সাড়ে ৭ হাজার স্যাটেলাইট পাঠাবে স্টারলিংক
jugantor
সাড়ে ৭ হাজার স্যাটেলাইট পাঠাবে স্টারলিংক

  আইটি ডেস্ক  

০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্কিন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের ব্রডব্যান্ড সেবা স্টারলিংকের সাড়ে সাত হাজার দ্বিতীয় প্রজন্মের স্যাটেলাইট স্থাপনের অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন নিয়ন্ত্রক সংস্থা। ২০২০ সালে ‘ফেডারেল কমিউনিকেশন্স কমিশন’ (এফসিসি)’র কাছে প্রথমে ২৯ হাজার ৯৮৮টি দ্বিতীয় প্রজন্মের স্যাটেলাইট স্থাপনের আবেদন করেছিল স্পেসএক্স। এর মধ্যে সাড়ে সাত হাজার স্যাটেলাইট তৈরি, স্থাপন ও পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে তারা। তবে ভূ-পৃষ্ঠ থেকে যথাক্রমে ৫২৫ কিলোমিটার, ৫৩০ কিলোমিটার ও ৫৩৫ কিলোমিটার উচ্চতায় এগুলো বসাতে পারবে কোম্পানিটি।

এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ স্থাপনার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন ব্যবহারকারীর কাছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে স্পেসএক্স। এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, যারা দুর্গম স্থানে বাস করেন তারাও এ সুবিধা পাবেন। মহাকাশে আপাতত স্পেসএক্সের স্যাটেলাইট স্থাপনের সংখ্যায় লাগাম টেনে ধরতে চায় এফসিসি। এর কারণ হিসাবে তারা বলছে কক্ষপথে বিষ্ফোরণ ও মহাকাশে নিরাপত্তার কথা। সংস্থাটি বলছে, এ সংখ্যা সীমিত করায় মহাকাশে নিরাপদ পরিবেশ থাকবে এবং ভূ-পৃষ্ঠ থেকে নিয়ন্ত্রিত অন্যান্য স্যাটেলাইটও বাধাপ্রাপ্ত হবে না।

এর আগে মহাকাশে স্পেসএক্সের অতিরিক্ত ৩০ হাজার স্যাটেলাইট বসানোর পরিকল্পনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেশ কিছু কোম্পানি, এমনকি সরকারি গবেষণা সংস্থা নাসাও। এরইমধ্যে কোম্পানিটিকে মহাকাশে ১২ হাজার প্রথম প্রজন্মের স্টারলিংক স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের অনুমতি দিয়েছে এফসিসি।

সাড়ে ৭ হাজার স্যাটেলাইট পাঠাবে স্টারলিংক

 আইটি ডেস্ক 
০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্কিন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের ব্রডব্যান্ড সেবা স্টারলিংকের সাড়ে সাত হাজার দ্বিতীয় প্রজন্মের স্যাটেলাইট স্থাপনের অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন নিয়ন্ত্রক সংস্থা। ২০২০ সালে ‘ফেডারেল কমিউনিকেশন্স কমিশন’ (এফসিসি)’র কাছে প্রথমে ২৯ হাজার ৯৮৮টি দ্বিতীয় প্রজন্মের স্যাটেলাইট স্থাপনের আবেদন করেছিল স্পেসএক্স। এর মধ্যে সাড়ে সাত হাজার স্যাটেলাইট তৈরি, স্থাপন ও পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে তারা। তবে ভূ-পৃষ্ঠ থেকে যথাক্রমে ৫২৫ কিলোমিটার, ৫৩০ কিলোমিটার ও ৫৩৫ কিলোমিটার উচ্চতায় এগুলো বসাতে পারবে কোম্পানিটি।

এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ স্থাপনার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন ব্যবহারকারীর কাছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে স্পেসএক্স। এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, যারা দুর্গম স্থানে বাস করেন তারাও এ সুবিধা পাবেন। মহাকাশে আপাতত স্পেসএক্সের স্যাটেলাইট স্থাপনের সংখ্যায় লাগাম টেনে ধরতে চায় এফসিসি। এর কারণ হিসাবে তারা বলছে কক্ষপথে বিষ্ফোরণ ও মহাকাশে নিরাপত্তার কথা। সংস্থাটি বলছে, এ সংখ্যা সীমিত করায় মহাকাশে নিরাপদ পরিবেশ থাকবে এবং ভূ-পৃষ্ঠ থেকে নিয়ন্ত্রিত অন্যান্য স্যাটেলাইটও বাধাপ্রাপ্ত হবে না।

এর আগে মহাকাশে স্পেসএক্সের অতিরিক্ত ৩০ হাজার স্যাটেলাইট বসানোর পরিকল্পনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেশ কিছু কোম্পানি, এমনকি সরকারি গবেষণা সংস্থা নাসাও। এরইমধ্যে কোম্পানিটিকে মহাকাশে ১২ হাজার প্রথম প্রজন্মের স্টারলিংক স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের অনুমতি দিয়েছে এফসিসি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন