কামরানের লক্ষ্য জনসেবা হয়রানির অভিযোগ আরিফের

  সিলেট ব্যুরো ১৩ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সিলেট সিটি কর্পোরেশন

সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে প্রচারে ব্যস্ত মেয়র প্রার্থীরা। বৃহস্পতিবার দিনভর ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন তারা।

এদিন গণসংযোগে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনকে জনমুখী প্রতিষ্ঠান করা হবে। জনগণকে সেবা দেয়াই হবে আমার মূল লক্ষ্য। অন্যদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী প্রচারকালে অভিযোগ করে বলেন, আমার সমর্থক ও অনুসারীদের নানাভাবে হয়রানি করা শুরু হয়েছে।

কিন্তু আমি ভয় পাই না, কারণ সিলেটবাসী আমার সঙ্গে আছেন। এছাড়া সিলেটকে তিলোত্তমা নগরী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ভোট চেয়েছেন বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম। সকালে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনকে সঙ্গে নিয়ে আম্বরখানা থেকে চৌহাট্টা এলাকায় গণসংযোগ করেন কামরান।

তিনি ৩০ জুলাই নির্বাচনে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, নির্বাচিত হলে জনগণের সুবিধার কথা মাথায় রেখে কাজ করব। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলাওর, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক আলম খান মুক্তি, যুগ্ম সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদার, সেলিম আহমদ সেলিম, ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুল হক চৌধুরী মতি, আবদুস সাত্তার, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের উপগণযোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মঈনুল ইসলাম ফয়সল, সদস্য শাহ আলম শাওন, আবদুল লতিফ রিপন, মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল বাসিত রুম্মান প্রমুখ।

এদিকে কামরানের সমর্থনে ১২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে নির্বাচনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র প্রার্থী কামরানের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক শফিকুর রহমান চৌধুরী।

মাহবুব রহমান মবুর সভাপতিত্বে ও শামীম আহমদ এবং মানিক আহমদের যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য দেন মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা আজমল আলী, অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন, যুবলীগ নেতা আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।

নৌকা মার্কার সমর্থনে সিলেট মহানগর ও জেলা যুবলীগের কর্মিসভা আজ বাদ মাগরিব প্রধান নির্বাচনী কার্যালয় হোটেল নির্ভানা ইন মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার সিলেট মহানগরী এলাকার জিন্দাবাজারের ব্যবসায়ীদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। এ সময় তিনি বলেন, সিলেটের পবিত্র ভূমিতে যারা অতীতে অন্যায়-অবিচার করেছেন তারা পেশাগত, পারিবারিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে ধ্বংস হয়েছেন।

সুতরাং সাবধান, এই সিলেটের মানুষ যেমন অন্যায়কে সহ্য করেন না, তেমনি এই পবিত্র মাটির সঙ্গে প্রতারণা-প্রবঞ্চনা করে কেউ শান্তিতে থাকতে পারবে না। তিনি আরও বলেন, নানা প্রতিবন্ধকতা, বাধা-বিপত্তির মধ্যেও ইস্পাতকঠিন মনোবল নিয়ে আমি নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। অতীতে সুখে-দুঃখে সিলেটের মানুষ যেভাবে আমাকে আগলে রেখেছেন, তা আমি এবং আমার পরিবার কোনো দিন ভুলব না।

আর তাই উন্নয়নকামী সিলেটবাসীর ভালোবাসা ও মমতার প্রতিদান হিসেবে আমি আমার বাকি জীবন সিলেটের উন্নয়নে সঁপে দিয়েছি, জীবনের শেষ দিনটি পর্যন্ত সিলেটের উন্নয়নে নিবেদিত থাকতে চাই।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন আম্বরখানা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি কুতুবুর রহমান চৌধুরী, খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগর সহসভাপতি আবদুল হান্নান তাপাদার, শ্রমিক দল মহানগর শাখার সিনিয়র সহসভাপতি মাসুক এলাহী, যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আবদুল শুক্কুর, ব্যবসায়ী নেতা বদরুজ্জামান বদরুল প্রমুখ।

এদিকে আরিফুল হক চৌধুরীর সহধর্মিণী সামা হক চৌধুরী বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মহানগরীর দাঁড়িয়াপাড়া, জল্লারপাড়, রিকাবীবাজার, মেডিকেল রোড এলাকা ও সংলগ্ন পাড়া-মহল্লায় ধানের শীষের পক্ষে গণসংযোগ করেন।

তিলোত্তমা নগরীর স্লোগান নিয়ে বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেন সিলেট নাগরিক কমিটি মনোনীত বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম। তিনি বলেন, দীর্ঘ ৩৯ বছরের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতার সবটুকু নগরবাসীর কল্যাণে উজাড় করে দিতেই আমি মেয়র প্রার্থী হয়েছি। পরিকল্পিত উন্নয়নের মাধ্যমে দুর্নীতিমুক্ত তিলোত্তমা সিলেট নগরী উপহার দিতে ৩০ জুলাই বাস মার্কায় ভোট চাই।

ঐতিহাসিক কোর্ট পয়েন্ট থেকে তার গণসংযোগ শুরু হয়। পরে নগরীর জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা-আম্বরখানা হয়ে শাহী ঈদগাহ প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এদিকে বিশিষ্ট মুরব্বি শোয়েব আহমদকে সভাপতি ও আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাহী চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে সেলিমের ১২১ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী প্রফেসর ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন খান বৃহস্পতিবার নগরীর লালদীঘিরপাড়, হকার্স মার্কেট, বন্দরবাজারসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেছেন। এ সময় তিনি বলেন, শরিয়তের দৃষ্টিতে আমি সৎ ও যোগ্য ব্যক্তি হলে আপনাদের কাছে আমার ভোট পাওয়ার দাবি থাকবে। তার গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী যুব আন্দোলন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ, ইসলামী আন্দোলন সিলেট মহানগরের সহ-প্রচার সম্পাদক মো. মহসিন আহমদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো. আবদুস সালাম, সংখ্যালঘু সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, ইসলামী আন্দোলন ১৪নং ওয়ার্ড সেক্রেটারি মো. নাজির হোসেন, ইসলামী যুব আন্দোলন ১৪নং ওয়ার্ড সভাপতি মো. জাকির হোসেন প্রমুখ।

অপরাধীদের দৌরাত্ম্যে উদ্বেগ : সিলেট বিভাগ গণদাবি ফোরামের এক সভায় বক্তারা সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনী আমেজের মধ্যে নগরীতে ছিনতাইসহ নানা অপরাধমূলক কার্যক্রম বৃদ্ধি পাওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এসব অপরাধমূলক কার্যক্রম কঠোর হাতে নিয়ন্ত্রণ করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান তারা। বৃহস্পতিবার বিকালে সিলেট বিভাগ গণদাবি ফোরামের উদ্যোগে সুরমা ম্যানশন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় এ দাবি জানানো হয়।

সিলেট বিভাগ গণদাবি ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সিলেট জেলা সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক চৌধুরী দেলওয়ার হোসেন জিলনের উপস্থাপনায় সভায় বক্তব্য দেন সিলেট বিভাগ গণদাবি ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বদরুল আহমদ চৌধুরী ও শাহ শেরওয়ান মোহাম্মদ কামালী, সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী গোলাম মর্তুজা, সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি শামীম হাসান চৌধুরী প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-বরিশাল-সিলেট সিটি নির্বাচন ২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter