স্মার্টফোন অতিরিক্ত ব্যবহারে ঝুঁকি : হৃদরোগের আশঙ্কা

প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  সাইফ আহমাদ

তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে মানুষের জীবন দিন দিন সহজ হচ্ছে। দৈনন্দিন সব কাজকর্মে প্রযুক্তিনির্ভরতা বেড়েই চলেছে। বর্তমান সময়ে প্রযুক্তির অন্যতম আশীর্বাদ বলা যায় স্মার্টফোনকে।

দিনে দিনে মানুষের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে স্মার্টফোন, ধারণা করা হয় যার একটি স্মার্টফোন রয়েছে সমগ্র বিশ্বই যেন তার হাতের মুঠোয়। বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যোগাযোগ করা, খবর পড়া, কেনাকাটা করাসহ কী নেই স্মার্টফোনে!

এক গবেষণা প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, প্রযুক্তির অন্যতম আশীর্বাদ স্মার্টফোনে আসক্তির কারণে শারীরিক কার্যকলাপ কমে যাচ্ছে। অতিরিক্ত স্মার্টফোন ব্যবহার হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। দিনে ৫ ঘণ্টা বা এর বেশি সময় স্মার্টফোন ব্যবহার করেন, তাদের মধ্যে মোটা হয়ে যাওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।

সিমন বলিভার বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ হাজার ৬০ জন ছাত্রছাত্রীর ওপর ২০১৮ সালের জুন থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত গবেষণা চালিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেন গবেষকরা। গবেষণাটিতে ৭০০ নারী ও ৩৬০ জন পুরুষ অংশ নেয়।

মেয়েদের গড় বয়স ছিল ১৯ ও ছেলেদের ২০ বছর। এর মধ্যে ৩৬ দশমিক ১ শতাংশ ছেলের ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা গেছে এবং ৪২ দশমিক ৬ শতাংশ ছেলের মধ্যে অতিরিক্ত মোটা হওয়ার সম্ভাবনা দেখা গেছে।

অন্যদিকে মেয়েদের মধ্যে ৬৩ দশমিক ৯ শতাংশের ওজন বেড়ে যাওয়া এবং ৫৭ দশমিক ৪ শতাংশের অতিরিক্ত মোটা হওয়ার আশঙ্কা দেখা গেছে।

গবেষণাটিতে অংশ নেয়া সিমন বলিভার বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব ছাত্রছাত্রী দিনে ৫ ঘণ্টা বা তার বেশি সময় স্মার্টফোন ব্যবহার করেন, তাদের মধ্যে সামগ্রিকভাবে ৪৩ শতাংশের মোটা হয়ে যাওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। অতিরিক্ত স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে হৃদরোগের ঝুঁকিও ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

প্রধান গবেষক কলম্বিয়ার ‘সাইমন বলিভার ইউনিভার্সিটি’র মিরারি মানটিলা-মোরোন বলেন, ‘বিভিন্ন উপযোগিতা, সহজে বহনযোগ্য, অধিক সেবা, তথ্য ও বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে আকর্ষণীয় করলেও জনসাধারণকে মোবাইল প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে সঠিক ও স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন পদ্ধতি অনুসরণের বিষয়ে সতর্ক হতে হবে।’

তিনি বলেন, স্মার্টফোনের মতো মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার আমাদের অনেক কাজ সহজ করে তুলেছে। কিন্তু স্মার্টফোনে অতিরিক্ত সময় ব্যয় করলে শারীরিক কার্যকলাপের সময় কমে যায়। এর ফলে অল্প বয়সে মৃত্যু ঘটতে পারে। এছাড়া ডায়াবেটিস ও হৃদরোগের সম্ভাবনা ক্রমান্বয়ে বাড়ে। টানা স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার দেখা দিতে পারে।

বিশ্লেষকদের ভাষ্য মতে, রাস্তায় নামলেই দেখা যায় কিছু মানুষ ‘মাথা নামিয়ে, স্মার্টফোনের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে হাঁটছে’। এমন হাঁটাকে ‘স্মার্টফোন ওয়াক’ বলা হচ্ছে, যা রীতিমতো বিরক্তিকর। এর ফলে যে কোনো সময় যে কেউ বড় ধরনের দুর্ঘটনায় পড়তে পারেন। স্মার্টফোনের ব্যবহার মানুষের হাঁটাচলাতেও বড় ধরনের পরিবর্তন এনেছে। এছাড়া দীর্ঘসময় ধরে স্মার্টফোন ব্যবহারের কারণে অসংখ্য মানুষ আঙুলের ব্যথায় ভোগেন।