রেস্টুরেন্টের খাবার স্বাস্থ্যকর কিনা জানাবে গুগল

প্রকাশ : ১১ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  আইটি ডেস্ক

রেস্টুরেন্টে খেতে যাবেন, কিন্তু মনে ভয় কাজ করছে খাবারগুলো টাটকা হবে তো! মনে এই ভয় দূর করতে এবার ত্রাতারূপে হাজির হচ্ছে গুগল। কোনো রেস্টুরেন্টের খাবার খেলে ফুড পয়জনিং হওয়ার আশঙ্কা আছে তা আগেভাগেই জানিয়ে দেবে সার্চ জায়ান্টটি।

যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির সঙ্গে গুগল বিশেষ ধরনের মেশিন-লার্নিংভিত্তিক অ্যালগরিদম তৈরির চেষ্টা করছে। এর মাধ্যমে গুগলের অনুসন্ধান বিশ্লেষণ করে খাদ্য নিরাপত্তায় ঘাটতি থাকা রেস্টুরেন্টগুলোর তালিকা পাওয়া যাবে।

গবেষকরা বলছেন, এটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে সম্ভাব্য অনিরাপদ রেস্টুরেন্টের তথ্য দেবে। মডেলটির নাম দেয়া হয়েছে ফাইন্ডার অথবা রিয়েল টাইম ফুডবোন ইলনেস ডিটেক্টর। প্রথম অবস্থায় এটি নির্দিষ্ট বিষয়ে যেমন পেটের পীড়া অথবা ডায়রিয়ার মতো কনটেন্টগুলো খুঁজে দেখবে।

তবে এটি কবে নাগাদ চালু করা হবে সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেয়া হয়নি। মানুষ বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়ে তাদের নানা অভিজ্ঞতার কথা স্মার্টফোনের মাধ্যমে জানিয়ে থাকেন। স্মার্টফোনে থাকা সে সব অতীত ইতিহাস থেকে তথ্য সংগ্রহ করে তা বিশ্লেষণ করবে ফাইন্ডার। এর মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তায় ঘাটতি থাকা রেস্টুরেন্টগুলো সম্পর্কে জানা যাবে।

গবেষকরা সিস্টেমটি দিয়ে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে শিকাগো ও লাস ভেগাস শহরে পরীক্ষা চালান। তারা দেখতে পান প্রযুক্তিটির মাধ্যমে দুই সিটিতে অস্বাস্থ্যকর রেস্টুরেন্ট চিহ্নিত করার হার ৫২ দশমিক ৩ শতাংশ।

আর নিয়মিত অভিযানে অনিরাপদ রেস্টুরেন্ট শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৭ শতাংশ। এ বিষয়ে গুগলের সিনিয়র স্টাফ রিচার্স সায়েন্টিস্ট ও গবেষণার সহ-লেখক ইভজেনি গাব্রিলোভিচ বলেন, জনস্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য আমরা সময়মতো ও কম খরচের পদ্ধতি হিসেবে অনলাইন ডেটা ব্যবহার করতে পারি।

গবেষকরা মনে করেন, স্বাস্থ্য বিভাগ অনিরাপদ রেস্টুরেন্টগুলো চিহ্নিত করতে বিদ্যমান পদ্ধতির সঙ্গে ফাইন্ডার অ্যালগরিদম ব্যবহার করতে পারে। কারণ গ্রাহকের অভিযোগ ও বিদ্যমান অভিযান পদ্ধতির চেয়ে এটি বেশি কার্যকর।