ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে ব্রোঞ্জ জিতল বাংলাদেশ
jugantor
ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে ব্রোঞ্জ জিতল বাংলাদেশ

  সাইফ আহমাদ  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে (আইওআই) এ বছর ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে বাংলাদেশ। প্রতিযোগিতায় এ পদক জিতেন তাসমীম রেজা, রেজোয়ান আরেফিন এবং আরমান ফেরদৌস।

এবারের আয়োজনে ৮৭টি দেশ থেকে অংশগ্রহণ করেছিলেন ৩৪৩ প্রতিযোগী।

২০২০ সালের আইওআই অলিম্পিয়াডের আয়োজক ছিল সিঙ্গাপুর। করোনার কারণে প্রতিযোগীদের নিজ নিজ দেশে কমিটির আয়োজনে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের ইনফরমেশন এক্সেস সেন্টারে ১৬ ও ১৯ সেপ্টেম্বর এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় আয়োজক কমিটি ও সিঙ্গাপুর থেকে আন্তর্জাতিক কমিটি সার্বক্ষণিক অনলাইন নজরদারি করে।

আয়োজন তত্ত্বাবধানে ছিলেন বাংলাদেশ ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড কমিটির সদস্য মো. কায়কোবাদ এবং সোহেল রহমান। এ পর্যন্ত আইওআইয়ের আসর থেকে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা দুটি রৌপ্যপদক এবং ১৬টি ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেছেন। ২০১২ সালে বাংলাদেশের শিক্ষার্থী বৃষ্টি সিকদার ইতালিতে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত ‘আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড’ যাত্রা শুরু করে ১৯৮৯ সালে বুলগেরিয়াতে। পরে দেশের ছেলেমেয়েদের প্রোগ্রামিংয়ে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞানের অধ্যাপকদের নিয়ে ‘বাংলাদেশ ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড কমিটি’ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে ব্রোঞ্জ জিতল বাংলাদেশ

 সাইফ আহমাদ 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে (আইওআই) এ বছর ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে বাংলাদেশ। প্রতিযোগিতায় এ পদক জিতেন তাসমীম রেজা, রেজোয়ান আরেফিন এবং আরমান ফেরদৌস।

এবারের আয়োজনে ৮৭টি দেশ থেকে অংশগ্রহণ করেছিলেন ৩৪৩ প্রতিযোগী।

২০২০ সালের আইওআই অলিম্পিয়াডের আয়োজক ছিল সিঙ্গাপুর। করোনার কারণে প্রতিযোগীদের নিজ নিজ দেশে কমিটির আয়োজনে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের ইনফরমেশন এক্সেস সেন্টারে ১৬ ও ১৯ সেপ্টেম্বর এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় আয়োজক কমিটি ও সিঙ্গাপুর থেকে আন্তর্জাতিক কমিটি সার্বক্ষণিক অনলাইন নজরদারি করে।

আয়োজন তত্ত্বাবধানে ছিলেন বাংলাদেশ ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড কমিটির সদস্য মো. কায়কোবাদ এবং সোহেল রহমান। এ পর্যন্ত আইওআইয়ের আসর থেকে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা দুটি রৌপ্যপদক এবং ১৬টি ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেছেন। ২০১২ সালে বাংলাদেশের শিক্ষার্থী বৃষ্টি সিকদার ইতালিতে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত ‘আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড’ যাত্রা শুরু করে ১৯৮৯ সালে বুলগেরিয়াতে। পরে দেশের ছেলেমেয়েদের প্রোগ্রামিংয়ে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞানের অধ্যাপকদের নিয়ে ‘বাংলাদেশ ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড কমিটি’ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।