ফেসবুকের ডিজিটাল ওয়ালেট মেটা পে
jugantor
ফেসবুকের ডিজিটাল ওয়ালেট মেটা পে

  আইটি ডেস্ক  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এবার বিল পরিশোধের সুযোগ চালু হয়েছে। এখন থেকে ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের ঝামেলায় যেতে হবে না, সরাসরি ফেসবুক থেকেই বিল পরিশোধ করা যাবে। ফেসবুকের মূল কোম্পানি মেটাভার্স চালু করল ডিজিটাল ওয়ালেট সিস্টেম ‘মেটা পে’। সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ভার্চুয়াল এবং মেটাভার্সে ওই ওয়ালেট ব্যবহার করা যাবে।

ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ বলেছেন, শুরুতে একাধিক ফিচার যোগ করা হয়েছে। কিন্তু এ ছাড়া একাধিক অত্যাধুনিক ফিচার যোগ করার জন্য আমরা কাজ করে চলেছি। ওই ওয়ালেট থেকে মেটাভার্সে খরচ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

জাকারবার্গ আরও বলেন, ওয়েভ৩ বিশ্বে মালিকানার বিষয়টি আরও গুরুত্বপূর্ণ। আগামী দিনে এ বিষয়টি আরও গুরুত্ব সহযোগে দেখা হবে। কারণ আগামী দিনে কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা ডিজিটাল পোশাক, ডিজিটাল আর্ট, ভিডিও ইত্যাদি সামগ্রীর ওপর বেশি করে নির্ভরশীল থাকবে। তবে এই পুরো বিষয়টি পুরোপুরি প্রয়োগ করতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে।

তবে ক্রিয়েটরদের কাছে আরও অনেক সুযোগ খুলে যাবে। ওই ওয়ালেটের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা অনেকভাবেই ডিজিটাল সামগ্রী কিনতে পারবেন। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মেটা পে চালু করা হয়েছে। মেটার ভবিষষ্যৎ পরিকল্পনা অনুযায়ী ভার্চুয়াল রিয়ালিটির জন্য ডিজিটাল ওয়ালেট একমাত্র উপায়। ফেসবুকের এ প্রযুক্তিটি বিশ্বে প্রায় ৩ ট্রিলিয়নের ব্যবসা করবে বলে জানিয়েছে মেটার কমার্স এবং ফিন্যান্সিয়াল টেকনোাজির প্রধান স্টেপান কাসরিয়েল।

ফেসবুকের ডিজিটাল ওয়ালেট মেটা পে

 আইটি ডেস্ক 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এবার বিল পরিশোধের সুযোগ চালু হয়েছে। এখন থেকে ডেবিট-ক্রেডিট কার্ডের ঝামেলায় যেতে হবে না, সরাসরি ফেসবুক থেকেই বিল পরিশোধ করা যাবে। ফেসবুকের মূল কোম্পানি মেটাভার্স চালু করল ডিজিটাল ওয়ালেট সিস্টেম ‘মেটা পে’। সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ভার্চুয়াল এবং মেটাভার্সে ওই ওয়ালেট ব্যবহার করা যাবে।

ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ বলেছেন, শুরুতে একাধিক ফিচার যোগ করা হয়েছে। কিন্তু এ ছাড়া একাধিক অত্যাধুনিক ফিচার যোগ করার জন্য আমরা কাজ করে চলেছি। ওই ওয়ালেট থেকে মেটাভার্সে খরচ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

জাকারবার্গ আরও বলেন, ওয়েভ৩ বিশ্বে মালিকানার বিষয়টি আরও গুরুত্বপূর্ণ। আগামী দিনে এ বিষয়টি আরও গুরুত্ব সহযোগে দেখা হবে। কারণ আগামী দিনে কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা ডিজিটাল পোশাক, ডিজিটাল আর্ট, ভিডিও ইত্যাদি সামগ্রীর ওপর বেশি করে নির্ভরশীল থাকবে। তবে এই পুরো বিষয়টি পুরোপুরি প্রয়োগ করতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে।

তবে ক্রিয়েটরদের কাছে আরও অনেক সুযোগ খুলে যাবে। ওই ওয়ালেটের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা অনেকভাবেই ডিজিটাল সামগ্রী কিনতে পারবেন। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মেটা পে চালু করা হয়েছে। মেটার ভবিষষ্যৎ পরিকল্পনা অনুযায়ী ভার্চুয়াল রিয়ালিটির জন্য ডিজিটাল ওয়ালেট একমাত্র উপায়। ফেসবুকের এ প্রযুক্তিটি বিশ্বে প্রায় ৩ ট্রিলিয়নের ব্যবসা করবে বলে জানিয়েছে মেটার কমার্স এবং ফিন্যান্সিয়াল টেকনোাজির প্রধান স্টেপান কাসরিয়েল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন