অপটিমাইজারের যাত্রা শুরু
jugantor
প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ
অপটিমাইজারের যাত্রা শুরু

  আইটি ডেস্ক  

১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

উন্নত এবং ক্রিয়েটিভ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হিসাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও ট্রেনিং ইনস্টিটিউট ‘অপটিমাইজার’-এর যাত্রা শুরু হয়েছে। ১৪ জানুয়ারি সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘অনুবীক্ষণ’ আয়োজিত আইটি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট অ্যান্ড সার্ভিস প্রোভাইডার ‘অপটিমাইজার’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। প্রতিষ্ঠানটি সিলেটের সবচেয়ে উন্নত ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। অপটিমাইজার শুধু ট্রেনিং ইনস্টিটিউটই নয়, আপনার ব্যবসাগুলোকে ডিজিটালাইজড করে দিতেও সক্ষম। সেবাগুলো হচ্ছে-ইন্টারনেট মার্কেটিং, যে কোনো ধরনের ডিজাইন, ওয়েব এবং অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, চ্যাটবোট ডেভেলপমেন্ট, ব্র্যান্ডিং এবং প্রেস রিলিজ সেবা, পিওএস (চঙঝ) সেবা, ব্যবসা এবং মার্কেটিং কন্সালটেন্সি, ফেসবুক এবং ওয়েবসাইট চ্যাটবোট ডেভেলপমেন্ট, কাস্টমাইজড ল্যাপটপ এবং ডেস্কটপ তৈরি করে দেওয়া।

প্রতিষ্ঠানটিতে স্বল্পমূল্য নির্ধারিত কোর্সগুলো অফলাইন ও অনলাইনে করা যাবে। মুনতাসির মাহদী এবং ফারহানা আক্তারের হাত ধরে গড়ে ওঠা প্রতিষ্ঠানটিতে গরিব ও মেধাবীদের জন্য প্রত্যেক ব্যাচে নির্দিষ্ট পরিমাণ সিট বরাদ্দ থাকবে। অপটিমাইজারে যেসব সেক্টরের কোর্সগুলো পাবেন, সেগুলো হচ্ছে- বেসিক কম্পিউটার এবং আইটি ট্রেনিং, ওয়েব ডিজাইন এবং ইউআই/ইউএক্স ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ফ্রিল্যান্সিং/আউটসোর্সিং এবং মার্কেটপ্লেস, সেলস, বিজনেস এবং লাইফ স্কিল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মদনমোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এবং রোটারি ৩২৮২ জেলার গভর্নর লেফটেন্যান্ট কর্নেল আতাউর রহমান পীর। তিনি বলেন, বেকারত্ব দূরীকরণে আন্তর্জাতিক আইটি সেক্টরের দরজা খোলা রয়েছে। তাই শিক্ষিত বেকারদের স্বপ্ন পূরণে সহজ পথ আইটি সেক্টর। গত ১০ বছরে বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিত প্রস্তুত করেছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ ভিত মজবুত করতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে। অপটিমাইজারের অবস্থান সিলেটের একেবারে প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজারের সুরমা টাওয়ারের অষ্টম তলায়।

প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ

অপটিমাইজারের যাত্রা শুরু

 আইটি ডেস্ক 
১৭ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

উন্নত এবং ক্রিয়েটিভ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হিসাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ও ট্রেনিং ইনস্টিটিউট ‘অপটিমাইজার’-এর যাত্রা শুরু হয়েছে। ১৪ জানুয়ারি সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘অনুবীক্ষণ’ আয়োজিত আইটি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট অ্যান্ড সার্ভিস প্রোভাইডার ‘অপটিমাইজার’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। প্রতিষ্ঠানটি সিলেটের সবচেয়ে উন্নত ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। অপটিমাইজার শুধু ট্রেনিং ইনস্টিটিউটই নয়, আপনার ব্যবসাগুলোকে ডিজিটালাইজড করে দিতেও সক্ষম। সেবাগুলো হচ্ছে-ইন্টারনেট মার্কেটিং, যে কোনো ধরনের ডিজাইন, ওয়েব এবং অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, চ্যাটবোট ডেভেলপমেন্ট, ব্র্যান্ডিং এবং প্রেস রিলিজ সেবা, পিওএস (চঙঝ) সেবা, ব্যবসা এবং মার্কেটিং কন্সালটেন্সি, ফেসবুক এবং ওয়েবসাইট চ্যাটবোট ডেভেলপমেন্ট, কাস্টমাইজড ল্যাপটপ এবং ডেস্কটপ তৈরি করে দেওয়া।

প্রতিষ্ঠানটিতে স্বল্পমূল্য নির্ধারিত কোর্সগুলো অফলাইন ও অনলাইনে করা যাবে। মুনতাসির মাহদী এবং ফারহানা আক্তারের হাত ধরে গড়ে ওঠা প্রতিষ্ঠানটিতে গরিব ও মেধাবীদের জন্য প্রত্যেক ব্যাচে নির্দিষ্ট পরিমাণ সিট বরাদ্দ থাকবে। অপটিমাইজারে যেসব সেক্টরের কোর্সগুলো পাবেন, সেগুলো হচ্ছে- বেসিক কম্পিউটার এবং আইটি ট্রেনিং, ওয়েব ডিজাইন এবং ইউআই/ইউএক্স ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ফ্রিল্যান্সিং/আউটসোর্সিং এবং মার্কেটপ্লেস, সেলস, বিজনেস এবং লাইফ স্কিল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মদনমোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এবং রোটারি ৩২৮২ জেলার গভর্নর লেফটেন্যান্ট কর্নেল আতাউর রহমান পীর। তিনি বলেন, বেকারত্ব দূরীকরণে আন্তর্জাতিক আইটি সেক্টরের দরজা খোলা রয়েছে। তাই শিক্ষিত বেকারদের স্বপ্ন পূরণে সহজ পথ আইটি সেক্টর। গত ১০ বছরে বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিত প্রস্তুত করেছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ ভিত মজবুত করতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে। অপটিমাইজারের অবস্থান সিলেটের একেবারে প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজারের সুরমা টাওয়ারের অষ্টম তলায়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন