গ্রাহক নিরাপত্তা সুরক্ষার প্রশ্নে ফের কাঠগড়ায় ফেসবুক

  আইটি ডেস্ক ২৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গ্রাহক নিরাপত্তা সুরক্ষার প্রশ্নে ফের কাঠগড়ায় ফেসবুক

কোটি কোটি ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড ফাঁস করে নতুন বিতর্কে পড়েছে বিশ্বের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। ঘটনার কথা স্বীকার করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে ফেসবুক। এমনকি প্রত্যেক গ্রাহককে তা জানানো হবে বলে দাবি করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

প্রায় ৬০ কোটি ফেসবুক গ্রাহকের পাসওয়ার্ড সোশ্যাল মিডিয়াটির কর্মীদের কাছে উন্মুক্ত ছিল বলে সম্প্রতি খবর প্রকাশ হয়েছে।

ইন্টারনেট নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ব্রায়ান ক্রেবস ফেসবুকের তথ্য সুরক্ষার ব্যর্থতার এ খবর দিয়েছেন বলে বিবিসি জানিয়েছে। ক্রেবস বলছেন, ৬০ কোটির মতো ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ সার্ভারে এমনভাবে ছিল, চাইলেই সেগুলো তাদের ২০ হাজারের মতো কর্মীর যে কেউ দেখতে পারতেন। ফেসবুকের প্রতিটি পাসওয়ার্ডই এনক্রিপটেড বা সাংকেতিকভাবে থাকার কথা, যাতে তা কোনোভাবেই কেউ দেখতে না পারেন। কিন্তু ফেসবুকের ইন্টারনাল সার্ভারে এসব পাসওয়ার্ড সাধারণ টেক্সট হিসেবে রাখা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন ক্রেবস।

তিনি বলেছেন, ফেসবুকের এক কর্মীই তথ্য সুরক্ষার এ ব্যর্থতা সম্পর্কে তাকে জানিয়েছেন। তার ভাষ্য মতে, ফেসবুকের কর্মীরা এমন অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছেন যেগুলো দিয়ে এনক্রিপটেড পাসওয়ার্ড ইন্টারনাল সার্ভারে সাধারণ টেক্সট হিসেবে জমা রাখা যায়। তথ্য সুরক্ষায় ব্যর্থতার এ কথা স্বীকার করে এক বিবৃতিতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলেছে, অভ্যন্তরীণ সার্ভারে পাসওয়ার্ড সংরক্ষণের ‘সামান্য ত্রুটি’ দেখা দিয়েছিল এবং সেটি তারা ঠিক করে ফেলেছেন।

ফেসবুক বলছে, নিয়মিত নিরাপত্তা পর্যালোচনায় গত জানুয়ারিতে এ সমস্যাটি তাদের নজরে আসে। পরে তদন্তে দেখা যায়, এতে ক্ষতিগ্রস্তদের অধিকাংশই ফেসবুক লাইট ব্যবহারকারী।

সাধারণত ধীরগতির ইন্টারনেটের দেশগুলোয়ই ফেসবুক লাইট ব্যবহারের প্রবণতা বেশি। ফেসবুকের ভাষ্যমতে, কয়েক কোটি ফেসবুক লাইট ব্যবহারকারী, লাখ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারী এবং হাজার হাজার ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড এভাবে উন্মুক্ত হয়ে পড়েছিল।

তারা বলছে, এসব গ্রাহককে বিষয়টি জানানো হবে। তবে পাসওয়ার্ড অন্য কেউ দেখে ফেলেছে এমন কোনো প্রমাণ পেলে তবেই ব্যবহারকারীকে তা বদল করতে বলা হবে। ফেসবুকের প্রকৌশলী স্কট রেনফ্রো দাবি করেছেন, তাদের তদন্তে এসব পাসওয়ার্ড অপব্যবহারের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। গ্রাহক তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় ব্যর্থতার জন্য এর আগেও কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারে ১০ কোটির বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্যের অপব্যবহারের ঘটনা ফাঁস হয় গত বছর। ওই খবর প্রকাশের পর যুক্তরাজ্যের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার কার্যালয় বন্ধ হয়ে যায়। ব্যাপক চাপের মুখে পড়েন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জুকারবার্গ। বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে শুনানির মুখোমুখি হতে হয় তাকে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×