তথ্যপ্রযুক্তি রফতানিতে ভর্তুকি পেতে প্রত্যয়ন সনদ বাধ্যতামূলক

  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থাপক হারুন-অর-রশিদ স্বাক্ষরিত তথ্যপ্রযুক্তিতে রফতানি ভর্তুকির সার্কুলারে বলা হয়েছে, ভর্তুকির আবেদনপত্রের সঙ্গে সংগঠনগুলোর প্রত্যয়ন সনদ দাখিল করতে হবে। ‘সফটওয়্যার রফতানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফর্মেশন সার্ভিসেস (বেসিস), হার্ডওয়্যার রফতানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) এবং আইটিইএস রফতানির ক্ষেত্রে বেসিস অথবা বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বিএসিসিও) এ প্রত্যয়ন সনদ দেবে’। সার্কুলারে সনদের নমুনা ফরমও সংযুক্ত করে দেয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে সনদ প্রদানে অনিয়মের বিষয়টিও মাথায় রেখেছে সরকার। তাই শাস্তির বিধানও রাখা হয়েছে। ‘এসব বিষয়ে সংঘটিত অনিয়মের সঙ্গে রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের কোনো কর্মকর্তা যুক্ত থাকলে অথবা মিথ্যা তথ্য দিয়ে অনিয়মে সহযোগিতা করলে রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশন বা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া যাবে।’ উল্লেখ রয়েছে সার্কুলারে। তথ্যপ্রযুক্তি রফতানিতে ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা বা ভর্তুকি দেয়ার সিদ্ধান্ত ও প্রজ্ঞাপন দেয়া হয়েছিল ২০১৭ সালেই। আগস্টে দেয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই প্রজ্ঞাপনে বাংলাদেশ থেকে সফটওয়্যার, আইটিইএস (ইনফর্মেশন টেকনোলজি এনাবল সার্ভিসেস) এবং হার্ডওয়্যার রফতানির বিপরীতে নগদ সহায়তা মিলবে এবং কী হারে মিলবে তা বলা হয়েছিল। এর আওতায় খাতের বিবরণ ও নীতি জানানো হয়নি। বৃহস্পতিবার ব্যাংকটির বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের এ সার্কুলারে সফটওয়্যার, আইটিইএস ও হার্ডওয়্যারের আওতাভুক্ত পণ্য বা সেবার তালিকাসহ এর নীতি ও ভর্তুকির পাওয়ার বিস্তারিত জানানো হয়েছে। দেশে নিজস্ব কারখানায় বা প্রতিষ্ঠানে তৈরি সফটওয়্যার, আইটিইএস ও হার্ডওয়্যার রফতানির বিপরীতে নিট এফওবি মূল্যের ওপর ১০ শতাংশ হারে উৎপাদনকারী বা প্রস্তুতকারক-রফতানিকারকের ভর্তুকি প্রাপ্য হবে। তবে বিশেষায়িত অঞ্চল যেমন ইপিজেড, ইজেড, এইচটিপি এ অবস্থিত প্রতিষ্ঠান থেকে রফতানির ক্ষেত্রে আলোচ্য সুবিধা প্রযোজ্য হবে না। এবারের প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ নগদ সহায়তার সিদ্ধান্ত অবশেষে কার্যকর করা হল। সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরে ডেভেলপ করা সব সফটওয়্যার এই নগদ সহায়তা পাবে। ইনফর্মেশন টেকনোলজি এনাবেল সার্ভিসেসের (আইটিইএস) তালিকায় জায়গা পেয়েছে ডিজিটাল কনটেন্ট ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, অ্যানিমেশন টুডি ও থ্রিডি, গ্রাফিক ইনফর্মেশন সার্ভিসেস (জিআইএস), আইটি সাপোর্ট অ্যান্ড সফটওয়্যার মেনটেইন্যান্স সার্ভিসেস, ওয়েবসাইট সার্ভিসেস, বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সি, ডাটা এন্ট্রি, ডাটা প্রসেসিং, কল সেন্টার, গ্রাফিক্স ডিজাইন (ডিজিটাল সার্ভিস), সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও), ওয়েব লিস্টিং, ই-কমার্স অ্যান্ড অনলাইন শপিং, ডকুমেন্ট কনভারসেশন, ইমেজিং অ্যান্ড আর্কাইভিং, সফটওয়্যার অথবা অ্যাপ্লিকেশন কাস্টমাইজেশন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ওয়েবসাইট হোস্টিং, ডিজিটাল ডাটা। হার্ডওয়্যারের ক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরে উন্নয়ন করা কিংবা সংযোজন করা বা একত্রীকৃত সব রকম ডিজিটাল যন্ত্র, যন্ত্রাংশ ও আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি এ সহায়তা পাবে। উদাহরণ হিসেবে সার্কুলারে বলা হয়েছে, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, স্মার্টফোন, ট্যাবলেট কম্পিউটার, আইওটি ডিভাইস, আইওটি বা ইন্টারনেট এনাবলড ডিভাইস, ডিজিটাল ডিসপ্লে ডিভাইস, সেমি কন্ডাক্টর এবং এ সংশ্লিষ্ট সব যন্ত্র-যন্ত্রাংশ-আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি। সার্কুলারে বলা হয়, সফটওয়্যার ও আইটিইএস রফতানির ক্ষেত্রে ন্যূনতম ৩০ শতাংশ ও হার্ডওয়্যার রফতানির ক্ষেত্রে ন্যূনতম ২০ শতাংশ স্থানীয় মূল্য সংযোজনের শর্ত প্রযোজ্য হবে। আলোচ্য খাতে রফতানি ভর্তুকি ও ডিউটি ড্র-ব্যাক বা শুল্ক বন্ড সুবিধা একসঙ্গে প্রযোজ্য হবে না। এতে বলা হয়েছে, ইতিমধ্যে রফতানি হওয়া পণ্যের বিপরীতে নগদ সহায়তা পেতে আগামী ৬০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে।

-সাইফ-উল-আহমাদ

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×