ফিরে দেখা ২০১৮ : হারিয়ে গেল নানা জনপ্রিয় প্রযুক্তিসেবা

  সাইফ আহমদ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রযুক্তিসেবা

ডিজিটাল বিপ্লবের এই সময়ে প্রযুক্তি খাত প্রতিনিয়ত সমৃদ্ধ হচ্ছে নতুনত্বে। খুব দ্রুতই পরিবর্তন হতে থাকে এই খাতের যে কোনো সেবা ও পণ্য। প্রযুক্তি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোও নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় ব্যস্ত, কে কত নতুন সেবা নিয়ে আসতে পারে।

এ খাতে টিকে থাকতে হলে পণ্য বা সেবায় নতুনত্ব যোগ করতে হয় প্রতিনিয়ত, নয়তো হারিয়ে যেতে হয়। যেসব প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এ নতুনত্বে অভ্যস্ত নয় এমনকি সেবায় নতুনত্ব যোগ করতে ব্যর্থ হয়, সেগুলো প্রযুক্তিপ্রেমীদের মনও জয় করতে পারে না। ফলে বাজার থেকে হারিয়ে যায়। এ বছর বন্ধ হয়ে যাওয়া এমনই কিছু প্রযুক্তিপণ্য ও সেবার বিষয়ে বিস্তারিত আজকের আয়োজনে। লিখেছেন-

ইয়াহু মেসেঞ্জার

একসময়ের তুমুল জনপ্রিয় মেসেঞ্জার বক্স ইয়াহু মেসেঞ্জার প্রায় দুই দশক শেষে চলতি বছরের ১৭ জুলাই বন্ধ হয়ে যায়। অথচ সাধারণ মানুষের যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছিল এই ইয়াহু মেসেঞ্জার। জেরি ইয়াং ও ডেভিড ফিলো ১৯৯৮ সালে ইয়াহু পেজার বাজারে নিয়ে আসে। ১৯৯৯ সালে সেবাটির নাম পরিবর্তন করে ইয়াহু মেসেঞ্জার করে। বিনামূল্যে কথা বলার সুবিধা ছিল বলে সারা বিশ্বে ব্যাপক জনপ্রিয়ও হয়। কিন্তু ফেসবুক বা হোয়াটসআপ ও ভাইবারের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরে ধীরে ধীরে বাজার হারাতে থাকায় সেবাটি বন্ধ করে দেয় ইয়াহু।

গুগল প্লাস

নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে গুগলের সোশ্যাল নেটওয়ার্ক প্লাটফর্ম গুগল প্লাস বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়। সম্প্রতি ৫ লাখ ব্যবহারকারীর নাম, ইমেইল ঠিকানা, পেশা, লিঙ্গ ও বয়সের তথ্য উন্মুক্ত হয়ে পড়ে। এর জের ধরে গুগলের গুগল প্লাস আগামী বছরের এপ্রিলে সেবাটি বন্ধ হবে বলে জানা যায়।

মূলত ফেসবুককে টেক্কা দিতে গুগল প্লাস উন্মোচন করা হয় ২০১১ সালে। কিন্তু খুব কম সংখ্যক ব্যবহারকারীই গুগল প্লাস ব্যবহার করতেন।

স্টাম্বলআপন

ব্যবহারকারীদের পছন্দ ও আগ্রহের ভিত্তিতে ১৬ বছর আগে চালু হয় নতুন কনটেন্ট দেখার প্লাটফর্ম স্টাম্বলআপন। ১৬ বছর ধরে সেবা দিলেও সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুকের কারণে জনপ্রিয়তা হারাতে থাকে এটি। জনপ্রিয়তা হারিয়ে চলতি বছর এ ওয়েবসাইটটি বন্ধের ঘোষণা দেন স্টাম্বলআপনের প্রধান নিবার্হী।

সোশ্যাল মিডিয়া পাথ

২০১০ সালে যাত্রা শুরু করা ব্যক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ওয়েবসাইট পাথ। চলতি বছরের ১৮ অক্টোবর বন্ধ হয়ে যায়। শুরুতে এই প্লাটফর্মে সর্বোচ্চ ৫০ জন বন্ধু অ্যাড করা যেত। পরে ৫০০ বন্ধু রাখার সুযোগ করে দেয়। বন্ধুরা যেন পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে সেই লক্ষ্যে ডেভ মরিন পাথ তৈরি করেছিলেন। ভেনেজুয়েলা, কলোম্বিয়া, মেক্সিকো, ক্যারিবীয় অঞ্চল, পুয়ের্তো রিকো, ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র ও মধ্য যুক্তরাষ্ট্রের স্প্যানিশ ভাষাভাষী জনগোষ্ঠীর মধ্যে অ্যাপটি বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। তবে কেন সেবাটি বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে সে সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, ফেসবুক বা টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরেই বন্ধ করতে বাধ্য হয়।

গুগলের ইউআরএল শর্টেনার

ওয়েবসাইটের ঠিকানার আকার ছোট করে সহজে শেয়ার করার তুমুল জনপ্রিয় সেবা গুগল ইউআরএল শর্টেনার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। চলতি বছর ঘোষণা এলেও সেবাটি বন্ধ হবে আগামী বছরের ৩০ মার্চ।

গুগলের দাবি, ব্যবহারকারীরা আজকাল আর ওয়েবসাইটে নয়, কনটেন্ট দেখছেন আইওএস, অ্যান্ড্রয়েড অথবা ওয়েব অ্যাপের মাধ্যমে। ওয়েবসাইটগুলো আর আগের মতো পেজে বিভক্ত নয়, বরং প্রতিটি সাইটই ব্রাউজারে চলা একেকটি অ্যাপের মতো। সেবাটি ব্যবহারে গ্রাহকের খুব বেশি উপকার হবে না বলে জানিয়েছে গুগল। এরই জের ধরে সেবাটি বন্ধ করা হচ্ছে।

গুগল অ্যালো

বন্ধ হওয়ার তালিকায় রয়েছে গুগলের আরেকটি মেসেজিং অ্যাপ গুগল ‘অ্যালো’। আগামী মার্চ পর্যন্ত ব্যবহারকারীরা অ্যালোতে থাকা চ্যাট হিস্ট্রি সংরক্ষণে রাখার সময় পাবেন। এরপরই অ্যাপটির কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে।

২০১৬ সালে অ্যাপটি উন্মোচন করা হয়েছিল। অন্য মেসেজিং অ্যাপগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার করা হয়েছিল গুগল অ্যালোতে। কিন্তু প্রথম দিকে কিছুটা জনপ্রিয় হয়ে উঠলেও সময়ের ব্যবধানে এটি আড়ালে পড়ে যায়। সেই সঙ্গে জনপ্রিয়তাও হারাতে থাকে।

ক্লাউড

ক্লাউড একটি সোশ্যাল মিডিয়া টুলস। এটি ২০০৮ সালে চালু হয়েছিল। ওয়েব ও মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে এটি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের পরিসংখ্যান দেখাতে পারত। কিন্তু জনপ্রিয়তা হারানোর কারণে চলতি বছর ২৫ মে সেবাটি বন্ধ করে দেয়া হয়।

গুগল ইনবক্স

আরও সহজে ফোনের মেইল আদান প্রদানের জন্য ৪ বছর আগে ইনবক্স নামের একটি অ্যাপ বাজারে এনেছিল গুগল। আধুনিক ই-মেইল সেবা প্রদান করাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য। চলতি বছর আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাপটি বন্ধের ঘোষণা দেয় গুগল। আগামী ২০১৯ সালের মার্চে অ্যাপটি বন্ধ হয়ে যাবে। ইনবক্স অ্যাপে মেসেজ থ্রেডিং, প্রয়োজনীয় মেইল আলাদা করা, মেইলের উত্তর দেয়া বা সোয়াইপ জেসচারের মাধ্যমে ট্র্যাশ করা, একাধিক ই-মেইল এক ইনবক্সে দেখার মতো ফিচারগুলো এতে দেয়া হয়েছিল। পরে ধীরে ধীরে সেগুলো জিমেইল অ্যাপে যুক্ত করা হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×