নির্ধারিত সময়ের আগেই পৌঁছান কর্মক্ষেত্রে

  আল ফাতাহ মামুন ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নতুন চাকরি। নতুন জীবন। সফলতার আরেকটি চূড়ায় ওঠার জন্য প্রস্তুত হতে হবে আপনাকে। মনে রাখবেন, টিকে থাকার লড়াইয়ে দাঁড়িয়ে থাকার সুযোগ নেই। ‘হয় সেরা হও, নয়ত সরে যাও’- এ মন্ত্রে চলছে দুনিয়া। আপনি যেখানেই আছেন সেখান থেকে আরেক ধাপ ওপরে ওঠতে হবে। চেষ্টা করতে হবে সেরা হওয়ার। নয়ত স্বাভাবিক নিয়মেই আপনাকে সরিয়ে দেবে কিংবা সরে দাঁড়াতে বাধ্য হবেন আপনি নিজেই। তাই সোনার হরিণ যাদের হাতের মুঠোয় এসেছে- তাদের বলছি, সফলতা এখনও অনেক দূর। কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ছুঁতে হবে বিশাল আকাশটাকে। যারা এখনও চাকরি পাননি কিংবা হন্যে হয়ে খুঁজছেন সোনার হরিণকে- তাদের জন্যও দরকারি কথা থাকছে আজকের লেখায়।

নতুন চাকরিতে জয়েনের পরপরই যে সমস্যার মুখোমুখি আমাদের হতে হয় তা হল ম্যানেজমেন্ট সমস্যা। দেখা যায়, আগের রুটিন ছিল এক রকম, নতুন কর্মক্ষেত্রের রুটিন হয়ে গেছে ভিন্ন রকম। কারো কারো ক্ষেত্রে হয়ে যায় পুরোপুরি উল্টো রুটিন। রুটিন যেমনই হোক না কেন মনে রাখতে হবে, অফিসই। আপনি যখন জয়েন করেছেন ভেবে-চিন্তেই জয়েন করেছেন। আপনি পারবেন- এ আত্মবিশ্বাস আছে বলেই নতুন রুটিনেও আপনি ‘হ্যাঁ’ বলে দিয়েছেন। একবার যেহেতু পা বাড়িয়েছেন, পেছনে ফিরে তাকানো কোনোভাবেই বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। ‘সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে হাজার বার ভাবুন। কিন্তু সিদ্ধান্ত নেয়ার পর একবারও নয়।’ কথাটি বলেছেন একজন বিখ্যাত দার্শনিক।

আপনি সাহসী। আপনি কৌশলী। আপনার দ্বারা সবই সম্ভব। সময় আপনার। সময়কে সঠিকভাবে পরিচালনা করার পূর্ণ ক্ষমতাও আপনার আছে। এ বিশ্বাস রাখুন। বিশ্বাসই আপনাকে অনেক দূর এগিয়ে নেবে। ‘নির্দিষ্ট সময়ের আগেই আমি অফিসে পৌঁছব’ প্রতিদিন একথাটি নিজেকে বলুন। হাতে পর্যাপ্ত সময় রেখে অফিসের উদ্দেশ্যে রওনা হোন। রাস্তায় জ্যাম থাকতেই পারে। এ কথাটিও মাথায় রাখুন। জ্যামের অজুহাতে অফিসে দেরি করে পৌঁছানো কখনোই বুদ্ধিমান ও কর্মঠ মানুষের পরিচয় বহন করে না।

যেহেতু নতুন চাকরি, তাই সবার নজর আপনার দিকে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আপনি কখন আসছেন, কখন বেরুচ্ছেন, কতটুকু অবসর যাপন করছেন তাও খেয়াল করবে ঊর্ধ্বতন-অধস্ত সবাই। শুরুতেই যদি আপনি অফিসে দেরি করেন তবে আপনার ব্যাপারে অফিস ভালো ধারণা করবে না এটাই সহজ সত্য। আপনি যতই দক্ষ-অভিজ্ঞ এবং কর্মঠ হোন না কেন, দেরি করার অপরাধে সব যোগ্যতা ঢাকা পড়ে যাবে অফিসের চোখে। তাই চেষ্টা করবেন, কোনোভাবেই যেন অফিসের শুরুর দিনগুলোতে দেরি না হয়। এতে করে লাভ আপনারই হবে। প্রথমেই যদি অফিসকে জানিয়ে দিতে পারেন, সময়ের প্রশ্নে আপনি আপোস করেন না- তবে প্রমোশন পথে একধাপ এগিয়েই থাকবেন আপনি। শুধু প্রমোশনই নয়, সপ্নের আকাশ ছোঁয়াও আরও সহজ হয়ে যাবে আপনার জন্য।

সফল মানুষ মাত্রই সময় সচেতন। আপনিও সফলতার পথেই হাঁটছেন। তাই আপনাকেও হতে হবে কঠোর সময় সচেতন। আপনি কতটা সময় সচেতন তা বোঝা যাবে আপনি নির্ধারিত সময়ের আগেই অফিসে পৌঁছতে পারছেন কি-না। তাই মোটা দাগে মনে রাখুন- অন্যান্য কাজকর্ম এদিক সেদিক করে হলেও আপনাকে নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রতিদিন অফিসে পৌঁছতে হবে। পৌঁছতে হবে শান্তবেশে। ফ্রেশ মনে।

লেখক : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Email : [email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×