‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ গুগল সার্চে শীর্ষে
jugantor
‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ গুগল সার্চে শীর্ষে

  আইটি ডেস্ক  

১৮ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরাল

মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতার চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ধারণ করে আছে নান্দনিক শিল্পকলার এক অনন্যনিদর্শন ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালটি। এতটাই দৃষ্টিনন্দন যে, ম্যুরালটি গুগল সার্চে শীর্ষে রয়েছে।

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালটির দেখা মিলবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনেই।

খোদাই করা পাথর ও টাইলসের তৈরি মুর‌্যালটির মূল স্থাপনার দৈর্ঘ্য সিঁড়িসহ ৫০ ফুট এবং প্রস্থ ৩৮ ফুট। বেদির উচ্চতা ৫ ফুট। বেদির ওপর নির্মিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির দৈর্ঘ্য ২৬ ফুট এবং প্রস্থ ১৭ ফুট। এর তিনটি সিঁড়ি রয়েছে। স্থাপনার তিন দিকে চলাফেরার জন্য ১৫ ফুট চওড়া জায়গা রয়েছে।

মূল প্রতিকৃতির ডানপাশে ৪ ফুট চওড়া ও ২০ ফুট উচ্চতার একটি দেয়াল রয়েছে। যেখানে বঙ্গবন্ধু স্বাক্ষরিত একটি ইংরেজি বাণী লিপিবদ্ধ করা। এই বাণীর ঠিক নিচেই রয়েছে বাংলায় অনুবাদ।

যাতে লেখা ‘একজন মানুষ হিসেবে সমগ্র মানবজাতি নিয়ে ভাবি। একজন বাঙালি হিসেবে যা কিছু বাঙালিদের সঙ্গে সম্পর্কিত, তা আমাকে গভীরভাবে ভাবায়। এ নিরন্তন সম্পত্তির উৎস ভালোবাসা। অক্ষয় ভালোবাসা, যে ভালোবাসা আমার রাজনীতি এবং অস্তিত্বকে অর্থবহ করে তোলে।’

‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ গুগল সার্চে শীর্ষে

 আইটি ডেস্ক 
১৮ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরাল
‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরাল

মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতার চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ধারণ করে আছে নান্দনিক শিল্পকলার এক অনন্যনিদর্শন ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালটি। এতটাই দৃষ্টিনন্দন যে, ম্যুরালটি গুগল সার্চে শীর্ষে রয়েছে।

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালটির দেখা মিলবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনেই।

খোদাই করা পাথর ও টাইলসের তৈরি মুর‌্যালটির মূল স্থাপনার দৈর্ঘ্য সিঁড়িসহ ৫০ ফুট এবং প্রস্থ ৩৮ ফুট। বেদির উচ্চতা ৫ ফুট। বেদির ওপর নির্মিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির দৈর্ঘ্য ২৬ ফুট এবং প্রস্থ ১৭ ফুট। এর তিনটি সিঁড়ি রয়েছে। স্থাপনার তিন দিকে চলাফেরার জন্য ১৫ ফুট চওড়া জায়গা রয়েছে।

মূল প্রতিকৃতির ডানপাশে ৪ ফুট চওড়া ও ২০ ফুট উচ্চতার একটি দেয়াল রয়েছে। যেখানে বঙ্গবন্ধু স্বাক্ষরিত একটি ইংরেজি বাণী লিপিবদ্ধ করা। এই বাণীর ঠিক নিচেই রয়েছে বাংলায় অনুবাদ।

যাতে লেখা ‘একজন মানুষ হিসেবে সমগ্র মানবজাতি নিয়ে ভাবি। একজন বাঙালি হিসেবে যা কিছু বাঙালিদের সঙ্গে সম্পর্কিত, তা আমাকে গভীরভাবে ভাবায়। এ নিরন্তন সম্পত্তির উৎস ভালোবাসা। অক্ষয় ভালোবাসা, যে ভালোবাসা আমার রাজনীতি এবং অস্তিত্বকে অর্থবহ করে তোলে।’

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন