দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আজ বন্ধ

প্রকাশ : ০২ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

ছবি- সংগৃহীত

সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আজ সারা দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বুধবার বিকালে এ তথ্য সাংবাদিকদের জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

পাশাপাশি এ সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ও।

এ সিদ্ধান্ত নেয়ার পরপরই রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার বিষয়টি জানিয়ে অভিভাবকদের কাছে এসএসএম পাঠানো হয়। এমনকি বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে এসএমএস দিয়ে আজকের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের জানিয়ে দেয়া হয়।

সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক মো. মাহবুবুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে কাল (আজ) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. আবু হেনা মোস্তফা কামাল যুগান্তরকে বলেন, অন্যগুলোর পাশাপাশি সারা দেশে সব ধরনের প্রাথমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকবে।

বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে রাজধানীতে গত ৪ দিন ধরে রাস্তা অবরোধ করে শিশু শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছে। যতই সময় গড়াচ্ছে তাদের সঙ্গে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ একাত্মতা ঘোষণা করছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আজ সাদা দলের শিক্ষকরা মৌন মিছিল করবেন। এছাড়া বুধবার বিভিন্ন চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতি অঙ্গনের তারকারা একাত্মতা প্রকাশ করেন।

এদিকে বুধবার অনুষ্ঠিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বৈঠক থেকে শিশুদের আন্দোলনের যৌক্তিকতা স্বীকার করা হয়েছে। রাতেই মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব এবং মাউশি মহাপরিচালকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুই ছাত্রীর বাসায় যান ও সমবেদনা প্রকাশ করেন।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজের এক অভিভাবক স্কুল বন্ধের ব্যাপারে এসএমএস পাওয়ার কথা স্বীকার করে যুগান্তরকে বলেন, এমনিতেও ভয়ে সন্তানকে স্কুলে পাঠাচ্ছি না। কর্তৃপক্ষ ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রাজধানীর পান্থপথে একটি কোচিং সেন্টারের ছাত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, বৃহস্পতিবার তাদের ক্লাস ছিল। এসএমএস পাঠিয়ে ক্লাস বন্ধের বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে বুধবার সকালে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে এক তাৎক্ষণিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর নিহত ও কয়েকজন শিক্ষার্থীর আহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনায় সহপাঠীর মৃত্যুতে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ আমরা শিক্ষা পরিবারের সবাই শোকার্ত।

সভায় শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিফতরের মহাপরিচালক মো. মাহবুবুর রহমানসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। সভা থেকে শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষা পরিবারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আন্তরিক সমবেদনা ও সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন।

সভায় শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, উক্ত দুর্ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা এবং সড়ক পরিবহনকে সুশৃঙ্খল ও নিরাপদ করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে কঠোর নির্দেশনা প্রদান করেছেন। সে অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং দোষীদের গ্রেফতার করেছে। সংশ্লিষ্ট দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণ অব্যাহত আছে।

সভায় মন্ত্রী শোকার্ত কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শোক সংবরণ করে শান্ত থাকা ও ধৈর্য ধারণ করার জন্য আহ্বান জানান। তিনি সংশ্লিষ্ট সব শিক্ষক, অভিভাবক ও অন্যান্যদের শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে শিক্ষা কার্যক্রমে সহযোগিতা করতে বিশেষভাবে অনুরোধ জানান।