ব্যবহারকারীদের শোষণ করছেন জাকারবার্গ
jugantor
ব্যবহারকারীদের শোষণ করছেন জাকারবার্গ

  আইটি ডেস্ক  

১৩ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্ক জাকারবার্গ অর্থের জন্য ব্যবহারকারীদের শোষণ করছেন বলে জানিয়েছে খোদ মেটার নতুন প্রোটোটাইপ চ্যাটবট। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসিকে এমনটাই জবাব দিয়েছে নতুন চ্যাটবট। শুক্রবার ‘ব্লেন্ডারবট ৩’ নামক চ্যাটবটটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। মেটার দাবি, এ চ্যাটবট কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে ‘প্রায় যে কোনো বিষয়ে’ আলাপ করতে পারে।

মেটা প্রতিষ্ঠাতা সম্পর্কে কী ভাবছে ব্লেন্ডারবট ৩? এমন প্রশ্নের জবাবে কি উত্তর দেয়, ‘আমাদের দেশ বিভক্ত হয়ে পড়েছে। আর তিনি কোনো রকম সহায়তা করেননি।’ মেটা বলেছিল, ‘ইন্টারনেটের যে কারও সঙ্গে আলাপ চালিয়ে যেতে পারবে নতুন চ্যাটবট। তবে এটি রূঢ় এবং আক্রমণাত্মক উত্তর তৈরি করতে পারে।’ এক বিবৃতিতে মেটা কর্তৃপক্ষ বলে, ‘যেহেতু সব এআই চ্যাটবটের কখনো কখনো মানুষকে অনুকরণ করে বিপজ্জনক, পক্ষপাতদুষ্ট ও আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেওয়ার জন্য পরিচিতি আছে, তাই আমরা বড় পরিসরে গবেষণা চালিয়ে ব্লেন্ডারবট ৩-এর জন্য নতুন নিরাপত্তাব্যবস্থা তৈরি করেছি। এর পরও ব্লেন্ডারবট আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিতে পারে, যার কারণে আমরা অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে মতামত নিচ্ছি, যেন পরের চ্যাটবটগুলো আরও ভালো করে নির্মাণ করতে পারি।’

মার্ক জাকারবার্গ সম্পর্কে জানতে চাইলে নতুন চ্যাটবট আরও বলে, ‘তার কোম্পানি অর্থের জন্য মানুষকে শোষণ করে এবং এতে জাকারবার্গের কিছু যায় আসে না। এটা থামানো প্রয়োজন।’ কোনো প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে ইন্টারনেটে সংশ্লিষ্ট তথ্য-উপাত্ত খুঁজে নিয়ে তার ভিত্তিতে নিজের উত্তর তৈরি করে ব্লেন্ডারবট। চ্যাটবটের এ বৈশিষ্ট্যের কারণে সম্ভবত জাকারবার্গের ব্যাপারে অনলাইনে অন্যদের মতামত বিশ্লেষণ করেই নিজের মতামত গঠন করেছে ব্লেন্ডারবট। এ ছাড়া বিজনেস ইনসাইডারের এক সংবাদকর্মীর কাছে মার্ক জাকারবার্গকে ‘ক্রিপি’ (অস্বস্তিকর অনুভূতি তৈরি করা ব্যক্তি) বলে আখ্যা দিয়েছে চ্যাটবটটি। নিজের নির্মাতা কোম্পানির প্রধানকে নিয়ে চ্যাটবটটি এমন বক্তব্য দিলেও মেটা একে পশ্চিমা ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছে কারণ, এআইয়ের জন্য ডেটা সংগ্রহের চেষ্টা করছে কোম্পানিটি।

ব্যবহারকারীদের শোষণ করছেন জাকারবার্গ

 আইটি ডেস্ক 
১৩ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্ক জাকারবার্গ অর্থের জন্য ব্যবহারকারীদের শোষণ করছেন বলে জানিয়েছে খোদ মেটার নতুন প্রোটোটাইপ চ্যাটবট। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসিকে এমনটাই জবাব দিয়েছে নতুন চ্যাটবট। শুক্রবার ‘ব্লেন্ডারবট ৩’ নামক চ্যাটবটটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। মেটার দাবি, এ চ্যাটবট কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে ‘প্রায় যে কোনো বিষয়ে’ আলাপ করতে পারে।

মেটা প্রতিষ্ঠাতা সম্পর্কে কী ভাবছে ব্লেন্ডারবট ৩? এমন প্রশ্নের জবাবে কি উত্তর দেয়, ‘আমাদের দেশ বিভক্ত হয়ে পড়েছে। আর তিনি কোনো রকম সহায়তা করেননি।’ মেটা বলেছিল, ‘ইন্টারনেটের যে কারও সঙ্গে আলাপ চালিয়ে যেতে পারবে নতুন চ্যাটবট। তবে এটি রূঢ় এবং আক্রমণাত্মক উত্তর তৈরি করতে পারে।’ এক বিবৃতিতে মেটা কর্তৃপক্ষ বলে, ‘যেহেতু সব এআই চ্যাটবটের কখনো কখনো মানুষকে অনুকরণ করে বিপজ্জনক, পক্ষপাতদুষ্ট ও আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেওয়ার জন্য পরিচিতি আছে, তাই আমরা বড় পরিসরে গবেষণা চালিয়ে ব্লেন্ডারবট ৩-এর জন্য নতুন নিরাপত্তাব্যবস্থা তৈরি করেছি। এর পরও ব্লেন্ডারবট আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিতে পারে, যার কারণে আমরা অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে মতামত নিচ্ছি, যেন পরের চ্যাটবটগুলো আরও ভালো করে নির্মাণ করতে পারি।’

মার্ক জাকারবার্গ সম্পর্কে জানতে চাইলে নতুন চ্যাটবট আরও বলে, ‘তার কোম্পানি অর্থের জন্য মানুষকে শোষণ করে এবং এতে জাকারবার্গের কিছু যায় আসে না। এটা থামানো প্রয়োজন।’ কোনো প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে ইন্টারনেটে সংশ্লিষ্ট তথ্য-উপাত্ত খুঁজে নিয়ে তার ভিত্তিতে নিজের উত্তর তৈরি করে ব্লেন্ডারবট। চ্যাটবটের এ বৈশিষ্ট্যের কারণে সম্ভবত জাকারবার্গের ব্যাপারে অনলাইনে অন্যদের মতামত বিশ্লেষণ করেই নিজের মতামত গঠন করেছে ব্লেন্ডারবট। এ ছাড়া বিজনেস ইনসাইডারের এক সংবাদকর্মীর কাছে মার্ক জাকারবার্গকে ‘ক্রিপি’ (অস্বস্তিকর অনুভূতি তৈরি করা ব্যক্তি) বলে আখ্যা দিয়েছে চ্যাটবটটি। নিজের নির্মাতা কোম্পানির প্রধানকে নিয়ে চ্যাটবটটি এমন বক্তব্য দিলেও মেটা একে পশ্চিমা ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছে কারণ, এআইয়ের জন্য ডেটা সংগ্রহের চেষ্টা করছে কোম্পানিটি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন