সোনাহাট স্থলবন্দরের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হচ্ছে

৭৪৫ কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাব * আমদানি-রফতানি সুবিধা বাড়বে * কুড়িগ্রাম-সোনাহাট সড়ক জাতীয় মহাসড়কে উন্নীত হবে

  হামিদ-উজ-জামান ২১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যোগাযোগ

কুড়িগ্রামের সোনাহাট স্থলবন্দরের যাতায়াত সুবিধা উন্নত হচ্ছে। সম্প্রতি এই স্থলবন্দরের জন্য দুধকুমর নদীর ওপর একটি ব্রিজ নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদনের পর এবার কুড়িগ্রাম থেকে স্থলবন্দর পর্যন্ত বিদ্যমান সড়ককে জাতীয় মহাসড়কে উন্নীত করা হচ্ছে।

এজন্য ‘কুড়িগ্রাম (দাসেরহাট)-নাগেশ্বরী-ভূরাঙ্গামারী-সোনাহাট স্থলবন্দর সড়ককে জাতীয় মহাসড়কে উন্নীতকরণ’ নামের একটি প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে। এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৭৪৫ কোটি টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে কুড়িগ্রাম ও সোনাহাট স্থলবন্দরের সঙ্গে টেকসই, নিরাপদ ও ব্যয়সাশ্রয়ী সড়ক অবকাঠামো এবং সমন্বিত সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা যুগান্তরকে জানান, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পর এরই মধ্যে প্রকল্পটির প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সভায় বেশকিছু সুপারিশ দেয়া হয়। এসব সুপারিশ প্রতিপালন করে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পুনর্গঠন করে পাঠানো হলে প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদনের সুপারিশ করা হবে। একনেকে অনুমোদন পেলে আগামী জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর।

সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে ১৮তম স্থলবন্দর হিসেবে সোনাহাট স্থলবন্দরের কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে এ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কয়লা এবং পাথর আমদানি হয়ে থাকে। পাশাপাশি বাংলাদেশ থেকে মেলামাইন এবং সিমেন্ট রফতানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ভবিষ্যতে এ স্থলবন্দরের মাধ্যমে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম আরও বৃদ্ধি পাবে। ব্রিটিশ শাসনামলে লালমনিরহাট জেলার মোগলহাট রেলস্টেশন থেকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কুচবিহার জেলার মধ্যে আলোচিত সড়কের অ্যালাইনমেন্ট বরাবর আসাম রাজ্যের ধুবড়ী জেলার গোলকগঞ্জ রেলস্টেশন হয়ে গোহাটি পর্যন্ত বঙ্গ-আসাম রেলপথ চালু ছিল। তখন সোনাহাট ছিল আসামের প্রবেশদ্বার।

তাছাড়া সোনাহাট স্থলবন্দর থেকে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের দূরত্ব ৫০ দশমিক ৩০ কিলোমিটার। এ স্থলবন্দরের সঙ্গে কুড়িগ্রাম সদরের কুড়িগ্রাম-নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী জেলা মহাসড়কের দৈর্ঘ্য ৩৯ দশমিক ৫০ কিলোমিটার এবং ভূরুঙ্গামারী-সোনাহাট স্থলবন্দর-মাদারগঞ্জ-ভিতরবন্দ-নাগেশ্বরী সড়কের দৈর্ঘ্য ৪৯ কিলোমিটার প্রথম ও দশম কিলোমিটারের মাধ্যমে সংযুক্ত। এসব সড়কের বর্তমান প্রস্থ ১৮ ফুট এবং শেষ ৫ কিলোমিটারের প্রস্থ ১২ ফুট। সড়ক দুটি এইচবিবি হিসেবে নির্মিত, যা ভারি যানবাহন চলাচলের জন্য অনুপযোগী।

এরই মধ্যে ভূরুঙ্গামারী-সোনাহাট স্থলবন্দর-মাদারগঞ্জ-ভিতরবন্দ-নাগেশ্বরী সড়কের ৫ম কিলোমিটারে দুধকুমর নদীর ওপর ৪৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে একটি ট্রাস/বেইলি সেতু রয়েছে। ১৯৮৭ সালে ভারত-পাকিস্তান বিভক্তির পর রেলপথের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় শতাব্দী প্রাচীন এ সেতুটির অবস্থা বর্তমানে খুবই খারাপ। সেতুর স্টিল পাটাতনগুলো অত্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত এবং ভারি যানবাহন চলাচলের জন্য অনুপযোগী। ফলে সোনাহাট স্থলবন্দর থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাক প্রায় সেতুতে আটকে যায়। তাছাড়া সেতুটি সরু হওয়ায় একসঙ্গে উভয়মুখী যান চলাচল করতে পারে না।

এ অবস্থায় সেতুর উভয় পার্শ্বে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যমান সেতুটির পরিবর্তে ৬৪৫ মিটার দীর্ঘ সেতু নির্মাণের জন্য ২৩২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ ব্রিজটি তৈরি হয়ে গেলে এ সড়কটি দিয়ে দৈনিক ১ হাজার ২০০টির বেশি ভারি যানবাহন চলাচল করবে। তাই গুরুত্ব বিবেচনা করে সড়কের দৈর্ঘ্য বাড়িয়ে ৭ দশমিক ৩ মিটার প্রস্থ এবং দেড় মিটার হার্ড শোল্ডারসহ উন্নীতকরণের জন্য প্রকল্পটি প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রকল্পের আওতায় প্রধান কার্যক্রমগুলো হচ্ছে- ভূমি অধিগ্রহণ ও ক্রয়, মাটির কাজ, হার্ড শোল্ডার নির্মাণ, সার্ফেসিং, রিজিট পেভমেন্ট, একটি পিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ, ২০টি কালভার্ট নির্মাণ, জিওটেক্সটাইলসহ সিসি ব্লক, আরসিসি টো-ওয়াল, গ্রাস টাফিং, আরসিসি ইউ ড্রেন, ক্রস ড্রেইন, সসার ড্রেইন, রোড মার্কিং, বাস-বে তৈরি, রোড ইন্টারসেকশন এবং ইউটিলিটি স্থানান্তরসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×