জমে উঠেছে নতুন টাকার বাজার

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদ উপলক্ষে নতুন টাকার বাজার জমে উঠেছে। ঈদের আগে বেড়ে যায় নতুন টাকার চাহিদা। ঝকঝকে চকচকে বিভিন্ন অঙ্কের নোট কিনতে সাধারণ মানুষ রাজধানীর গুলিস্তানে ভিড় করছেন। কেন না, ছোটদের ঈদে নতুন টাকা পাওয়ার আনন্দ অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়। ছোটদের মুখে হাসি ফোটাতেই বড়রা কিনছেন দুই টাকা থেকে শুরু করে ১০০ টাকার টাকার বান্ডিল। টাকা ব্যবসায়ীরা নানা অঙ্কের নতুন নোটের পসরা সাজিয়ে বসেন। সারা দিন চলে বেচাকেনা।

ঈদের দিনের সালামি মানেই নতুন টাকা। চকচকে ১০০ বা ৫০০ টাকার একটি নোট পেলে কার না মুখে হাসি ফোটে। অন্তত নাকের কাছে নোটটি চলে আসবে, আহ্, কী সুন্দর গন্ধ। নতুন টাকা বলে কথা।

ঈদের দিন নামাজ শেষে ভিক্ষা দেবেন, তার জন্য চাই ১০, ৫ আর ২ টাকার নতুন নোট। ঈদ সালামি, কাজের মানুষের বকশিশ, জাকাত, ফিতরা দিতে লোকজন কিনছেন নতুন টাকার নোট।

রাজধানীর গুলিস্তানে ছোট ছোট টুলের ওপর বিভিন্ন মানের নতুন টাকার নোটের পসরা সাজিয়ে তারা ডাকছেন পথচারীদের। অনেকেই এ এলাকাকে

ফুটপাতের ব্যাংক নামে ডাকে। পথচারী ছাড়াও ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এখানে ছুটে আসেন অনেকেই নতুন টাকার আকর্ষণে।

গুলিস্তানে নতুন টাকা কিনতে এসেছেন সাইফুল ইসলাম। জানতে চাইলে তিনি বলেন, যখনই ক্রেতাদের আগমন বেশি হচ্ছে, তখনই নোটের বিনিময় মূল্য বাড়িয়ে দিচ্ছেন বিক্রেতারা। তিনি ১০ টাকার ১০০টি নোটের একটি বান্ডিল কিনেছেন ১ হাজার ১৭০ টাকা দিয়ে। তার অল্প কিছুক্ষণ আগে আরেক ক্রেতা ১০ টাকার ১০০টি নোটের একটি বান্ডিল কিনেছেন ১ হাজার ১৫০ টাকা দিয়ে।

এ বিষয়ে নতুন নোট বিক্রেতা আব্দুল হক বলেন, আমরা কোনো খরিদ্দারের কাছ থেকে দাম বেশি নিচ্ছি না। যে দরে কিনেছি, তার সঙ্গে ২০ থেকে ৩০ টাকা করে বেশি নেয়া হচ্ছে। আবার ১০০ টাকার নোটের বান্ডিলে বেশি নেয়া হয় সর্বোচ্চ ৩০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত।

তবে ক্রেতাদের অভিযোগ উল্টো। মরিয়ম জাহান নামে এক কর্মজীবী নারীর দাবি তার কাছ থেকে ৫০ টাকার নোটের ১০০টির একটি বান্ডিল ৫ হাজার ১৫০ টাকা নেয়া হয়েছে। ২০ টাকার নোটের ১০০টির একটি বান্ডিল ২ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে কিনেছেন বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে পুলিশ বক্সের পাশেও একই দামে বিক্রি হচ্ছে নতুন নোট। তবে মাঝে-মধ্যে পুলিশ এসে ধাওয়া দিয়ে উঠিয়ে দিলেও কিছুক্ষণ পর আবারও পসরা সাজিয়ে বসে যাচ্ছেন বিক্রেতারা।

চলছে বেচাকেনা।

বিক্রেতারা জানান, চাহিদার শীর্ষে থাকা ২ ও ৫ টাকার নোট বাংলাদেশ ব্যাংক না ছাড়ায় বিক্রি বন্ধ রয়েছে। তারা অভিযোগ করে বলেন, ঈদের আর মাত্র এক দিন বাকি থাকলেও এ বছর আশানুরূপ বিক্রি হয়নি নতুন টাকা। তবে বেচাবিক্রি যাই হোক প্রত্যেক দিনের যে খরচ তা করতেই হচ্ছে।

গুলিস্তান মোড় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গড়ে ১০ টাকার ১০০টি নোটের একটি বান্ডিল ১ হাজার ১০০ থেকে ১ হাজার ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ২০ টাকার নোটের ১০০টির একটি বান্ডিল ২ হাজার ১০০ থেকে ২ হাজার ১২০-১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ৫০ টাকার নোটের ১০০টির একটি বান্ডিল সর্বোচ্চ ৫ হাজার ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ১০০ টাকার নোটের ১০০টির একটি বান্ডিল বিক্রি হচ্ছে ১০ হাজার ১২০ থেকে ১০ হাজার ১৩০ টাকায়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×