অস্ট্রেলিয়ায় গুগলকে সোয়া চার কোটি ডলার জরিমানা
jugantor
অস্ট্রেলিয়ায় গুগলকে সোয়া চার কোটি ডলার জরিমানা

  আইটি ডেস্ক  

১৪ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম নির্মাতা গুগলকে চার কোটি ২৭ লাখ ডলার জরিমানা করেছে অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল আদালত। ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত ‘লোকেশন ডেটা’ সংগ্রহের ক্ষেত্রে তাদেরকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগে এ জরিমানা করা হয়। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কেবল ‘লোকেশন হিস্ট্রি’ সেটিংসের মাধ্যমে ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব-ব্যবহারকারীদের এমন ধারণা দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিল গুগল।

খবরে বলা হয়, ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহের ক্ষেত্রে গুগল যে কিছু ব্যবহারকারীকে বিভ্রান্ত করেছিল তার প্রমাণ পেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বাজার পর্যবেক্ষক সংস্থা। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের মাধ্যমে এ বিভ্রান্তি করা হয়। অস্ট্রেলিয়ান কম্পিটিশন অ্যান্ড কনজিউমার কমিশন (এসিসিসি) জানিয়েছে, অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কেবল ‘লোকেশন হিস্ট্রি’ সেটিংসের মাধ্যমে ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব-ব্যবহারকারীদের এমন ধারণা দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিল গুগল।

কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, ডিভাইস থেকে ব্যবহারকারীর ইন্টারনেট ব্যবহার এবং বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের মাধ্যমেও ব্যবহারকারীর লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব। ব্যবহারকারীর লোকেশন ডেটা সক্রিয়ভাবেই সংগ্রহ করে জমা রাখে বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। এসিসিসির ধারণা করছে, অস্ট্রেলিয়ার প্রায় ১৩ লাখ গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারী ওই ভ্রান্ত ধারণা পেয়েছেন। গত এক বছর ধরে অস্ট্রেলিয়ায় নানা আইনি জটিলতায় জড়িয়ে আছে গুগল। নিজস্ব প্ল্যাটফরমে মিডিয়া কোম্পানির কনটেন্টের জন্য নির্মাতা বা প্রকাশককে আর্থিক সুবিধা দিতে গুগল ও মেটা প্ল্যাটফরমসকে বাধ্য করেছে দেশটির সরকার।

অস্ট্রেলিয়ায় গুগলকে সোয়া চার কোটি ডলার জরিমানা

 আইটি ডেস্ক 
১৪ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম নির্মাতা গুগলকে চার কোটি ২৭ লাখ ডলার জরিমানা করেছে অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল আদালত। ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত ‘লোকেশন ডেটা’ সংগ্রহের ক্ষেত্রে তাদেরকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগে এ জরিমানা করা হয়। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কেবল ‘লোকেশন হিস্ট্রি’ সেটিংসের মাধ্যমে ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব-ব্যবহারকারীদের এমন ধারণা দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিল গুগল।

খবরে বলা হয়, ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহের ক্ষেত্রে গুগল যে কিছু ব্যবহারকারীকে বিভ্রান্ত করেছিল তার প্রমাণ পেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বাজার পর্যবেক্ষক সংস্থা। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের মাধ্যমে এ বিভ্রান্তি করা হয়। অস্ট্রেলিয়ান কম্পিটিশন অ্যান্ড কনজিউমার কমিশন (এসিসিসি) জানিয়েছে, অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কেবল ‘লোকেশন হিস্ট্রি’ সেটিংসের মাধ্যমে ব্যক্তিগত লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব-ব্যবহারকারীদের এমন ধারণা দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিল গুগল।

কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, ডিভাইস থেকে ব্যবহারকারীর ইন্টারনেট ব্যবহার এবং বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের মাধ্যমেও ব্যবহারকারীর লোকেশন ডেটা সংগ্রহ করা সম্ভব। ব্যবহারকারীর লোকেশন ডেটা সক্রিয়ভাবেই সংগ্রহ করে জমা রাখে বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। এসিসিসির ধারণা করছে, অস্ট্রেলিয়ার প্রায় ১৩ লাখ গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারী ওই ভ্রান্ত ধারণা পেয়েছেন। গত এক বছর ধরে অস্ট্রেলিয়ায় নানা আইনি জটিলতায় জড়িয়ে আছে গুগল। নিজস্ব প্ল্যাটফরমে মিডিয়া কোম্পানির কনটেন্টের জন্য নির্মাতা বা প্রকাশককে আর্থিক সুবিধা দিতে গুগল ও মেটা প্ল্যাটফরমসকে বাধ্য করেছে দেশটির সরকার।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন