করোনায় সোশ্যাল মিডিয়ার নানা ফিচার
jugantor
করোনায় সোশ্যাল মিডিয়ার নানা ফিচার

  সাইফ আহমাদ  

১৩ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারী কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবে এখনও ঘরে থেকেই কাজ করছেন অনেকে। ক্লাস, মিটিং এমনকি টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসাও ঘরে থেকেই নিচ্ছেন। এ সময় ব্যবহারকারীদের আরও বেশি সুবিধা দিতে নিত্যনতুন ফিচার নিয়ে এসেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো।

করোনার এ সময়ে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক চালু করেছে ‘মেসেঞ্জার রুমস’ ফিচার। ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম নানা রকম নিরাপত্তা আপডেট নিয়ে আসে। যে কারণেই জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে আসে অ্যাপটি। এরই মধ্যে ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ সব প্ল্যাটফরমেই আসে বিশেষ কিছু ফিচার।

মেসেঞ্জার রুমস

ফেসবুকের আকর্ষণীয় ফিচার মেসেঞ্জার রুমসে একসঙ্গে ৫০ জন ভিডিও কলে যুক্ত হওয়া যায়। প্রথমে একজনকে ফেসবুক বা মেসেঞ্জারের মাধ্যমে চ্যাটরুম খুলতে হবে। পরবর্তীতে সেখানে ৪৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো যায়। কারও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না থাকলেও চ্যাটরুমে যুক্ত হতে পারবেন। কোনো নির্দিষ্ট সময়ের বাধাধরা নেই বরং যতক্ষণ ইচ্ছা মেসেঞ্জার রুমসে ভিডিও কনফারেন্স চালিয়ে যাওয়া যায়।

ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম

কোভিড ১৯ মহামারী আকার ধারণ করায় ভিডিও কলের জন্য জুম অ্যাপ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। জুলাইয়ের শেষ দিকে যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপ স্টোরের আগের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে জুম। টিকটকের রেকর্ড ভেঙে এ জুম অ্যাপ ডাউনলোড হয় ৯৪ মিলিয়ন বার।

করোনার কারণে জুম তুমুল জনপ্রিয়তা পেলেও নিরাপত্তা ও ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ইস্যুতে এটি বেশ সমালোচনার মুখে পড়ে। পরে অবশ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে কয়েকটি নতুন আপডেট নিয়ে আসে জুম।

ইন্সটাগ্রাম

ফেসবুক মালিকানাধীন ফটো শেয়ারিং প্ল্যাটফরম ইনস্টাগ্রামও কোভিড ১৯-এর এ সময়ে বেশকিছু আপডেট নিয়ে এসেছে। এর মধ্যে অন্যতম একটি থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট চেকের ব্যবহার। করোনা সম্পর্কিত গুজব ছড়ানো প্রতিরোধে এ ফিচার চালু করে ইনস্টাগ্রাম। শুধু তাই নয়, যেসব অ্যাকাউন্টে করোনা সম্পর্কিত কনটেন্ট আছে সেসব অ্যাকাউন্টকে রিকমেন্ডেশন থেকে সরিয়ে দিয়েছে তারা।

টুইটার

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারও করোনা বিষয়ে ছড়িয়ে পড়া নানা গুজব প্রতিরোধে নতুন নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে। নতুন আপডেটে মানুষকে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে তারা।

হোয়াটসঅ্যাপ

করোনার লকডাউনের কারণে বিশ্বব্যাপী ভিডিও কলের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ফিচারের আপডেট করেছে ফেসবুক মালিকানাধীন আরেক জনপ্রিয় প্ল্যাটফরম হোয়াটসঅ্যাপও। আগে ৪ জন মাত্র হোয়াটসঅ্যাপ ভিডিও কলে যুক্ত হতে পারলেও নতুন এ আপডেটে এখন একসঙ্গে ৮ জন হোয়াটসঅ্যাপে ভিডিও কল করতে পারেন।

করোনার এ সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, যেগুলো জনমনে আতঙ্ক তৈরি করছে। এসব গুজন এবং গুজবের বিপরীতে সঠিক তথ্য মানুষকে জানাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সামাজিক মাধ্যমগুলো। ব্যবহারকারীদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে নিত্যনতুন ফিচারের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সামাজিক মাধ্যমগুলো।

করোনায় সোশ্যাল মিডিয়ার নানা ফিচার

 সাইফ আহমাদ 
১৩ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারী কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবে এখনও ঘরে থেকেই কাজ করছেন অনেকে। ক্লাস, মিটিং এমনকি টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসাও ঘরে থেকেই নিচ্ছেন। এ সময় ব্যবহারকারীদের আরও বেশি সুবিধা দিতে নিত্যনতুন ফিচার নিয়ে এসেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো।

করোনার এ সময়ে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক চালু করেছে ‘মেসেঞ্জার রুমস’ ফিচার। ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম নানা রকম নিরাপত্তা আপডেট নিয়ে আসে। যে কারণেই জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে আসে অ্যাপটি। এরই মধ্যে ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ সব প্ল্যাটফরমেই আসে বিশেষ কিছু ফিচার।

মেসেঞ্জার রুমস

ফেসবুকের আকর্ষণীয় ফিচার মেসেঞ্জার রুমসে একসঙ্গে ৫০ জন ভিডিও কলে যুক্ত হওয়া যায়। প্রথমে একজনকে ফেসবুক বা মেসেঞ্জারের মাধ্যমে চ্যাটরুম খুলতে হবে। পরবর্তীতে সেখানে ৪৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো যায়। কারও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না থাকলেও চ্যাটরুমে যুক্ত হতে পারবেন। কোনো নির্দিষ্ট সময়ের বাধাধরা নেই বরং যতক্ষণ ইচ্ছা মেসেঞ্জার রুমসে ভিডিও কনফারেন্স চালিয়ে যাওয়া যায়।

ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম

কোভিড ১৯ মহামারী আকার ধারণ করায় ভিডিও কলের জন্য জুম অ্যাপ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। জুলাইয়ের শেষ দিকে যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপ স্টোরের আগের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে জুম। টিকটকের রেকর্ড ভেঙে এ জুম অ্যাপ ডাউনলোড হয় ৯৪ মিলিয়ন বার।

করোনার কারণে জুম তুমুল জনপ্রিয়তা পেলেও নিরাপত্তা ও ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ইস্যুতে এটি বেশ সমালোচনার মুখে পড়ে। পরে অবশ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে কয়েকটি নতুন আপডেট নিয়ে আসে জুম।

ইন্সটাগ্রাম

ফেসবুক মালিকানাধীন ফটো শেয়ারিং প্ল্যাটফরম ইনস্টাগ্রামও কোভিড ১৯-এর এ সময়ে বেশকিছু আপডেট নিয়ে এসেছে। এর মধ্যে অন্যতম একটি থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট চেকের ব্যবহার। করোনা সম্পর্কিত গুজব ছড়ানো প্রতিরোধে এ ফিচার চালু করে ইনস্টাগ্রাম। শুধু তাই নয়, যেসব অ্যাকাউন্টে করোনা সম্পর্কিত কনটেন্ট আছে সেসব অ্যাকাউন্টকে রিকমেন্ডেশন থেকে সরিয়ে দিয়েছে তারা।

টুইটার

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারও করোনা বিষয়ে ছড়িয়ে পড়া নানা গুজব প্রতিরোধে নতুন নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে। নতুন আপডেটে মানুষকে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে তারা।

হোয়াটসঅ্যাপ

করোনার লকডাউনের কারণে বিশ্বব্যাপী ভিডিও কলের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ফিচারের আপডেট করেছে ফেসবুক মালিকানাধীন আরেক জনপ্রিয় প্ল্যাটফরম হোয়াটসঅ্যাপও। আগে ৪ জন মাত্র হোয়াটসঅ্যাপ ভিডিও কলে যুক্ত হতে পারলেও নতুন এ আপডেটে এখন একসঙ্গে ৮ জন হোয়াটসঅ্যাপে ভিডিও কল করতে পারেন।

করোনার এ সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, যেগুলো জনমনে আতঙ্ক তৈরি করছে। এসব গুজন এবং গুজবের বিপরীতে সঠিক তথ্য মানুষকে জানাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সামাজিক মাধ্যমগুলো। ব্যবহারকারীদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে নিত্যনতুন ফিচারের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সামাজিক মাধ্যমগুলো।