ফাইভ-জি’র দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ

মোস্তাফা জব্বার

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফাইভ-জি’

চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইল নেটওয়ার্ক ফোর-জি চালুর পর এখন ফাইভ-জি’র দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ। পঞ্চম প্রজন্মের এই নেটওয়ার্ক চালু হলে দেশের মানুষের জীবনমান আরও পরিবর্তন হবে বলে মনে করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

রোববার রাজধানীর এক হোটেলে রবির উদ্ভাবনী ডিজিটাল উদ্যোক্তা প্লাটফর্ম ‘আর-ভেঞ্চারস’ কার্যক্রমের শুরু উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন রবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহতাব উদ্দীন আহমেদ, প্রধান মানবসম্পদ কর্মকর্তা মো. ফয়সাল ইমতিয়াজ খান, বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির, মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে রবির আর-ভেঞ্চারস প্রকল্পের উদ্যোক্তাদের পরামর্শ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উদ্যোক্তাদের মধ্যে কেউ অর্থের অভাবে ব্যর্থ হয় না। মেধার অভাবে ব্যর্থ হয়। আমি দেখেছি, প্রায় ৯৫ শতাংশ উদ্যোক্তা উপযুক্ত মেধা না থাকার কারণে ব্যবসা পরিকল্পনা তৈরি করতে পারেন না।

কীভাবে টাকা আয় হবে, তার পরিকল্পনা করতে পারেন না। তাই এ প্রজন্মকে এ বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করতে হবে। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, উদ্যোক্তা হতে চায় এমন কর্মীদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহায়তা করতে রবি তাদের নিজেদের কর্মীদের জন্য ২০১৬ সালে প্রাথমিকভাবে ‘আর-ভেঞ্চারস’ প্রকল্প হাতে নেয়।

এতে প্রাথমিকভাবে মৌলিক ২১২টি পরিকল্পনা জমা দেয় প্রতিষ্ঠানটির কর্মীরা। সেখান থেকে শীর্ষ ৬টি পরিকল্পনার সাত জন উদ্যোক্তাকে এক কোটি টাকা পর্যন্ত অর্থায়ন করবে রবি। আর এই উদ্যোক্তা কর্মীরা এখন থেকে এক বছর তাদের ব্যবসায়িক ধারণা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করবেন।

এ সময় উদ্যোক্তাদের মাসিক বেতনসহ সব ধরনের ভাতা প্রদান করবে রবি। অনুষ্ঠানে রবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহতাব উদ্দীন আহমেদ বলেন, চাকরি করলেও অনেকের মধ্যেই উদ্যোক্তা হওয়ার বা নিজে কিছু করার সুপ্ত স্বপ্ন থাকে।

কর্পোরেট সেক্টরে কাজ করে অনেকেই তাদের এসব স্বপ্ন শেষ পর্যন্ত পূরণ করতে পারে না। তাই আমরা আমাদের কর্মীদের জন্য এ সুযোগটিই তৈরি করে দিচ্ছি।

ঘটনাপ্রবাহ : ফাইভজি

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter