অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম রয়েছে ইলন মাস্কের
jugantor
অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম রয়েছে ইলন মাস্কের

  আইটি ডেস্ক  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের অন্যতম ধনী ব্যক্তি টেসলা ও স্পেসেক্স প্রধান ইলন মাস্ক এর অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম রয়েছে। মার্কিন টেলিভিশনের জনপ্রিয় শো ‘স্যাটারডে নাইট লাইভে’ অতিথি উপস্থাপক হিসাবে কথা বলার সময় সম্ভবত প্রথমবারের মতো তথ্যটি প্রকাশ করলেন খোদ ইলন মাস্ক নিজেই। জনপ্রিয় এ শো সংক্ষেপে এসএনএল নামে পরিচিত।

৪৯ বছর বয়সি এ প্রযুক্তি উদ্যোক্তা দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে চলা অনুষ্ঠানটির ইতিহাসে প্রথম অ্যাসপারগার্সে আক্রান্ত হোস্ট তিনি। দর্শকরা উল্লাস আর করতালির মধ্যে তার ওই তথ্যের প্রত্যুত্তর দেন। মূলত অ্যাসপারগার্স সিনড্রোম আছে এমন লোকজন তাদের চারপাশের পরিবেশকে অন্য মানুষের তুলানায় আলাদাভাবে দেখেন।

মাস্ক বলেন, ‘আমি যেভাবে কথা বলি, তার মধ্যে সবসময় যথেষ্ট স্বরবৈচিত্র্য থাকে না... আমাকে বলা হয়েছে, এটাই না কি দুর্দান্ত কৌতুক তৈরি করে’। ‘আমি আসলে আজ রাতে এসএনএল উপস্থাপন করা অ্যাসপারগার্স আছে এমন প্রথম ব্যক্তি হিসাবে ইতিহাস তৈরি করছি।’

যদিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিছু লোক অবশ্য তার ওই দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। কৌতুকাভিনেতা ড্যান আইক্রোইড, যিনি ট্যুরেট এবং অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম নিয়ে তার অভিজ্ঞতা প্রকাশ্যেই বর্ণনা করেছেন, তিনি এর আগে এসএনএল উপস্থাপনা করেছেন বলে জানিয়েছেন অনেকেই। টুইটারে পাঁচ কোটি ৩০ লাখ অনুসারীসম্পন্ন অ্যাকাউন্টের মালিক মাস্কের টুইট নিয়ে অতীতে সমালোচনা হয়েছে একাধিকবার। এমনকি সেসব নিয়ে আদালত পর্যন্ত যেতে হয়েছে তাকে। কাজেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার নিয়ে তিনি রসিকতা করবেন, এটা অনেকটাই অনুমান করা গেছে।

‘দেখুন, আমি জানি আমি মাঝে মাঝে উদ্ভট কথা বলি বা পোস্ট করি, কিন্তু আমার মাথা আসলে এভাবেই কাজ করে। যারা এতে অসন্তুষ্ট হয়েছেন, তাদের শুধু বলতে চাই, আমি নতুন করে বৈদ্যুতিক গাড়ি উদ্ভাবন করেছি, নভোযানে আমি মানুষকে মঙ্গলগ্রহে পাঠাচ্ছি। আপনি কি ভেবেছেন, আমি আর সবার মতো হব?’ দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন মাস্ক।

অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম রয়েছে ইলন মাস্কের

 আইটি ডেস্ক 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের অন্যতম ধনী ব্যক্তি টেসলা ও স্পেসেক্স প্রধান ইলন মাস্ক এর অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম রয়েছে। মার্কিন টেলিভিশনের জনপ্রিয় শো ‘স্যাটারডে নাইট লাইভে’ অতিথি উপস্থাপক হিসাবে কথা বলার সময় সম্ভবত প্রথমবারের মতো তথ্যটি প্রকাশ করলেন খোদ ইলন মাস্ক নিজেই। জনপ্রিয় এ শো সংক্ষেপে এসএনএল নামে পরিচিত।

৪৯ বছর বয়সি এ প্রযুক্তি উদ্যোক্তা দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে চলা অনুষ্ঠানটির ইতিহাসে প্রথম অ্যাসপারগার্সে আক্রান্ত হোস্ট তিনি। দর্শকরা উল্লাস আর করতালির মধ্যে তার ওই তথ্যের প্রত্যুত্তর দেন। মূলত অ্যাসপারগার্স সিনড্রোম আছে এমন লোকজন তাদের চারপাশের পরিবেশকে অন্য মানুষের তুলানায় আলাদাভাবে দেখেন।

মাস্ক বলেন, ‘আমি যেভাবে কথা বলি, তার মধ্যে সবসময় যথেষ্ট স্বরবৈচিত্র্য থাকে না... আমাকে বলা হয়েছে, এটাই না কি দুর্দান্ত কৌতুক তৈরি করে’। ‘আমি আসলে আজ রাতে এসএনএল উপস্থাপন করা অ্যাসপারগার্স আছে এমন প্রথম ব্যক্তি হিসাবে ইতিহাস তৈরি করছি।’

যদিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিছু লোক অবশ্য তার ওই দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। কৌতুকাভিনেতা ড্যান আইক্রোইড, যিনি ট্যুরেট এবং অ্যাসপারগার্স সিন্ড্রোম নিয়ে তার অভিজ্ঞতা প্রকাশ্যেই বর্ণনা করেছেন, তিনি এর আগে এসএনএল উপস্থাপনা করেছেন বলে জানিয়েছেন অনেকেই। টুইটারে পাঁচ কোটি ৩০ লাখ অনুসারীসম্পন্ন অ্যাকাউন্টের মালিক মাস্কের টুইট নিয়ে অতীতে সমালোচনা হয়েছে একাধিকবার। এমনকি সেসব নিয়ে আদালত পর্যন্ত যেতে হয়েছে তাকে। কাজেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার নিয়ে তিনি রসিকতা করবেন, এটা অনেকটাই অনুমান করা গেছে।

‘দেখুন, আমি জানি আমি মাঝে মাঝে উদ্ভট কথা বলি বা পোস্ট করি, কিন্তু আমার মাথা আসলে এভাবেই কাজ করে। যারা এতে অসন্তুষ্ট হয়েছেন, তাদের শুধু বলতে চাই, আমি নতুন করে বৈদ্যুতিক গাড়ি উদ্ভাবন করেছি, নভোযানে আমি মানুষকে মঙ্গলগ্রহে পাঠাচ্ছি। আপনি কি ভেবেছেন, আমি আর সবার মতো হব?’ দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন মাস্ক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন