যে কোনো অঙ্কের টাকা জমা রেখেই হিসাব খোলা যাবে

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  হামিদ বিশ্বাস

বাণিজ্যিক ব্যাংকে যে কোনো অঙ্কের টাকা জমা রেখেই হিসাব খোলা যাবে। একই সঙ্গে হিসাব পরিচালনা করতে নির্দিষ্ট কোনো স্থিতি রাখতে হবে না। একজন গ্রাহক যে পরিমাণ টাকা জমা রাখবেন, এর ওপর তিনি ব্যাংকগুলোর প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী মুনাফা পাবেন। এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের ওপর হিসাব খোলার ক্ষেত্রে বা পরিচালনার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা জমা রাখার বিষয়টি চাপিয়ে দিতে পারবে না।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ‘ব্যাংকের হিসাব খোলার জন্য ব্যবহৃত ফরমগুলো সহজীকরণের’ জন্য গঠিত কমিটির বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উদ্ভাবনী কর্মসূচির আওতায় ব্যাংক হিসাব খোলার ফরম সহজীকরণের জন্য গঠিত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বর্তমানে ব্যাংকগুলো হিসাব খোলার ক্ষেত্রে তথ্য চাওয়ার নামে হয়রানি করে বলে অভিযোগ রয়েছে। একই হিসাবে নির্ধারিত অঙ্কের স্থিতি রাখতে গ্রাহকদের বাধ্য করে। ফলে গ্রাহকরা নির্ধারিত স্থিতি না রাখলে হিসাব স্থগিত করে দেয়। নতুন নিয়ম চালু হলে এ ধরনের প্রবণতা এড়ানো সম্ভব হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

জানতে চাইলে এবি ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তারিক আফজাল যুগান্তরকে বলেন, ব্যাংকে হিসাব খোলার পদ্ধতি সহজ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এটা একটি ভালো উদ্যোগ। কোনো কোনো ব্যাংকে হিসাব খুলতে ২৫ পৃষ্ঠা পূরণ করতে হয়। এতে গ্রাহক বিরক্ত বোধ করে। সেক্ষেত্রে এখন মাত্র দুই পৃষ্ঠা পূরণ করে হিসাব খোলা যাবে। এটা গ্রাহকবান্ধব সিদ্ধান্ত। তবে হিসাব খোলা ও পরিচালনায় একটি নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা রাখার বিষয়টি তুলে দেয়ার আগে আরও বিবেচনার দাবি রাখে। এমন একটি অঙ্ক নির্ধারণ করা দরকার যাতে ব্যাংক এবং গ্রাহক কেউ না ঠকে। বিশেষ করে কী পরিমাণ লেনদেন করলে চেক বই পাবে কিংবা কী পরিমাণ লেনদেন করলে এটিএম সেবা পাবে, এসব নির্ধারণ করে দেয়া উচিত।

সূত্র জানায়, সরকারি খাতের চারটি বাণিজ্যিক ব্যাংক ও বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক ছাড়া অন্য প্রায় সব ব্যাংকেই হিসাব খুলতে ও হিসাব পরিচালনা করতে নির্ধারিত অঙ্কের স্থিতি জমা রাখতে হয়। এর মধ্যে হিসাব খোলার জন্য সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা জমা দিতে হয়। আবার হিসাব পরিচালনা করতে ২ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা জমা রাখতে হয়। নতুন নিয়ম চালু হলে এই ধরনের নির্দিষ্ট কোনো টাকার অঙ্ক গ্রাহকের ওপর চাপিয়ে দেয়া যাবে না।

বর্তমানে আর্থিক অন্তর্ভুক্তিমূলক কর্মসূচির আওতায় বিশেষ করে কৃষক, শ্রমিক, ছাত্রছাত্রীরা ১০ টাকা দিয়েও ব্যাংক হিসাব খোলতে পারছে। একইভাবে যে কেউ ১০ টাকা নিয়েও ব্যাংক হিসাব খুলতে পারবে। তবে হিসাবে লেনদেন করতে হবে।

একই সঙ্গে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত বা বেতনভাতাবিষয়ক হিসাব খোলা ও পরিচালনায় সর্বনিম্ন চার্জ আদায় করতে হবে। ব্যাংকভেদে এ খাতে বিভিন্ন ধরনের চার্জ আদায় করা হয়। এর পরিমাণ ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা। এ হারও কমাতে হবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেবে।