আয়কর রিটার্ন জমায় রেকর্ড

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এবার রেকর্ডসংখ্যক আয়কর রিটার্ন জমা পড়েছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে ২০ লাখ ৬ হাজার ৭১৫টি রিটার্ন জমা পড়েছে, যা গত বছরের তুলনায় ১৪ শতাংশ বেশি। বেড়েছে আয়কর আদায়ও, ২৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে কর আদায়ে। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, সারা দেশের কর অঞ্চলগুলোয় ১৬ লাখ ৯১ হাজার ৬১০টি রিটার্ন জমা পড়েছে। এনবিআরের বেঁধে দেয়া সময়ে রিটার্ন জমা দিতে না পেরে সময় বৃদ্ধির আবেদন দিয়েছেন ৩ লাখ ১৫ হাজার ১০৫ জন করদাতা। এ সময় বৃদ্ধির আবেদনকেও রিটার্ন হিসেবে গণ্য করা হয়। সে হিসাবে ২০১৮-১৯ করবর্ষে সর্বমোট ২০ লাখ ৬ হাজার ৭১৫টি রিটার্ন জমা পড়েছে, যা গত বছরের তুলনায় ১৪ শতাংশ বেশি। গত বছর সময় বৃদ্ধির আবেদনসহ ১৮ লাখ ৩৫ হাজার ১৯০টি আয়কর রিটার্ন জমা পড়ে।

এ বিষয়ে এনবিআরের কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা অনুবিভাগের সদস্য জিয়া উদ্দিন মাহমুদ বলেন, দেশের সর্বত্র কর সংস্কৃতি গড়ে ওঠায় করদাতারা স্বেচ্ছায় আয়কর রিটার্ন জমা দিয়েছেন। করদাতাদের সুবিধার্থে এবার আয়কর মেলার পরিসর বাড়ানো হয়েছিল। তাছাড়া মেলার আবহে করদাতারা যাতে সার্কেল অফিসে রিটার্ন জমা দিতে পারেন, সে ব্যাপারে কর অঞ্চলগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। এ কারণে রিটার্ন জমায় রেকর্ড হয়েছে।

এবার রাজধানী ঢাকাসহ দেশের ৮টি বিভাগ, ৪টি জেলা এবং ৭টি উপজেলাসহ ১৯টি স্পটে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হয়। সপ্তাহব্যাপী মেলায় রিটার্ন জমা পড়েছে ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৩টি, যা গতবারের চেয়ে ৪৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ বেশি। এ থেকে আয়কর আদায় হয়েছে ২ হাজার ৪৬৮ কোটি টাকা, যা গত মেলার চেয়ে ১১ দশমিক ৩৫ শতাংশ বেশি। আর কর সংক্রান্ত সেবা নিয়েছেন ১৬ লাখ ৩৬ হাজার ২৬৬ জন, প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩৯ দশমিক ৯০ শতাংশ। মেলায় নতুন ই-টিআইএন নিয়েছেন ৩৯ হাজার ৭৪৩ জন, যা গত মেলার চেয়ে ৩৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ বেশি। অবশ্য সময় বৃদ্ধির আবেদনকারীদের নির্ধারিত করের সঙ্গে প্রতি মাসে আরও ২ শতাংশ সুদ দিতে হবে। কিন্তু সময়ের আবেদন না করে কেউ রিটার্ন না দিলে সুদের পাশাপাশি আইন লঙ্ঘনের দায়ে তাকে জরিমানা দিতে হবে। ১ ডিসেম্বর থেকে এ জরিমানার তারিখ গণনা শুরু হবে। আয়কর অধ্যাদেশের ১২৪ ধারায় বলা আছে, করদাতা যদি কোনো কারণ ছাড়াই নির্দিষ্ট সময়ে রিটার্ন দাখিল না করেন আবার এ জন্য অনুমোদনও না নেন, সেজন্য তার পূর্ববর্তী বছর প্রদেয় করের ১০ শতাংশ বা ১ হাজার টাকার মধ্যে যেটি বড় অঙ্ক ওই পরিমাণ অর্থ জরিমানা হবে। সেই সঙ্গে যতদিন দেরি হবে, প্রতিদিনের জন্য ৫০ টাকা হারে বাড়তি কর দিতে হবে। ৭৩এ ধারায় বলা আছে, ৩০ নভেম্বরের পর কর কর্মকর্তাদের অনুমতি নিয়ে দেরিতে রিটার্ন জমা দিলেও ২ শতাংশ বিলম্ব সুদ দিতে হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×