৫ দিন নিখোঁজ আইনজীবী শওকত

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

৫ দিন নিখোঁজ আইনজীবী শওকত
সংবাদ সম্মেলনে আইনজীবী শওকতের স্ত্রী ও কন্যা

ঢাকা বারের আইনজীবী শওকত আকবর পাঁচ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন। সর্বশেষ গত শুক্রবার স্থানীয় মসজিদে জুমার নামাজের সময় দেখা যায় মিরপুর-১০ নম্বরের এ-ব্লকের ৪ নম্বর সড়কের ৫ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা শওকত আকবরকে। তারপর থেকে তার কোনো খোঁজ মেলেনি। পুলিশের ধারণা জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে গুম হতে পারেন শওকত আকবর। তার চাচারা তাকে বিভিন্ন সময় হত্যার হুমকি দিতেন বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী।

নিখোঁজ আইনজীবীর স্ত্রী সানিয়া আক্তার মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার জুমার নামাজ আদায়ের জন্য বাসা থেকে বের হন শওকত আকবর। এরপর থেকেই নিখোঁজ তিনি। এ ঘটনায় ওইদিনই পল্লবী থানায় জিডি করি। পাশাপাশি র‌্যাব-৪-কেও জানানো হয়েছে। আমি প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আমার স্বামীর সন্ধান চেয়ে আবেদন করছি।

জানতে চাইলে পল্লবী থানার এসআই আরিফ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, নিখোঁজের বিষয়টি এখনও ক্লুলেস। ভিডিও ফুটেজে তাকে মসজিদে প্রবেশ (১২টা ৩৮ মিনিট) এবং বের হতে (১টা ৩৪ মিনিট) দেখা গেছে। এরপর আর দেখা যায়নি। তিনি জানান, জমিজমা নিয়ে নিখোঁজ আইনজীবীর সঙ্গে তার চাচাদের দ্বন্দ্ব রয়েছে। এর জেরে তিনি গুম হতে পারেন। তারপরও নিখোঁজের সঙ্গে এর কোনো যোগসূত্র রয়েছে কিনা তা যাচাই করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, তার কাছে কোনো মোবাইল ফোন বা ক্রেডিট কার্ড না থাকায় সন্ধান পেতে বেগ পেতে হচ্ছে। তবে আমি আশাবাদী তার খোঁজ পাওয়া যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে সানিয়া আক্তার বলেন, স্বামী ও ১০ মাসের একটি কন্যাসন্তানসহ আমি মিরপুরের বাসায় থাকি। আমার স্বামী কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জড়িত নন, ছিলেনও না। তবে গ্রামের বাড়ির সম্পত্তি নিয়ে শওকতের বাবার চাচাতো ভাই মোহাম্মদ আলী খোকন, শওকত আলী ওরফে বাবুল ও আমজাত আলী ওরফে বাদলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ঝামেলা চলছে। তারা শওকতকে হত্যার হুমকিও দিতেন। হুমকির বিষয়ে ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর পল্লবী থানায় একটি জিডিও করেন শওকত।

সানিয়া আক্তার জানান, তার স্বামী আইন পেশার পাশাপাশি সাউথইস্ট ব্যাংকের অ্যাসিসটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে চাকরি করতেন। তাকে বিভিন্ন সময় এ চাকরি ছেড়ে দিতে হুমকি দিত অজ্ঞাতরা। চাকরি না ছাড়লে তাকে দেখে নেয়া হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। শওকতের চাচা মোহাম্মদ আলী খোকনের সঙ্গে সাউথইস্ট ব্যাংকের চেয়ারমান আলমগীর কবিরের এবং তৎকালীন এমডি শহিদ হোসেনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। এরই মধ্যে শহিদ হোসেন তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য চাপ দিতে থাকেন। একপর্যায়ে আমার স্বামী চাকরি ছেড়ে দেয়। এরপর সে কোনো কিছু করছিল না এবং ডিপ্রেশনে ভুগছিল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাউথইস্ট ব্যাংকের সাবেক এমডি শহিদ হোসেন টেলিফোনে যুগান্তরকে বলেন, এ ধরনের কোনো ঘটনা আমার মনে পড়ছে না। আর আমি এমডি থাকা অবস্থায় কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীকে জোর করে চাকরি ছাড়তে বলব এটা কখনোই সম্ভব নয়। আমি সব সময় তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করে এসেছি।

সংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ আইনজীবীর স্ত্রী সানিয়া আক্তার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার ১০ মাসের একটি মেয়ে রয়েছে। সে সব সময় বাবা বাবা ডাকছে এবং কান্না করছে। আমার শিশু বাচ্চাটার দিকে তাকিয়ে হলেও আমার স্বামীকে ফিরিয়ে দিন।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.