মহাকাশ যাত্রার অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরলেন জেফ বেজোস
jugantor
মহাকাশ যাত্রার অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরলেন জেফ বেজোস

  আইটি ডেস্ক  

২৪ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিজের প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিনে চড়ে ১১ মিনিটের মহাকাশ ভ্রমণ সেরে নিরাপদে পৃথিবীতে ফিরে এলেন জেফ বেজোস। এ মহাকাশ যাত্রায় বেজোসের সঙ্গী হয়েছিলেন ভাই মার্ক বেজাস, ৮২ বছর বয়সি নারী ওয়েলি ফাঙ্ক এবং ১৮ বছর বয়সি অলিভার ডেমিয়েন।

মহাকাশ ভ্রমণ থেকে ফিরে টেক্সাসের মরুভূমিতে অবতরণ করার পর বেজোস বলেন, ‘ক্যাপসুলে রয়েছে খুব খুশি একটা দল।’ ৮২ বছরের ফাঙ্ক বলেন, ‘ওপরে একদম অন্ধকার।’ নিল আর্মস্ট্রং ১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই চাঁদের মাটিতে প্রথমবারের মতো পা রেখেছিলেন। সেদিন নিল আর্মস্ট্রং, বাজ অলড্রিন ও মাইকেল কলিন্সের মতো মহাকাশের অজানা পথে ঘুরে আসার স্বপ্ন দেখেছিলেন বিশ্বের অনেকেই। এরপর ৫২টি বছর পার হলেও সাধারণের মহাকাশ সফর এখনও অধরা। সেটিই হয়তো পাল্টে যেতে চলেছে সামনে। অ্যামাজনের সাবেক প্রধান জেফ বেজোস নতুন স্বপ্নের দুয়ার উন্মোচন করেছেন। যেখানে সাধারণ মানুষও নির্দ্বিধায় ঘুরে আসতে পারবে মহাকাশ থেকে, নিতে পারবে ওজনহীনতার অভিজ্ঞতা।

এদিকে, সফল মহাকাশ ভ্রমণের পর বেজোসের সংস্থাকে অভিনন্দন জানিয়েছে নাসা। তারা লিখেছে, ব্লু অরিজিন টিমকে তাদের প্রথম হিউম্যান ফ্লাইটের জন্য অভিনন্দন। ভবিষ্যতের তাদের এমন মহাকাশ ভ্রমণে নাসার গবেষক এবং প্রযুক্তিবিদরা থাকবে, তার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। কয়েক দিন আগে সবাইকে অবাক করে দিয়ে হঠাৎই প্রথমবারের মতো মহাকাশ সফর করেন ব্রিটিশ ধনকুবের রিচার্ড ব্র্যানসন। বিশ্বের শীর্ষ বিলিয়নিয়ারদের এমন কা-কে নতুন প্রতিযোগিতা হিসাবে দেখছেন মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা। যদিও অনেকের ধারণা পর্যটন হিসাবে মহাকাশ ভ্রমণ মানুষের জন্য নতুন একটি অধ্যায়ের সূচনা হতে যাচ্ছে।

মহাকাশ যাত্রার অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরলেন জেফ বেজোস

 আইটি ডেস্ক 
২৪ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিজের প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিনে চড়ে ১১ মিনিটের মহাকাশ ভ্রমণ সেরে নিরাপদে পৃথিবীতে ফিরে এলেন জেফ বেজোস। এ মহাকাশ যাত্রায় বেজোসের সঙ্গী হয়েছিলেন ভাই মার্ক বেজাস, ৮২ বছর বয়সি নারী ওয়েলি ফাঙ্ক এবং ১৮ বছর বয়সি অলিভার ডেমিয়েন।

মহাকাশ ভ্রমণ থেকে ফিরে টেক্সাসের মরুভূমিতে অবতরণ করার পর বেজোস বলেন, ‘ক্যাপসুলে রয়েছে খুব খুশি একটা দল।’ ৮২ বছরের ফাঙ্ক বলেন, ‘ওপরে একদম অন্ধকার।’ নিল আর্মস্ট্রং ১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই চাঁদের মাটিতে প্রথমবারের মতো পা রেখেছিলেন। সেদিন নিল আর্মস্ট্রং, বাজ অলড্রিন ও মাইকেল কলিন্সের মতো মহাকাশের অজানা পথে ঘুরে আসার স্বপ্ন দেখেছিলেন বিশ্বের অনেকেই। এরপর ৫২টি বছর পার হলেও সাধারণের মহাকাশ সফর এখনও অধরা। সেটিই হয়তো পাল্টে যেতে চলেছে সামনে। অ্যামাজনের সাবেক প্রধান জেফ বেজোস নতুন স্বপ্নের দুয়ার উন্মোচন করেছেন। যেখানে সাধারণ মানুষও নির্দ্বিধায় ঘুরে আসতে পারবে মহাকাশ থেকে, নিতে পারবে ওজনহীনতার অভিজ্ঞতা।

এদিকে, সফল মহাকাশ ভ্রমণের পর বেজোসের সংস্থাকে অভিনন্দন জানিয়েছে নাসা। তারা লিখেছে, ব্লু অরিজিন টিমকে তাদের প্রথম হিউম্যান ফ্লাইটের জন্য অভিনন্দন। ভবিষ্যতের তাদের এমন মহাকাশ ভ্রমণে নাসার গবেষক এবং প্রযুক্তিবিদরা থাকবে, তার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। কয়েক দিন আগে সবাইকে অবাক করে দিয়ে হঠাৎই প্রথমবারের মতো মহাকাশ সফর করেন ব্রিটিশ ধনকুবের রিচার্ড ব্র্যানসন। বিশ্বের শীর্ষ বিলিয়নিয়ারদের এমন কা-কে নতুন প্রতিযোগিতা হিসাবে দেখছেন মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা। যদিও অনেকের ধারণা পর্যটন হিসাবে মহাকাশ ভ্রমণ মানুষের জন্য নতুন একটি অধ্যায়ের সূচনা হতে যাচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন