ফোল্ডেবল আইফোন ২০২৩ সালে
jugantor
ফোল্ডেবল আইফোন ২০২৩ সালে

  আইটি ডেস্ক  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বেশ ঘটা করেই বাজারে ফোল্ডেবল ডিভাইস নিয়ে আসছিল। মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল কয়েকটি পেটেন্ট নিয়েছে ফোল্ডেবল ডিভাইসের জন্য।

ফোল্ডেবল আইফোন আনার নানা গুজব শোনা গেছে, তবে এবারের খবরটি বেশ জোরালো। সুপরিচিত বিশ্লেষক মিং-ছি কুও এর বরাত দিয়ে জানা গেছে, ২০২৩ সালে ৮ ইঞ্চির ফোল্ডেবল আইফোন আনার পরিকল্পনা করেছে অ্যাপল। এ বিষয়ে পাওয়া নথি থেকে জানা গেছে, প্রথম বছরেই দেড় থেকে দুই কোটি ইউনিট ফোল্ডেবল আইফোন বিক্রি করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

গত মার্চেই ফোল্ডেবল আইফোনের সম্ভাব্যতা প্রকাশ পেয়েছে, তবে তার সর্বশেষ রিপোর্টে সরবরাহকারীদের বিস্তারিত তথ্য রয়েছে বলে জানিয়েছে কুও। ওয়াই-অক্টা প্রযুক্তির থেকে এগিয়ে থাকতে ফোল্ডেবল আইফোনে টিপিকের সরবরাহকৃত সিলভার ন্যানোওয়ার টাচ প্রযুক্তি ব্যবহার করবে অ্যাপল।

কুও ধারণা করছেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ কিংবা ২০২২ সালের প্রথমদিকে অপো, ভিভো, শাওমি এবং অনার নতুন ফোল্ডেবল ফোন বাজারে আনবে। যদি কম্পোনেন্ট ঘাটতি কমে যায় তাহলে ২০২২ সাল নাগাদ ১৭ মিলিয়ন ইউনিট ফোন বাজারে সরবরাহ হবে।

ফোল্ডেবল আইফোন ২০২৩ সালে

 আইটি ডেস্ক 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বেশ ঘটা করেই বাজারে ফোল্ডেবল ডিভাইস নিয়ে আসছিল। মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল কয়েকটি পেটেন্ট নিয়েছে ফোল্ডেবল ডিভাইসের জন্য।

ফোল্ডেবল আইফোন আনার নানা গুজব শোনা গেছে, তবে এবারের খবরটি বেশ জোরালো। সুপরিচিত বিশ্লেষক মিং-ছি কুও এর বরাত দিয়ে জানা গেছে, ২০২৩ সালে ৮ ইঞ্চির ফোল্ডেবল আইফোন আনার পরিকল্পনা করেছে অ্যাপল। এ বিষয়ে পাওয়া নথি থেকে জানা গেছে, প্রথম বছরেই দেড় থেকে দুই কোটি ইউনিট ফোল্ডেবল আইফোন বিক্রি করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

গত মার্চেই ফোল্ডেবল আইফোনের সম্ভাব্যতা প্রকাশ পেয়েছে, তবে তার সর্বশেষ রিপোর্টে সরবরাহকারীদের বিস্তারিত তথ্য রয়েছে বলে জানিয়েছে কুও। ওয়াই-অক্টা প্রযুক্তির থেকে এগিয়ে থাকতে ফোল্ডেবল আইফোনে টিপিকের সরবরাহকৃত সিলভার ন্যানোওয়ার টাচ প্রযুক্তি ব্যবহার করবে অ্যাপল।

কুও ধারণা করছেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ কিংবা ২০২২ সালের প্রথমদিকে অপো, ভিভো, শাওমি এবং অনার নতুন ফোল্ডেবল ফোন বাজারে আনবে। যদি কম্পোনেন্ট ঘাটতি কমে যায় তাহলে ২০২২ সাল নাগাদ ১৭ মিলিয়ন ইউনিট ফোন বাজারে সরবরাহ হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন