ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ

  সাইফ আহমাদ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ইতিমধ্যে ফাইভজি টেস্ট করেছে সুতরাং বাংলাদেশ ফাইভজির জন্য প্রস্তুত। বাংলাদেশ ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রযাত্রায় তরুণদের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ১৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর একটি হোটেলে হুয়াওয়ে ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার-২০১৯’ প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার আরও বলেন, মেধাবী তরুণরাই বাংলাদেশের হাতিয়ার। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার তারাই কারিগর। বাংলাদেশ এখন মেধাবীদের বিস্তৃত জায়গা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, মেধা শুধু নির্দিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে নয় বরং সারা দেশেই রয়েছে।

আমাদের ছেলেরাই এখন বাংলাদেশে বিশ্বের সেরা মোবাইল সেট গুণগত মানসম্পন্নভাবে উৎপাদনের কারিগর হিসেবে বিস্ময় সৃষ্টি করছে।’ এমনকি সজীব ওয়াজেদ স্যাটেলাইট গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিয়ন্ত্রণের সক্ষমতাও অর্জন করেছে। আমাদের দায়িত্ব এ মেধাবী তরুণদের সঠিক পথনির্দেশনা দেয়া।

হুয়াওয়েকে ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিগত বছরগুলোয় হুয়াওয়ে তাদের সিডস ফর দ্য ফিউচার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তরুণদের মাঝে জ্ঞানের ক্ষুধা তৈরির এ কাজটি করে আসছে। এটা তরুণদের ভবিষ্যতে আরও নতুন সব উদ্ভাবনে উদ্বুদ্ধ করবে। বাংলাদেশে আইসিটি প্রতিভা তৈরি এবং তথ্য-প্রযুক্তিবিষয়ক শিক্ষার প্রসারে হুয়াওয়ে বাংলাদেশের পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মোট ১০ শিক্ষার্থীকে বাছাই করবে। আগামী দুই মাস এ বাছাই প্রক্রিয়া চলবে। পরবর্তী সময়ে এ মেধাবী শিক্ষার্থীরা চীনে অবস্থিত হুয়াওয়ের হেডকোয়ার্টারে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে অভিজ্ঞতা ও প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবে।

হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ঝাং জেংজুন বলেন, ‘বাংলাদেশে রয়েছে এক ঝাঁক স্বপ্নবাজ তরুণ প্রজন্ম। হুয়াওয়ে বিশ্বাস করে, এ তরুণরাই ডিজিটাল উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি। তারা যেন ভবিষ্যতে একটি সুন্দর ও উন্নত সমাজ গড়ে তুলতে পারে, তাদের মনে সেই বীজ বপন করাই সিডস ফর দ্য ফিউচার-এর উদ্দেশ্য।’ উল্লেখ্য বাংলাদেশে ২০১৪ সাল থেকে সিডস ফর দ্য ফিউচার প্রতিযোগিতা শুরু হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×