উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের অগ্রগতি মূল্যায়নে নতুন উদ্যোগ

দেশে আয়বৈষম্য কমাতে হবে-আবুল কালাম আজাদ

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উদ্যোগ

উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ দেশের বিভিন্ন খাতের উন্নয়ন অগ্রগতি মূল্যায়নের নতুন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নে এ উদ্যোগ বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

এজন্য তৈরি করা হয়েছে ‘এসডিজি ট্রেকার’। এক্ষেত্রে তথ্য-উপাত্ত পারিসংখ্যানিকভাবে দৃশ্যমান করতে এবং সে অনুযায়ী সীমিত সম্পদের দক্ষ বণ্টন করার জন্য এটুআই প্রস্তুত করেছে এসডিজি ট্রেকার।

এটি এটুআই, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এবং সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ (জিইডি) যৌথভাবে সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়কে সঙ্গে নিয়ে বাস্তবায়ন করছে। এর অংশ হিসেবে এটুআই এবং বিবিএসের যৌথ উদ্যোগে বুধবার বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো অডিটোরিয়ামে এসডিজি ট্রেকার বিষয়ক কনসালটেশন কর্মশালার আয়োজন করে।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) আবুল কালাম আজাদ। পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউএনডিপির আবাসিক প্রধান সুদীপ্ত মুখার্জ্জী, বিবিএসের মহাপরিচালক কৃষ্ণা গায়েন এবং এটুআই প্রকল্পের পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান।

ট্রেকার বিষয়ে বিস্তারিত উপস্থাপন করেন এটুআই প্রকল্পের হেড অব রেজাল্টস ম্যানেজমেন্ট ড. রমিজ উদ্দিন এবং বিবিএসের উপ-পরিচালক মো. আলমগীর হোসেন। কর্মশালায় জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্যোগ সফলভবে বাস্তবায়ন করা গেলে এসডিজির অনেক কিছুই অর্জন হবে। আমাদের দেশের আয় বৈষম্য কমাতে হবে। জাতিসংঘ ঘোষিত সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অগ্রদূত হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং বাংলাদেশের এই অর্জন সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে।

এমডিজির মতো এসডিজি অর্জনেও বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এজন্য সবাইকে সঙ্গে নিয়ে একত্রে এগিয়ে যেতে হবে। সামগ্রিক ও টেকসই উন্নয়নের জন্য সঠিক নীতি নির্ধারণ এবং সম্পদের সুষ্ঠু বণ্টন নিশ্চিত করতে তথ্যনির্ভর নীতি নির্ধারণে অনলাইন তথ্যভাণ্ডার নিশ্চিত করাই মূলত এই এসডিজি ট্রেকারের মূল উদ্দেশ্য। এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এবং এসডিজি ট্রেকার উন্নয়নের একেবারেই প্রাথমিক পর্যায় হতে এটুআই বিবিএসের সঙ্গে সমন্বিতভাবে কাজ করছে।

প্রধান অতিথি আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাংলাদেশ কিন্তু গতানুগতিক ও স্বাভাবিক ধারায় চলছে না, অসম্ভব গতিতে এগিয়ে চলছে। কাজেই আপনাদেরও সেভাবেই প্রস্তুত থাকতে হবে এবং এগিয়ে যেতে হবে। যাতে আগামী ৫ বছর পর বলতে না হয়, বিশেষ কোনো ক্ষেত্রে নজর দেয়া হয়নি। কোনো কাজ অর্ধেক করা যাবে না। পূর্ণাঙ্গরূপে সব কাজ করতে হবে। তিনি আরও বলেন, ৩০ ডিসেম্বর সরকার যে ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে, সেই নির্বাচনে যে দল জয়লাভ করেছে সেই দলের ইশতেহার বাস্তবায়নের কাজ করে যাওয়া আমাদের সবার দায়িত্ব।

তিনি বলেন, এসডিজির মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে কাউকে পিছিয়ে রেখে নয়। বাংলাদেশের এই লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে অন্যতম নিয়ামক হচ্ছে তথ্য-উপাত্তনির্ভর সিদ্ধান্ত গ্রহণ এবং প্রাধিকারভিত্তিক সম্পদের বরাদ্দ। একটি কার্যকর, তথ্যনির্ভর, বহুল ব্যবহৃত, সমন্বিত এসডিজি পরিবীক্ষণ কাঠামো টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে মূল ভূমিকা পালন করতে পারে।

সুদীপ্ত মুখার্জ্জী বলেন, ২০১৬ থেকে জাতিসংঘের উন্নয়ন সংস্থা হিসেবে ইউএনডিপি বাংলাদেশসহ আরও ১৭০টি দেশে এসডিজি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশে এসডিজি সম্পর্কিত সব কার্যক্রম সমন্বয় করে এবং পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ নির্মাণের মাধ্যমে এসডিজি ট্র্যাকার বাস্তবায়নে প্রযুক্তিগত সহায়তা নিশ্চিত করে। ইউএনডিপি এসডিজি ট্র্যাকার বাস্তবায়ন এটুআইকে প্রযুক্তিগত সহায়তা করে এবং এটুআই অন্য স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে ট্র্যাকার উন্নয়নে সমর্থন দেয় এটুআই। ইউএনডিপির সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

সভাপতির বক্তব্য সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এসডিজি ট্রেকার একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। বিবিএস এবং তথ্য ও পরিসংখ্যান বিভাগ এসডিজি ট্রেকারের মাধ্যমে উন্নয়ন পর্যবেক্ষণে এটুআইয়ের সঙ্গে কাজ করা যাবে।

ড. কৃষ্ণা গায়েন বলেন, বিবিএস প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন সভা কর্মশালার আয়োজনের মাধ্যমে এসডিজি বিষয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কার্যক্রম শুরু করেছে।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ট্রেকারটি আমাদের জন্য সম্পূর্ণ নতুন। আমরা বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারের কাছ থেকে এর বিভিন্ন বিষয়ে মতামত নিচ্ছি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×