প্রযুক্তি প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের সংবর্ধনা দিল চীনা দূতাবাস
jugantor
প্রযুক্তি প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের সংবর্ধনা দিল চীনা দূতাবাস

  আইটি ডেস্ক  

০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চলতি বছরে তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন খাতে সরকারি এবং বেসরকারি খাতের দক্ষ জনবল তৈরিতে প্রশিক্ষণ দিয়েছে চীন। তাদের নিয়ে এক সংবর্ধনার আয়োজন করে দেশে অবস্থিত চীনা দূতাবাস। চীন এইডের সহায়তায় চলতি বছরে ১৬টি প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে প্রশিক্ষণ নেয়া প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে প্রায় ১৭০ জনকে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমপিং। কি-নোট স্পিচ দেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন অর্থনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়ন বিভাগের যুগ্ম সচিব ড. একেএম মতিউর রহমান, একই বিভাগের উপপ্রধান মাসুমা আকতারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানে লি জিমপিং বলেন, বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে নিবিড় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিদ্যমান। এখানকার মানবসম্পদের প্রশিক্ষণের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে চীন। এ ছাড়া প্রতি বছর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার জন্য চীন সরকার বৃত্তি দিয়ে যাচ্ছে। ২০১৩-১৮ সালের মধ্যে প্রায় দুই হাজার ২৭৮ জন সরকারি-বেসরকারি কর্মজীবী চীন সরকারের আওতায় চীনে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। এ বছর ১৬টি কার্যক্রমে এ সংখ্যা তিন শতাধিক। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায়ও আমাদের এ ধরনের সাহায্য অব্যাহত থাকবে।

চীনা সরকারের তথ্য মতে, শুধু ২০১৯ সালেই বিভিন্ন উন্নয়নশীল দেশের প্রায় পঞ্চাশ হাজার কর্মকর্তা এবং পেশাজীবী পাড়ি জমিয়েছেন চীনে। সল্প এবং দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন প্রশিক্ষণে দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা নিজ নিজ অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছেন বলে জানিয়েছে তারা।

প্রযুক্তি প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের সংবর্ধনা দিল চীনা দূতাবাস

 আইটি ডেস্ক 
০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চলতি বছরে তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন খাতে সরকারি এবং বেসরকারি খাতের দক্ষ জনবল তৈরিতে প্রশিক্ষণ দিয়েছে চীন। তাদের নিয়ে এক সংবর্ধনার আয়োজন করে দেশে অবস্থিত চীনা দূতাবাস। চীন এইডের সহায়তায় চলতি বছরে ১৬টি প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে প্রশিক্ষণ নেয়া প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে প্রায় ১৭০ জনকে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমপিং। কি-নোট স্পিচ দেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন অর্থনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়ন বিভাগের যুগ্ম সচিব ড. একেএম মতিউর রহমান, একই বিভাগের উপপ্রধান মাসুমা আকতারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানে লি জিমপিং বলেন, বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে নিবিড় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিদ্যমান। এখানকার মানবসম্পদের প্রশিক্ষণের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে চীন। এ ছাড়া প্রতি বছর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার জন্য চীন সরকার বৃত্তি দিয়ে যাচ্ছে। ২০১৩-১৮ সালের মধ্যে প্রায় দুই হাজার ২৭৮ জন সরকারি-বেসরকারি কর্মজীবী চীন সরকারের আওতায় চীনে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। এ বছর ১৬টি কার্যক্রমে এ সংখ্যা তিন শতাধিক। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায়ও আমাদের এ ধরনের সাহায্য অব্যাহত থাকবে।

চীনা সরকারের তথ্য মতে, শুধু ২০১৯ সালেই বিভিন্ন উন্নয়নশীল দেশের প্রায় পঞ্চাশ হাজার কর্মকর্তা এবং পেশাজীবী পাড়ি জমিয়েছেন চীনে। সল্প এবং দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন প্রশিক্ষণে দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা নিজ নিজ অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছেন বলে জানিয়েছে তারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন