এসডিজি বাস্তবায়নে নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি হওয়ার তাগিদ
jugantor
এসডিজি বাস্তবায়নে নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি হওয়ার তাগিদ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৮ জুলাই ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নের নারীর ক্ষমতায়নের বিকল্প নেই। তাই নারীদের ক্ষমতায়িত করতে হলে তাদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি হতে হবে। সেই সঙ্গে বর্তমান যেসব নারী উদ্যোক্তা দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছেন তাদের মধ্যেও পারস্পরিক সহযোগিতা স্থাপন প্রয়োজন। এ কাজে সহায়তা দিচ্ছে সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প। বুধবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত একটি বিশেষ সেশনে বক্তারা এসব কথা বলেন। এতে অংশ নিয়েছে ১৬টিরও বেশি বেসরকারি খাতের প্রতিযোগী এবং ১০ জন সুপ্রতিষ্ঠিত নারী উদ্যোক্তা। সেশনে প্রধান অতিথি ছিলেন সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্পের প্রধান সায়মন বাফলে। বক্তব্য রাখেন আইটিসির বাংলাদেশ কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর তানভীর আহমেদ এবং প্রকল্পের অ্যাসোসিয়েটস এক্সপার্ট মিশেল ক্রিস্টি।

সেশনে জানানো হয়, দেশের অর্থনীতিতে নারী উদ্যোক্তাদের অবদান বিশেষ জায়গা দখল করে আছে। এরই মধ্যে এই উদ্যোক্তারা একে অপরের মধ্যে একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। এই এগিয়ে চলা নারীদের আরও এগিয়ে নিতে নতুন একটি উদ্যোগ নিয়েছে ইউকে ডিপার্টমেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এবং ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার। বাংলাদেশসহ কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে তাদের সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প কাজ করছে দুই বছর ধরে। এই প্রকল্পের আওতায় ঢাকায় বিশেষ সেশনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আরও জানানো হয়, বাজারের সঙ্গে আরও কর্মক্ষেত্র তৈরি করা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে এই সেশনের আয়োজন করা হয়। সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্পটি ইতিমধ্যেই ৩৩৬ জন নারী উদ্যোক্তার সঙ্গে কাজ করেছে। এদের মধ্যে ৫৮ জন আইটি ব্যবসা এবং ২৭৮ জন কাপড়ের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।

সেশনে বিভিন্ন আলোচনায় বক্তারা জানান, ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার (আইটিসি ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশন ও ইউনাইটেড ন্যাশনের একটি যৌথ সংস্থা। আইটিসি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উন্নয়নের জন্য নেয়া উদ্যোগগুলোকে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে সহায়তা করে।

এসডিজি বাস্তবায়নে নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি হওয়ার তাগিদ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৮ জুলাই ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নের নারীর ক্ষমতায়নের বিকল্প নেই। তাই নারীদের ক্ষমতায়িত করতে হলে তাদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি হতে হবে। সেই সঙ্গে বর্তমান যেসব নারী উদ্যোক্তা দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছেন তাদের মধ্যেও পারস্পরিক সহযোগিতা স্থাপন প্রয়োজন। এ কাজে সহায়তা দিচ্ছে সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প। বুধবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত একটি বিশেষ সেশনে বক্তারা এসব কথা বলেন। এতে অংশ নিয়েছে ১৬টিরও বেশি বেসরকারি খাতের প্রতিযোগী এবং ১০ জন সুপ্রতিষ্ঠিত নারী উদ্যোক্তা। সেশনে প্রধান অতিথি ছিলেন সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্পের প্রধান সায়মন বাফলে। বক্তব্য রাখেন আইটিসির বাংলাদেশ কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর তানভীর আহমেদ এবং প্রকল্পের অ্যাসোসিয়েটস এক্সপার্ট মিশেল ক্রিস্টি।

সেশনে জানানো হয়, দেশের অর্থনীতিতে নারী উদ্যোক্তাদের অবদান বিশেষ জায়গা দখল করে আছে। এরই মধ্যে এই উদ্যোক্তারা একে অপরের মধ্যে একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। এই এগিয়ে চলা নারীদের আরও এগিয়ে নিতে নতুন একটি উদ্যোগ নিয়েছে ইউকে ডিপার্টমেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এবং ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার। বাংলাদেশসহ কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে তাদের সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্প কাজ করছে দুই বছর ধরে। এই প্রকল্পের আওতায় ঢাকায় বিশেষ সেশনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আরও জানানো হয়, বাজারের সঙ্গে আরও কর্মক্ষেত্র তৈরি করা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে এই সেশনের আয়োজন করা হয়। সি ট্রেড ইন কমনওয়েলথ প্রকল্পটি ইতিমধ্যেই ৩৩৬ জন নারী উদ্যোক্তার সঙ্গে কাজ করেছে। এদের মধ্যে ৫৮ জন আইটি ব্যবসা এবং ২৭৮ জন কাপড়ের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।

সেশনে বিভিন্ন আলোচনায় বক্তারা জানান, ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার (আইটিসি ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশন ও ইউনাইটেড ন্যাশনের একটি যৌথ সংস্থা। আইটিসি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উন্নয়নের জন্য নেয়া উদ্যোগগুলোকে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে সহায়তা করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন