানা সাদ। হেদায়েতি বয়ান ও মোনাজাত বাংলায় হলে সেটি হবে বিশ্ব ইজতেমার ইতিহাসে প্রথম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইজতেমা ময়দানের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, শুক্রবার রাতে মুরব্বিদের নিয়ে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে হাফেজ মাওলানা জোবায়ের আখেরি মোনাজাত করবেন, হেদায়েতি কথা বলবেন মাওলানা আবদুল মতিন। তবে ভাষা নিয়ে ওই সভায় আলোচনা হয়নি।

আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে বিপুলসংখ্যক নারী টঙ্গীর আশপাশে অবস্থান নিয়েছেন। অনেকে তাদের আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে উঠেছেন। গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে শনিবার দুপুর থেকে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে।

শনিবার বাদ ফজর বাংলাদেশের মাওলানা নূরুল রহমান, বাদ জোহর সুদানের মাওলানা ড. জাহাদ, বাদ আসর বাংলাদেশের নূরুর রহমান, বাদ মাগরিব মাওলানা ফারুক হোসেন বয়ান করেন। বয়ানে উঠে আসে- দুনিয়া হচ্ছে ধোঁকার ঘর, দুনিয়ার জীবন ধোঁকার জীবন। মিছে এ দুনিয়ার আরাম-আয়েশের কথা ভুলে আখেরাতের সম্বল তৈরি করতে হবে। আমল ছাড়া আখেরাতে খালি হাতে যাওয়া যাবে না। সবাইকে দ্বীনের পথে সময় লাগাতে হবে। আমাদের সবার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন।

আরও দুই মুসল্লির মৃত্যু : শুক্রবার রাতে এক বিদেশি মুসল্লিসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের একজন নূরহান বিন আবদুর রহমান (৫৫) মালয়েশিয়ার বাসিন্দা। সাড়ে ৯টার দিকে নুরহান অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে টঙ্গী হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। অন্যজন হচ্ছেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরবাইতা গ্রামের মো. রফিকুল ইসলাম (৫০)। তিনি ১১টার দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এর আগে ইজতেমায় যোগ দিতে আসার প্রথম দিনে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

বিদেশি মুসল্লি : গাজীপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে বিশেষ শাখার পরিদর্শক (ডিআই-২) মো. মোমিনুল ইসলাম জানান, বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে অংশ নিতে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বিশ্বের ৮৮টি দেশের ৪ হাজার ৪৭৬ জন মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে এসে পৌঁছেছেন। আখেরি মোনাজাতের আগে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

বিকল্প রাস্তা ও পার্কিং : গাজীপুর জেলা অফিসার এসএম রাহাত হাসনাত জানান, মুসল্লিদের চলাচলের জন্য ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চান্দনা চৌরাস্তা হতে টঙ্গী ব্রিজ পর্যন্ত সকাল ৬টা হতে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়াও কালীগঞ্জ-টঙ্গী মহাসড়কের মাজুখান ব্রিজ হতে স্টেশন রোড ওভার ব্রিজ পর্যন্ত এবং কামারপাড়া ব্রিজ হতে মুন্নু টেক্সটাইল মিল গেট পর্যন্ত সড়ক বন্ধ থাকবে।

গাজীপুর ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার মো. সালেহ উদ্দিন আহমেদ জানান, শনিবার রাত ১২টা থেকে ঢাকার আবদুল্লাহপুর, আশুলিয়ার কামারপাড়া, গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস ও টঙ্গীর নিমতলী পর্যন্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে মুসল্লিদের সুবিধার্থে ভোগড়া বাইপাস ও নিমতলী থেকে ইজতেমা মাঠ পর্যন্ত ১৫টি শাটল বাস মুসল্লিদের আনা-নেয়ার জন্য চলাচল করবে।

বিশেষ বাস ও ট্রেন সার্ভিস : মুসল্লিদের সুবিধার্থে ১৯টি বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে এছাড়া সব আন্তঃনগর ট্রেন টঙ্গীতে যাত্রাবিরতি করবে। বিআরটিসি দুই শতাধিক স্পেশাল বাস সার্ভিস চালু করেছে।

প্রয়োজনীয় পণ্যের চড়া দাম : ময়দানের আশপাশে কয়েক হাজার মৌসুমি ব্যবসায়ী তাদের পসরা সাজিয়ে বসেছেন। তবে চাল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা বাধ্য হয়েই বেশি দামে এসব জিনিসপত্র কিনছেন। গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাহেনুল ইসলাম জানান, শনিবার বিশ্ব ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে দুটি মিষ্টির দোকানে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

শীতে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনেকেই : শীতের প্রকোপে ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বিভিন্ন রোগে আক্রান্তরা চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে ভিড় করছেন। শনিবার দুপুর পর্যন্ত টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে সাড়ে তিন হাজার রোগীকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি ও ৭ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। মুন্নু মিল মাঠে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন, হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ, ইবনে সিনা, র‌্যাব, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, টঙ্গী ওষুধ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি, গ্রামীণফোন, ড্যাব, ইউনানী আয়ুর্বেদিক, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনসহ অর্ধশতাধিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ফ্রি চিকিৎসা দিচ্ছে।

 
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

gpstar

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter