সুষ্ঠু নির্বাচন করতে ইসিকে সহযোগিতা দেবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

ট্রাফিক আইন মেনে চলার অনুরোধ

  সংসদ রিপোর্টার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) সরকার সহযোগিতা করবে। তিনি বলেন, ইসির সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে। বুধবার জাতীয় সংসদে তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অধিকাংশ দাবি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

মো. মনিরুল ইসলামের প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সুষ্ঠুভাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ইসির চাহিদা অনুসারে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। ইসিকে শক্তিশালী করতে জনবলের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য কমিশনের চাহিদা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বেগম নূর-ই-হাসনা লিলি চৌধুরীর প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক সংক্রান্ত ৯ দফা দাবির অধিকাংশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ বিলটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত হয়েছে। চলতি অধিবেশনে এটি উপস্থাপিত ও বিবেচিত হবে। এ আইনে অপরাধের গুরুত্ব অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, এছাড়া ৪ বছর মেয়াদি ন্যাশনাল রোড সেফটি অ্যাকশন প্ল্যান ২০১৭-২০ প্রণয়ন করা হয়েছে। এটি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ বা সংস্থার মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, টানা ৫ ঘণ্টার বেশি গাড়ি না চালানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দূরপাল্লার বাসে দু’জন চালক রাখার জন্য মালিকদের অনুরোধ করা হয়েছে।

ট্রাফিক আইন মেনে চলার জন্য দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নিরাপদ সড়কের জন্য যতই ব্যবস্থা নেয়া হোক না কেন, দেশের মানুষের মানসিক পরিবর্তন না হলে কিছুই হবে না। ফুটওভার ব্রিজ কিংবা আন্ডারপাস ব্যবহার না করে ছোট শিশুকে নিয়ে অনেককে চলন্ত গাড়ির মধ্যে দিয়ে রাস্তা পার হতে দেখা যায়। তিনি বলেন, দুর্ঘটনা হলে আইন নিজের হাতে না নিয়ে চালককে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা উচিত। অনেক সময় চালক প্রাণের ভয়ে গাড়ি না থামিয়ে দ্রুত চালিয়ে যান। কারণ অনেক সময় চালককে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়। রাস্তা পারাপারে জনসচেতনতার বড়ই অভাব রয়েছে। তাই সবার প্রতি অনুরোধ ট্রাফিক আইন মেনে চলুন।

মমতাজ বেগমের প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে, দেশের জনগণের সার্বিক মুক্তি অর্জন এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতা নিশ্চিতকরণে আওয়ামী লীগ সরকার নানাবিধ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে বর্তমান সরকার রূপকল্প-২০২১, দিনবদলের সনদ, গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু হত্যার অন্য পরিকল্পনাকারীদের শনাক্তে কমিশন গঠন : মো. আবদুল্লাহর প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী জানান, আওয়ামী লীগ পরপর দু’বার সরকার গঠন করার পর বঙ্গবন্ধুর হত্যার ষড়যন্ত্রের ব্যাপারে অনেক তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। এতে দেখা যায়, পরোক্ষভাবে দেশি ও বিদেশি কিছু লোক ও সংস্থা বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল। তাই জাতির পিতা হত্যার ব্যাপারে অন্য পরিকল্পনাকারীদের শনাক্ত করার জন্য একটি কমিশন গঠনের বিষয়টি সরকারের সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে।

ঢাকার চারিদিকে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে : একেএম রহমতুল্লাহর প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী জানান, সরকার ঢাকার যানজট নিরসন ও নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকল্পে এলিভেটেড এক্সপ্রেস সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পিপিপি প্রকল্প, ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প এবং ঢাকা ইস্ট-ওয়েস্ট এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, ঢাকা শহরে রিং রোড করারও পরিকল্পনা আছে। এ রিং রোড এলিভেটেড করা হবে। বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, বালু, তুরাগ নদ-নদীতে নৌপথ এবং এরই পাড় ধরে ভবিষ্যতে রিং রোড করে দেয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

ঢাকার যানজট নিরসন সম্পর্কে ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর বহু দেশের রাজধানীতেই যানজট হয়। দেশ দ্রুত উন্নত হচ্ছে, দেশের মানুষ অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হচ্ছেন ও আর্থিক সচ্ছলতা বাড়ছে বলেই তারা গাড়ি কিনছেন। গাড়ি রাস্তায় বেশি ব্যবহার হচ্ছে বলেই যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter