ফ্যাশনে বিজয়ের চেতনা

মার্কেটের শোরুমগুলোতে শোভা পাচ্ছে লাল সবুজের পোশাক

  ইয়াসিন রহমান ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুমনা আক্তার। বিজয় দিবস উদযাপনে নতুন পোশাক কিনতে এসেছেন দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্কে। তিনি যুগান্তরকে জানান, ১৬ ডিসেম্বর লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। একদিকে এদিন শহীদদের জন্য যেমন আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা থাকে, অন্যদিকে বিজয়ের উল্লাসও কাজ করে। তাই নিজেকে জাতীয় পতাকার রঙে সাজিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে আনন্দ উল্লাসে দিনটি উদযাপন করি। এ জন্য লাল-সবুজের নতুন একটি শাড়ি কিনতে এসেছি। কপালের টিপ থেকে শুরু করে হাতে কাচের চুড়িও লাল-সবুজ রঙ ফুটিয়ে তুলতে অনেক ভালো লাগে।

একই মার্কেটে কথা হয় শিক্ষার্থী হাসিবের সঙ্গে। তিনি যুগান্তরকে জানান, বিজয় দিবসে লাল-সবুজ পাঞ্জাবি পরে স্মৃতিসৌধে বন্ধুরা মিলে ফুল দিতে যাই। যে কারণে বরাবরের মতো এ বছরও লাল-সবুজ রঙের পাঞ্জাবি কিনতে এসেছি। তিনি আরও জনান, বিজয় শব্দটাই একটা আনন্দ। এই দিনে আমরা স্বাধীন হয়েছি। এজন্য এই দিন আমাদের উল্লাসে যেন কমতি থাকে না। বাঙালিয়ানা মানেই আনন্দ-উৎসবে মুখর। আর যে কোনো আনন্দে দেশের মানুষের কাছে নতুন পোশাক একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। বিজয় দিবসে লাল-সবুজ না পরলে যেন আনন্দের কোথাও একটা কমতি থেকে যায়। তাই এখানে নতুন একটি পোশাক কিনতে আসা।বিজয় দিবসকে সামনে রেখে দেশীয় ফ্যাশন হাউস থেকে শুরু করে বিভিন্ন পোশাকের মার্কেটে বাহারি ডিজাইনের লাল-সবুজের পোশাক উঠাতে শুরু করেছে। সরেজমিন যমুনা ফিউচার পার্ক ঘুরে দেখা যায়, দেশীয় পোশাক হাউস থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শোরুমে লাল-সবুজের পোশাক শোভা পেতে শুরু করেছে। বিজয় দিবসকে ঘিরে বাহারি ডিজাইনের পোশাক ডিসপ্লে করা হয়েছে। শপিং মলের দেশীয় পোশাকের ব্র্যান্ডের শোরুম অঞ্জনসের ব্রাঞ্চ ইনচার্জ রেজাউল করিম যুগান্তরকে বলেন, দেশে ধর্মীয় উৎসব থেকে শুরু করে দেশীয় সংস্কৃতির নানা উৎসবে মানুষ পিছিয়ে নেই। আর বিজয় দিবস এলে আরও ভিন্ন মাত্রা যোগ হয়। এসময় গ্রাহকদের পছন্দ লাল-সবুজের বিভিন্ন পোশাক শোভা পায়। তিনি বলেন, বিজয় দিবসকে ঘিরে আমাদের প্রস্তুতিও বরাবরের মতো আছে। ইতিমধ্যে আমারা লাল-সবুজের পোশাক শোরুমে তুলেছি। ছেলেদের পাঞ্জাবি, মেয়েদের শাড়ি, থ্রি-পিস, টু-পিস, ওয়ান পিস বিক্রি শুরু হয়েছে। তবে সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে ফ্যামেলি প্যাকেজ। কারণ একই ডিজাইনের মধ্যে পরিবারের সব সদস্যদের জন্য পোশাক তৈরি হয়েছে। প্রেমিকযুগলদের কাছেও এ প্যাকেজের বেশ কদর রয়েছে। কারণ এ উৎসবে তারা একই ডিজাইনের পোশাক পরে বিজয় উৎসব পালন করেন। তিনি আরও বলেন, এখানে ছেলেদের পাঞ্জাবি পাওয়া যাবে ৮০০-১৪০০ টাকায়। মেয়েদের থ্রি-পিস ১৮০০-২৫০০, শাড়ি ১৫০০-৩০০০ টাকায়। ছোটদের পোশাক ৩০০-২৫০০ টাকা। আর ফ্যামেলি প্যাকেজের পোশাক পাওয়া যাবে ৫ থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকায়। একই শপিংমলের দেশীয় ফ্যাশন হাউস আড়ংয়ের সেলস্ এক্সিকিউটিভ ইভা বলেন, ইতিমধ্যে বিজয়ের চেতনাসংবলিত পোশাক শোরুমে চলে এসেছে। বিক্রিও হচ্ছে। তবে দিন যত যেতে থাকবে বিক্রি তত বাড়বে। তিনি বলেন, এবার বিজয় দিবসকে কেন্দ্র করে ছেলেদের লাল-সবুজের পাঞ্জাবি, মেয়েদের থ্রি-পিস, টু-পিস ও শাড়ি তোলা হয়েছে। আর সবচেয়ে আকর্ষণীয় আইটেম হচ্ছে ফ্যামেলি প্যাকেজ। যাতে এক পরিবারের একই ডিজাইনের পোশাক পাওয়া যাবে।

এছাড়া ছোটদের জন্যও লাল-সবুজ পোশাক তোলা হয়েছে। রাজধানীর আজিজ মার্কেট বিজয় দিবসকে ঘিরে নতুন করে সেজেছে। সেখানে ইতিমধ্যে লাজ-সবুজ রঙের পোশাকে ছেয়ে গেছে। মার্কেটের প্রত্যেকটি দোকানে এই রঙের পোশাক টানানো হয়েছে। আর জাতীয় পতাকা সংবলিত ছেলেমেয়েদের টি-শার্টও পাওয়া যাচ্ছে। বাহারি ডিজাইনের কাজ করা নারীদের লাল-সবুজের শাড়িও পাওয়া যাচ্ছে। এ মার্কেটের বালুচর শোরুমের মালিক মো. ইলিয়াস জানান, শোরুমে লাল-সবুজের পোশাক তুলেছি। কারণ বিজয়ের মাসে এই পোশাক বেশি বিক্রি হয়। আর এবার গতবছরের চেয়ে অন্যরকম ডিজাইনের পোশাক পাওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে এখানে ছেলেদের পাঞ্জাবি পাওয়া যাবে ১০০০-২৫০০ টাকা। আর থ্রি-পিস, টু-পিস ও ওয়ান পিস পাওয়া যাবে ৭৫০-৩৫০০ টাকায়। আর নারীদের শাড়ি বিক্রি হচ্ছে ১৫০০-৪০০০ টাকায়।

এদিকে বিজয় দিবস উদযাপনের জন্য মেয়েদের পোশাকের সঙ্গে লাল-সবুজ কপালের টিপ ও কাচের চুড়ির কদর বেড়েছে। এ জন্য রাজধানীর শাহবাগে বসতে শুরু করেছে চুড়ির মেলা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×