সামাজিক মাধ্যমের বিরুদ্ধে ধর্মঘট

  ফয়সাল আহমাদ ০৪ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উইকিমিডিয়ার সহপ্রতিষ্ঠাতা ল্যারি স্যাঙ্গার
উইকিমিডিয়ার সহপ্রতিষ্ঠাতা ল্যারি স্যাঙ্গার

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিরুদ্ধে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন উইকিমিডিয়ার সহপ্রতিষ্ঠাতা ল্যারি স্যাঙ্গার। ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে উল্লেখ করে টানা ৪৮ ঘণ্টা মাধ্যমগুলো ব্যবহার বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালনের ডাক দিয়েছেন তিনি।

মূলত সামাজিক মাধ্যমের ওপর এক ধরনের চাপ সৃষ্টি করতেই এমন ধর্মঘট ডেকেছেন বলে জানান উইকিমিডিয়ার এ প্রতিষ্ঠাতা।

এক ব্লগ পোস্টে স্যাঙ্গার বলেন, সামাজিক মাধ্যমগুলো বয়কট করে আমরা বড় ধরনের একটা হট্টগোল করতে যাচ্ছি। এটি নির্দিষ্ট কোথাও জড়ো হয়ে নয়।

আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টা দিয়ে ব্যবহারকারীদের সঙ্গে যেসব প্রতারণা করা হচ্ছে তার জবাব দিতে হবে। আমরা আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য, প্রাইভেসি সুরক্ষা চাই। ৪ থেকে ৫ জুলাই ৪৮ ঘণ্টা সামাজিক মাধ্যম বয়কটের মাধ্যমে ধর্মঘট দেখাতে হবে। এতে করে তাদের ওপর ‘প্রচণ্ড চাপ’ তৈরি করতে হবে।

এই দুই দিন যারা সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার বাদ রাখবেন তারা প্রতিষ্ঠানগুলোকে এটি দেখাবেন যে, সেবাগুলোর বিরুদ্ধে তাদের ‘গুরুতর অভিযোগ’ রয়েছে। ব্যবহারকারীর ডেটা নিয়ে সামাজিক মাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসা করছে বলেও মনে করেন তিনি। তাই এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।

স্যাঙ্গারের এই ধর্মঘটের ডাক ইন্টারনেটে জনপ্রিয়তা পেলেও কিছু গ্রাহক এটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। এমন এক গ্রাহক বলেন, ‘আমি মনে করি যারা বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন তারা সবাই যদি এতে অংশও নেয়, দৈনিক ভিজিটরের জন্য পার্থক্যটা হবে খুব সামান্য।’

প্রশ্নের মুখেও যারা অংশ নেবে এমন ধর্মঘটে তারা মাধ্যমগুলোর ব্যবহারকারী হিসেবে যে সন্তুষ্ট নয় এবং তাদের একচ্ছত্র, স্বেচ্ছাচারী যে মেনে নিতে প্রস্তুত নন সেটা প্রমাণ করবেন।

স্যাঙ্গারের ধারণা, এই ধর্মঘটের কারণে বড় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে পরিবর্তন আসবে, যা গ্রাহককে তার ডেটার ওপর আরও নিয়ন্ত্রণ দেবে। “শুরু থেকেই সামাজিক মাধ্যমগুলো এভাবে বানানো উচিত ছিল, অন্যান্য নেটওয়ার্কের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আলাদাভাবে তৈরি না করে,” বলেন স্যানঙ্গার।

উইকিপিডিয়া সহ-প্রতিষ্ঠাতার খসড়া ‘ডিক্লারেশন অব ডিজিটাল ইন্ডিপেন্ডেন্স’ নথিতে স্বাক্ষরও করতে বলা হয়েছে। এই নথিতে সামাজিক মাধ্যমগুলোকে কেন্দ্রীভূত করে একটি ব্যবস্থার আওতায় আনার কথা বলা হয়েছে যাতে এক প্ল্যাটফর্মে দেয়া বক্তব্য অন্য প্ল্যাটফর্ম থেকেও দেখা যায়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×