সব ডিজিটাল সেবা এক ঠিকানায়

  সাইফ আহমাদ ০৯ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সব ডিজিটাল সেবা এক ঠিকানায়
কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার

২০২১ সালের মধ্যে একটি পরিপূর্ণ ডিজিটাল সরকার বাস্তবায়নে ২ হাজারের বেশি ডিজিটাল সেবা একটি প্লাটফর্মে নিয়ে এসে নাগরিকের হাতের মুঠোয় সেবা পৌঁছে দিতে ‘একসেবা-সরকার’ কাঠামো তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

৭ মার্চ আইসিটি টাওয়ারে এটুআই সম্মেলন কক্ষে সরকারি দফতরগুলোর প্রতিনিধি ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের নিয়ে এক ঠিকানায় সব ডিজিটাল সেবা ‘একসেবা-সরকার’ কাঠামোবিষয়ক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে ২,০০০+ ডিজিটাল সেবা তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে, যার মাধ্যমে আমরা ‘বিগ ব্যাঙ ডিজিটাল ট্রান্সফর্মেশন’-এর দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। পরিষেবায় পরিবর্তন আনতে সেবা প্রদান ও ব্যবহারের গতানুগতিক পদ্ধতিগুলোকে একটু ভিন্নভাবে চিন্তা করা প্রয়োজন।

মন্ত্রী বলেন, জাতীয় স্বার্থে এটুআই, ইন্ডাস্ট্রি ও সরকারের একতাবদ্ধ হয়ে কাজ করার কৌশলকে সাধুবাদ জানাই। আশা করি এটুআইয়ের নেয়া এ উদ্যোগ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যকে বেগবান করবে। একইসঙ্গে সরকার ও নাগরিক উভয়ের জন্য সেবা গ্রহণ এবং ব্যবহার সহজতর করবে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের দেশীয় প্রযুক্তি পণ্যকে উৎসাহিত করতে চাই এবং সেজন্য দেশীয় ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। ‘একসেবা-সরকার’ প্রণীত নীতিমালা ও ধারণাগুলো একটি টেকসই দেশীয় সফটওয়্যার উন্নয়ন ব্যবস্থা এবং সমৃদ্ধ ব্যবসায়িক ক্ষেত্র তৈরি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

এটি ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে সফটওয়্যার তৈরির ক্ষেত্রে বারবার সিস্টেম গবেষণা ও তৈরির সময় বাঁচাবে এবং সময়মতো গুণগত সফটওয়্যার তৈরি করতে সহায়তা করবে, যা ‘কাস্টমার সন্তুষ্টি’ বৃদ্ধি করবে এবং নতুন নতুন ব্যবসায়িক ক্ষেত্র তৈরি করবে।

ইন্ডাস্ট্রি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে এন্টারপ্রাইজ আর্কিটেকচার ও এন্টারপ্রাইজ টেকনোলজি বিষয়গুলোতে গবেষণামূলক কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং একসেবা-সরকার প্লাটফর্মের মাধ্যমে সরকার পেপারলেস সরকারি অফিস গড়তে সক্ষম হবে বলে জানান।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এনএম জিয়াউল আলম; মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (সংস্কার অনুবিভাগ) সোলতান আহ্?মদ এবং সভাপতিত্ব করেন এটুআইয়ের পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী।

এছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। অনুষ্ঠানে এটুআইয়ের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আরফে এলাহী ‘একসেবা-সরকার’ কাঠামো সম্পর্কে বিভিন্ন দিক বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করেন।

তিনি বলেন, ‘কানেক্টেড গভর্নমেন্ট’-এর ধারণা মাথায় নিয়েই ‘একসেবা-সরকার’ তৈরি করা হয়েছে যেটা সরকার ও নাগরিককে ডিজিটাল সিস্টেম ব্যবহার করতে এবং সেবা পেতে সহায়তা করবে। এ উদ্ভাবনী প্লাটফর্ম ডিজিটাল সলিউশন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানকে মানসম্মত ও টেকসই সলিউশন তৈরিতে সহায়তার পাশাপাশি সরকারের ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশনকে ত্বরান্বিত করবে।

অসংখ্য ডিজিটাল সেবার ব্যবস্থাপনা ও ব্যবহার সহজতর করার জন্য এ একক কাঠামো তৈরি হচ্ছে। যেখানে একজন কর্মকর্তা একটি ঠিকানা থেকে তার জন্য প্রযোজ্য সেবায় প্রবেশ করতে পারবেন ও সেবা দিতে পারবেন। কর্মশালায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির, বিভিন্ন সরকারি দফতরের প্রতিনিধি, প্রযুক্তিনির্ভর ইন্ডাস্ট্রির প্রতিনিধি ও গণমাধ্যম কর্মীরা।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×