দেড় ঘণ্টায় করোনা টেস্ট
jugantor
নতুন প্রযুক্তি
দেড় ঘণ্টায় করোনা টেস্ট

  আইটি ডেস্ক  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মহামারী করোনা সংক্রমণ নির্ণয়ে নতুন একটি র‌্যাপিড টেস্ট কিট আবিষ্কার করেছে ডিএনএ নাজ নামে একটি কোম্পানি।

তাদের দাবি, কিটটি কোনো বিশেষায়িত মেডিকেল ফ্যাসিলিটি ও বিশেষজ্ঞের উপস্থিতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে এবং এটি ৯০ মিনিটের মধ্যে ফল দিতে সক্ষম।

লন্ডনের ইমপেরিয়াল কলেজের বিজ্ঞানীরা দেখিয়েছেন, ছোট্ট একটি কম্পিউটার চিপ কীভাবে ল্যাবরেটরির কাজ করবে। করোনাভাইরাসের বর্তমান পরীক্ষায় সংক্রমণ শনাক্ত করে যে ফল পাওয়া যাচ্ছে, এ পদ্ধতিও ঠিক একই ফল দেবে। পার্থক্য হল- এ যন্ত্র ফল দিতে সময় নেবে মাত্র ৯০ মিনিট। ইংল্যান্ডের ৮টি হাসপাতাল এ যন্ত্র ব্যবহার করে করোনাভাইরাস বহনকারী রোগীদের সফলভাবে এবং দ্রুত শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। একটি ডিভাইস ব্যবহার করে দিনে ১৬টি টেস্ট করা সম্ভব।

৩৮৬ জনের ওপর চালানো পরীক্ষায় জানা যায়, ৯৪ শতাংশ সময়ে ডিভাইসটি সঠিকভাবে করোনার সংক্রমণ নির্ণয় করতে সক্ষম। গবেষণাটি ল্যানসেট মাইক্রোবসে প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা এ ডিভাইস ব্যবহার করে প্রাপ্ত ফলাফলের বিষয়ে বেশ আশাবাদী। তাদের দাবি, অন্যান্য র‌্যাপিড টেস্টের ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে ছাড় দিয়ে চিন্তা করতে হয় তবে এ কিটটি সবদিক বিবেচনায় ভালো ফল দিচ্ছে।

যুক্তরাজ্য ইতোমধ্যে ৫০০০ ডিভাইস ও ৫৮ লাখ ডিজপোজেবল কার্টিজের জন্য অর্ডার দিয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা যুক্তরাজ্যের সমন্বিত টেস্ট অ্যান্ড ট্রেস সিস্টেমের মধ্যে এ ডিভাইসের অন্তর্ভুক্তি এখনই দেখছেন না। যদিও তারা মনে করেন, দ্রুত একটি প্রাথমিক ধারণাবিষয়ক টেস্টের জন্য এ ডিভাইস ব্যবহার করা যেতে পারে।

নতুন প্রযুক্তি

দেড় ঘণ্টায় করোনা টেস্ট

 আইটি ডেস্ক 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মহামারী করোনা সংক্রমণ নির্ণয়ে নতুন একটি র‌্যাপিড টেস্ট কিট আবিষ্কার করেছে ডিএনএ নাজ নামে একটি কোম্পানি।

তাদের দাবি, কিটটি কোনো বিশেষায়িত মেডিকেল ফ্যাসিলিটি ও বিশেষজ্ঞের উপস্থিতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে এবং এটি ৯০ মিনিটের মধ্যে ফল দিতে সক্ষম।

লন্ডনের ইমপেরিয়াল কলেজের বিজ্ঞানীরা দেখিয়েছেন, ছোট্ট একটি কম্পিউটার চিপ কীভাবে ল্যাবরেটরির কাজ করবে। করোনাভাইরাসের বর্তমান পরীক্ষায় সংক্রমণ শনাক্ত করে যে ফল পাওয়া যাচ্ছে, এ পদ্ধতিও ঠিক একই ফল দেবে। পার্থক্য হল- এ যন্ত্র ফল দিতে সময় নেবে মাত্র ৯০ মিনিট। ইংল্যান্ডের ৮টি হাসপাতাল এ যন্ত্র ব্যবহার করে করোনাভাইরাস বহনকারী রোগীদের সফলভাবে এবং দ্রুত শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। একটি ডিভাইস ব্যবহার করে দিনে ১৬টি টেস্ট করা সম্ভব।

৩৮৬ জনের ওপর চালানো পরীক্ষায় জানা যায়, ৯৪ শতাংশ সময়ে ডিভাইসটি সঠিকভাবে করোনার সংক্রমণ নির্ণয় করতে সক্ষম। গবেষণাটি ল্যানসেট মাইক্রোবসে প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা এ ডিভাইস ব্যবহার করে প্রাপ্ত ফলাফলের বিষয়ে বেশ আশাবাদী। তাদের দাবি, অন্যান্য র‌্যাপিড টেস্টের ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে ছাড় দিয়ে চিন্তা করতে হয় তবে এ কিটটি সবদিক বিবেচনায় ভালো ফল দিচ্ছে।

যুক্তরাজ্য ইতোমধ্যে ৫০০০ ডিভাইস ও ৫৮ লাখ ডিজপোজেবল কার্টিজের জন্য অর্ডার দিয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা যুক্তরাজ্যের সমন্বিত টেস্ট অ্যান্ড ট্রেস সিস্টেমের মধ্যে এ ডিভাইসের অন্তর্ভুক্তি এখনই দেখছেন না। যদিও তারা মনে করেন, দ্রুত একটি প্রাথমিক ধারণাবিষয়ক টেস্টের জন্য এ ডিভাইস ব্যবহার করা যেতে পারে।