সূচক ৫ হাজার পয়েন্টের নিচে: বিনিয়োগকারীদের মধ্যে চরম হতাশা ও ক্ষোভ

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মূল্যসূচক

টানা ষষ্ঠ দিন বুধবারও দেশের শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মূল্যসূচক পাঁচ হাজার পয়েন্টের নিচে নেমে এসেছে।

এ নিয়ে ছয় দিনের টানা পতনে ডিএসইর প্রধান সূচক ১৯১ পয়েন্ট কমেছে। ২২ জুলাইয়ের পর এটিই ডিএসইএক্স সূচকের সর্বনিু অবস্থান। ওইদিন প্রধান সূচক ৪ হাজার ৯৬৬ পয়েন্টে নেমেছিল।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, সূচকের ৫ হাজার পয়েন্টের সীমাকে শেয়ারবাজারে মনস্তাত্ত্বিক সীমা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এ কারণে সূচকটি কমে ৫ হাজারে নেমে আসায় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আবার চরম হতাশা ও ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

বিনিয়োগকারীরা বলছেন, কিছুদিন পর পর বাজারে অস্বাভাবিক উত্থানপতনের ঘটনা ঘটছে। স্বাভাবিক নিয়ম ও যৌক্তিক কারণে যে কোনো সময় যে কোনো শেয়ারের দামের উত্থানপতন হতেই পারে। কিন্তু বাছবিচার ছাড়া সব ধরনের শেয়ারের দাম কমে যাওয়া কখনও বাজারের স্বাভাবিক আচরণ হতে পারে না। সাধারণ চোখে বাজারের অস্বাভাবিক আচরণ চোখে পড়লেও নিয়ন্ত্রক সংস্থার পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ বিনিয়োগকারীদের।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২০ দশমিক ৬৮ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৯৮৬ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এর আগে ২৭ আগস্ট ঢাকার পুঁজিবাজারে সূচক ছিল ৫ হাজার ১৭৮ পয়েন্ট। সে হিসাবে ছয় দিনে প্রায় ২০০ পয়েন্ট কমেছে সূচক। বুধবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসপিআই ৮৭ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৫ হাজার ২১৪ দশমিক ৬৯ পয়েন্টে।

ডিএসইতে এদিন ৩৭৫ কোটি ৫১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ১৯ কোটি ৩১ লাখ টাকা কম। বুধবার ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নিয়েছে ৩৫১টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩২টির, কমেছে ১৬৬টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টি কোম্পানির শেয়ার দর। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক ৮ দশমিক ৩৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ১৫৮ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ ১০ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ৭৪৮ পয়েন্টে।

অন্যদিকে সিএসইতে ১৬ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এ লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৮ লাখ টাকা বেশি। এ বাজারে লেনদেন হয়েছে ২৫১টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯৮টির, কমেছে ১১৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির।

দরপতনে শীর্ষ ১০ : ডিএসইতে বুধবার দরপতনের তালিকায় শীর্ষস্থান ছিল ‘রিলায়েন্স ওয়ান’ দ্য ফার্স্ট স্কিম অব রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এই ফান্ডের ইউনিট দর আগের দিনের চেয়ে ৯ দশমিক ২৮ শতাংশ বা ৯০ পয়সা কমেছে। তালিকায় অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে- গ্রামীণ ওয়ান : স্কিম টু, সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড, আইএআইএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড-১, আইসিবি থার্ড এনআরবি মিউচ্যুয়াল ফান্ড-১, আইসবি সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ইউনাইটেড এয়ারওয়েস, মুন্নু সিরামিক, আইসিবি অগ্রণী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড ও প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

দর বৃদ্ধিতে শীর্ষ ১০ : ডিএসইতে এদিন দর বৃদ্ধিতে শীর্ষস্থানে ছিল সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা। এই দিন ওই কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ৯ দশমিক ৮২ শতাংশ বা ২ টাকা ৭০ পয়সা।

তথ্যানুযায়ী, শেয়ার সর্বশেষ ৩০ টাকা ২০ পয়সা দরে লেনদেন হয়েছে। এদিন কোম্পানিটি ১ হাজার ৩৩৯ বারে ৯ লাখ ৩৫ হাজার ১৩৫টি শেয়ার লেনদেন করে। যার বাজারমূল্য ২ কোটি ৭৬ লাখ ৮৪ হাজার টাকা।

তালিকায় অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে- এসইএমএল আইবিবিএল শরিয়া ফান্ড, ফনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, কে অ্যান্ড কিউ, ফরচুন সুজ, সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস, নাভানা সিএনজি, কপারটেক, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স ও আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×