বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটল রয়েল গেম অ্যানিহিলেশন
jugantor
গেম
বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটল রয়েল গেম অ্যানিহিলেশন

  তানভীর তানিম  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অসৎ উদ্দেশ্যে এলিয়েন সর্দার ডার্কসিড তার সৈন্যসামন্ত নিয়ে পৃথিবীতে আসে। সেখানে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে একদল অকুতোভয় সাহসী যোদ্ধা। শুরু হয় তুমুল লড়াই। এলিয়েন ও মানুষের মধ্যকার এ যুদ্ধকে কেন্দ্র করেই নির্মিত হয়েছে অ্যানিহিলেশন। এটি বাংলাদেশি ডেভেলপারদের তৈরি প্রথম ও একমাত্র ব্যাটল রয়েল গেম। গেম তৈরির ক্ষেত্রে এদেশের তরুণরা যে পিছিয়ে নেই অ্যানিহিলেশন তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

গেমটির বৈশিষ্ট্য

গেমটিতে যুক্ত করা হয়েছে বাংলাদেশের অসংখ্য অঞ্চল যা কোনো প্রতিযোগিতামূলক মাল্টিপ্লেয়ার গেমের ক্ষেত্রে এবারই প্রথম। একইসঙ্গে গেমটির টিম ডেথ ম্যাচ (টিডিএম) মোডে রয়েছে জাপান, নরওয়েসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানচিত্র। বিশ্বের বাজারে ছড়িয়ে দিতে অ্যানিহিলেশনে ব্যবহৃত হয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক ভাষা। এ ছাড়া বাংলা ভাষার অনেক পোস্টার এবং ব্যানার দেখা যাবে গেমটিতে। অ্যানিহিলেশনে চমক হিসাবে থাকছে মারিয়া নামের দুঃসাহসী এক বাংলাদেশি নারী।

যাতে খেলা যাবে

সর্বমোট আটটি চরিত্র নিয়ে পিসি, প্লে-স্টেশন, এক্সবক্স, অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএসসহ সব ধরনের ডিভাইসেই গেমটি খেলা যাবে।

পিসিতে খেলতে প্রয়োজন

পিসিতে অ্যানিহিলেশন গেম খেলতে প্রয়োজন ন্যূনতম একটি ইন্টেল কোর-আইথ্রি প্রসেসর এবং উইন্ডোজ সেভেন অপারেটিং সিস্টেম। এ ছাড়া এনভিডিয়া জিটিএক্স-৫৬০ গ্রাফিক্স কার্ডসহ দরকার হবে ছয় গিগাবাইট র‌্যাম।

মোবাইলে খেলতে প্রয়োজন

মোবাইলের ক্ষেত্রে অ্যানিহিলেশন গেমের দুটি সংস্করণ রয়েছে। একটি নরমাল এবং অন্যটি লাইট সংস্করণ। গেমটির নরমাল মোবাইল সংস্করণ খেলতে প্রয়োজন দুই গিগাবাইট র‌্যাম এবং আট বা তার বেশি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। আর এর হালকা সংস্করণটি খেলতে লাগবে ন্যূনতম এক গিগাবাইট র‌্যাম এবং অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ৭.০। অপারেটিং সিস্টেম ১০.০ এবং শুধু এক গিগাবাইট র‌্যাম হলেই গেমটি আইফোনে খেলা যাবে।

গেম

বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটল রয়েল গেম অ্যানিহিলেশন

 তানভীর তানিম 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অসৎ উদ্দেশ্যে এলিয়েন সর্দার ডার্কসিড তার সৈন্যসামন্ত নিয়ে পৃথিবীতে আসে। সেখানে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে একদল অকুতোভয় সাহসী যোদ্ধা। শুরু হয় তুমুল লড়াই। এলিয়েন ও মানুষের মধ্যকার এ যুদ্ধকে কেন্দ্র করেই নির্মিত হয়েছে অ্যানিহিলেশন। এটি বাংলাদেশি ডেভেলপারদের তৈরি প্রথম ও একমাত্র ব্যাটল রয়েল গেম। গেম তৈরির ক্ষেত্রে এদেশের তরুণরা যে পিছিয়ে নেই অ্যানিহিলেশন তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

গেমটির বৈশিষ্ট্য

গেমটিতে যুক্ত করা হয়েছে বাংলাদেশের অসংখ্য অঞ্চল যা কোনো প্রতিযোগিতামূলক মাল্টিপ্লেয়ার গেমের ক্ষেত্রে এবারই প্রথম। একইসঙ্গে গেমটির টিম ডেথ ম্যাচ (টিডিএম) মোডে রয়েছে জাপান, নরওয়েসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানচিত্র। বিশ্বের বাজারে ছড়িয়ে দিতে অ্যানিহিলেশনে ব্যবহৃত হয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক ভাষা। এ ছাড়া বাংলা ভাষার অনেক পোস্টার এবং ব্যানার দেখা যাবে গেমটিতে। অ্যানিহিলেশনে চমক হিসাবে থাকছে মারিয়া নামের দুঃসাহসী এক বাংলাদেশি নারী।

যাতে খেলা যাবে

সর্বমোট আটটি চরিত্র নিয়ে পিসি, প্লে-স্টেশন, এক্সবক্স, অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএসসহ সব ধরনের ডিভাইসেই গেমটি খেলা যাবে।

পিসিতে খেলতে প্রয়োজন

পিসিতে অ্যানিহিলেশন গেম খেলতে প্রয়োজন ন্যূনতম একটি ইন্টেল কোর-আইথ্রি প্রসেসর এবং উইন্ডোজ সেভেন অপারেটিং সিস্টেম। এ ছাড়া এনভিডিয়া জিটিএক্স-৫৬০ গ্রাফিক্স কার্ডসহ দরকার হবে ছয় গিগাবাইট র‌্যাম।

মোবাইলে খেলতে প্রয়োজন

মোবাইলের ক্ষেত্রে অ্যানিহিলেশন গেমের দুটি সংস্করণ রয়েছে। একটি নরমাল এবং অন্যটি লাইট সংস্করণ। গেমটির নরমাল মোবাইল সংস্করণ খেলতে প্রয়োজন দুই গিগাবাইট র‌্যাম এবং আট বা তার বেশি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। আর এর হালকা সংস্করণটি খেলতে লাগবে ন্যূনতম এক গিগাবাইট র‌্যাম এবং অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ৭.০। অপারেটিং সিস্টেম ১০.০ এবং শুধু এক গিগাবাইট র‌্যাম হলেই গেমটি আইফোনে খেলা যাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন