সানেম ও বিশ্বব্যাংকের সম্মেলন: স্থানীয় সরকারের আর্থিক ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বৃদ্ধির তাগিদ

শিক্ষা-স্বাস্থ্যের মতো খাতগুলোতে স্থানীয় সরকারকে যুক্ত করা উচিত : ড. শামসুল আলম

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দক্ষতা

স্থানীয় সরকারের আর্থিক ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশে যাওয়ার লক্ষ্য পূরণ করতে হলে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা কার্যকর করতে হবে।

আর সে জন্যই আর্থিকভাবে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি আর্থিক ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বাড়াতে হবে। তাছাড়া শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতে জনঅংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে স্থানীয় সরকারকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

দক্ষিণ এশিয়া অর্থনৈতিক নেটওয়ার্ক কনফারেন্স-২০১৯ এর সমাপনী দিনে বক্তারা এসব কথা বলেন। রাজধানীর ব্রাক সেন্টারে আয়োজিত রোববার দু’দিনব্যাপী এ সম্মেলন সমাপ্ত হয়। এ সম্মেলনের আয়োজন করে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকনোমিক মডেলিং (সানেম), সাউথ এশিয়া ইকনোমিক পলিসি নেটওয়ার্ক এবং বিশ্বব্যাংক। সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে, ‘সাব ন্যাশন্যাশনাল ফাইন্যান্স অ্যান্ড লোকাল সার্ভিস ডেলিভারি বা স্থানীয় পর্যায়ে অর্থায়ন ও সেবা প্রদান’।

শেষ দিন অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ লোকাল গভর্মেন্ট পাবলিক ফাইন্যান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম অ্যাসেসমেন্ট’ শীর্ষক অধিবেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পলিসি রিসার্স ইন্সটিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর। সভাপতিত্ব করেন সানেমের চেয়ারম্যান ড. বজলুর রহমান। মূল প্রবন্ধে আহসান এইচ মনসুর বলেন, বাংলাদেশের মানুষের আয়ু বাড়ছে। গড় আয়ু বেড়ে ৭৩ বছর হয়েছে। মাতৃ মৃত্যু, শিশু মৃত্যুসহ অনেক সামাজিক সূচকে অগ্রগতি হয়েছে।

কিন্তু দেশের বৃহত্তর এলাকার বিশেষ করে হাওর অঞ্চলের মানুষের আয়ু এখনও অনেক কম। দেশে দারিদ্র্যের পকেটগুলোতে বিশেষ নজর দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর সেবা মানুষের হাতের কাছে পৌঁছানো একটি অন্যতম বিষয়। কিন্তু স্থানীয় সরকার কার্যকর নয়। রাজনৈতিক এবং ক্ষমতার এককেন্দ্রিকতায় স্থানীয় সরকার কার্যকর হতে পারছে না।

তাছাড়া সম্পদের সীমাবদ্ধতা স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য অন্যতম চ্যালেঞ্জ। এ কারণে এসব প্রতিষ্ঠান তাদের সক্ষমতা অনুযায়ী কাজ করতে পারছে না। সম্পদ আহরণ এবং বরাদ্দের ক্ষেত্রে সব সিদ্ধান্তই কেন্দ্রীভূত রয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতসহ সব কিছুই ঢাকাকেন্দ্রিক।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেও তার কোনো ক্ষমতা নেই। সব কিছুই নিয়ন্ত্রণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলো টাকার জন্য কেন্দ্রের দিকে তাকিয়ে থাকে। জনগণের অর্থের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করতে হলে স্থানীয় সরকারকে কার্যকর করতে হবে। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক ব্যবস্থাপনা দক্ষ করতে হবে। ইউনিয়ন পরিষদ সচিবরা আর্থিক ব্যবস্থাপনায় দক্ষ নয়। প্রয়োজনে একজন করে দক্ষ লোক নিয়োগ দেয়া দরকার। কর বৃদ্ধির উদ্যোগ নিতে হবে। এলজিইডির তদারকি বাড়াতে হবে। বিকেন্দ্রিকরণ ছাড়া কিছুই হবে না।

সম্মেলনে ‘দ্য রোল অব ফিসক্যাল ডিসেন্ট্রালাইজেশন ইন ইমপ্রুভিং এডুকেশন অ্যান্ড হেলথ’ শীর্ষক অপর এক অধিবেশনে অংশ নিয়ে সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম বলেন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে জনঅংশগ্রহণ বাড়াতে হলে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে সম্পৃক্ত করতে হবে। এতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা এবং তদারকি বাড়বে।

ওই অধিবেশনে ভারতের কর্ণাটকের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অব ম্যানেজমেন্টের মেঘা রাও। তিনি জানান, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে স্থানীয় সরকারকে যুক্ত করায় জবাবদিহিতা বেড়েছে। শ্রীলংকার ইন্সটিটিউট ফর পলিসি স্টাডিজের আশানি এ্যাবেয়া শিকারা জানান, শ্রীলংকার স্কুলগুলোকে সরকার টাকা দিলেও তা ঢালাওভাবে সমান বরাদ্দ দেয়া হয় না। এর জন্য ফর্মুলা রয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×