চাকরি পেতে...
jugantor
চাকরি পেতে...

   

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি ভালো চাকরি। যেটা হস্তগত করার জন্য আমরা সবাই অসীম বেগে ছুটছি। কেউ পাচ্ছি। কেউ আবার না পেয়ে হতাশার সাগরে হাতরিয়ে বেরাচ্ছি। যারাও আবার পাচ্ছি, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই চাকরিটা হয় না নিজের পছন্দমতো। তাই বলছি- কিভাবে পাওয়া যাবে একটি মনের মতো চাকরি। সে বিষয়েই এবারের দু-পর্বের লেখা। যার প্রথম পর্বে থাকছে একটি চাকরি পেতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা লিখেছেন- চাকরির খোঁজ প্রতিবেদক।

১. সিভি পুনর্গঠন করা : প্রতিনিয়ত আপনার সিভিকে আপডেট করুন। নতুন বা সর্বশেষ যে প্রশিক্ষণে আপনি যোগদান করেছিলেন সে অনুযায়ী নিজের তথ্য সংযোজন করুন। এমনও হতে পারে আপনি পত্র-পত্রিকায় লেখালিখি বা রিসার্চ পেপার করেন, সুতরাং সর্বশেষ বিষয় কতদিন আগের বা কত সমসাময়িক; সেটাই কিন্তু আপনাকে পরিচয় করিয়ে দেবে আপনি কতটা আপডেটেড। তখন আপনার আপডেটেড সিভি আবেদনকৃত প্রতিষ্ঠানের এইচআর ম্যানেজারের সামনে প্রমাণ করবে সমসাময়িক জ্ঞানে ভরপুর জানা শোনা পূর্ণ একজন মানুষ হিসেবে। তার মানে সিভি বারবার দেখে ভুলগুলো ঠিক করার পাশাপাশি আপনি কেমন মানুষ আর কতটা সঠিকভাবে নিজের পরিচয় ওঠে আসল কারিকুলাম ভিটায় তা প্রতিনিয়ত সঠিক করে রাখুন। দেখবেন চাকরিদাতার কাছে আপনার সিভি-ই অ্যাডভাইজার হিসেবে কাজ করবে।

২. ইন্টারভিউয়ের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা : সিভি যেহেতু খুবই ভালো মানের করে রিপ্রেজেন্ট করেছেন, তার মানে আপনি কিন্তু পরবর্তী বাছাইয়ে ডাক পাবেন। সুতরাং নিজেকে পরের ধাপে উত্তরে নিতে কি কি বিষয় রপ্ত করতে হবে, সে বিষয়গুলোতে নজর দিন। তাহলে এ ধাপেও আপনি পার পেয়ে যাবেন সহজেই। আর সর্বদা মনে রাখতে হবে যে, সিভিতে উল্লেখিত তথ্যের সঙ্গে মানানসই করে নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে কিন্তু। কেননা আপনি যখন চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাবেন। তারা কিন্তু ওই সিভিকে কেন্দ্র করেই আপনাকে প্রকাশ বা বুঝতে চাইবে।

৩. সংশ্লিষ্ট জ্ঞান অর্জন : এবার তাহলে বলি- কোনো বিষয়ে আপনাকে প্রস্তুত করতে হবে। কি বুঝছে কষ্ট হচ্ছে। তাহলে শুনুন- আপনাকে কিন্তু দুনিয়ার সব বিষয় জানতে গিয়ে সময় ও শ্রম কোনোটা-ই নষ্ট করা চলবে না। তাই প্রস্তুতিটা নিতে হবে খুব কনসাইস/ সংক্ষিপ্ত; তবে তা হতে হবে যুতসই। এবার প্রশ্ন- সেটা সম্ভব কীভাবে? তবে বলি আপনি যে পদে ও প্রতিষ্ঠানে কাজের জন্য আবেদন করেছেন সে পদ সম্পর্কিত যে বিষয়গুলো জড়িত বা ওই পদে চাকরি করতে হলে যেসব বিষয়ের জ্ঞান থাকতে হয়; কেবল সেগুলোই জানুন। আর আপনাকে নিয়োগ দিলে ভবিষ্যতে ওই প্রতিষ্ঠানকে অতিরিক্ত কি দেবেন সেটাও বের করে আনার চেষ্টা করুন।

চাকরি পেতে...

  
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি ভালো চাকরি। যেটা হস্তগত করার জন্য আমরা সবাই অসীম বেগে ছুটছি। কেউ পাচ্ছি। কেউ আবার না পেয়ে হতাশার সাগরে হাতরিয়ে বেরাচ্ছি। যারাও আবার পাচ্ছি, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই চাকরিটা হয় না নিজের পছন্দমতো। তাই বলছি- কিভাবে পাওয়া যাবে একটি মনের মতো চাকরি। সে বিষয়েই এবারের দু-পর্বের লেখা। যার প্রথম পর্বে থাকছে একটি চাকরি পেতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা লিখেছেন- চাকরির খোঁজ প্রতিবেদক।

১. সিভি পুনর্গঠন করা : প্রতিনিয়ত আপনার সিভিকে আপডেট করুন। নতুন বা সর্বশেষ যে প্রশিক্ষণে আপনি যোগদান করেছিলেন সে অনুযায়ী নিজের তথ্য সংযোজন করুন। এমনও হতে পারে আপনি পত্র-পত্রিকায় লেখালিখি বা রিসার্চ পেপার করেন, সুতরাং সর্বশেষ বিষয় কতদিন আগের বা কত সমসাময়িক; সেটাই কিন্তু আপনাকে পরিচয় করিয়ে দেবে আপনি কতটা আপডেটেড। তখন আপনার আপডেটেড সিভি আবেদনকৃত প্রতিষ্ঠানের এইচআর ম্যানেজারের সামনে প্রমাণ করবে সমসাময়িক জ্ঞানে ভরপুর জানা শোনা পূর্ণ একজন মানুষ হিসেবে। তার মানে সিভি বারবার দেখে ভুলগুলো ঠিক করার পাশাপাশি আপনি কেমন মানুষ আর কতটা সঠিকভাবে নিজের পরিচয় ওঠে আসল কারিকুলাম ভিটায় তা প্রতিনিয়ত সঠিক করে রাখুন। দেখবেন চাকরিদাতার কাছে আপনার সিভি-ই অ্যাডভাইজার হিসেবে কাজ করবে।

২. ইন্টারভিউয়ের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা : সিভি যেহেতু খুবই ভালো মানের করে রিপ্রেজেন্ট করেছেন, তার মানে আপনি কিন্তু পরবর্তী বাছাইয়ে ডাক পাবেন। সুতরাং নিজেকে পরের ধাপে উত্তরে নিতে কি কি বিষয় রপ্ত করতে হবে, সে বিষয়গুলোতে নজর দিন। তাহলে এ ধাপেও আপনি পার পেয়ে যাবেন সহজেই। আর সর্বদা মনে রাখতে হবে যে, সিভিতে উল্লেখিত তথ্যের সঙ্গে মানানসই করে নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে কিন্তু। কেননা আপনি যখন চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাবেন। তারা কিন্তু ওই সিভিকে কেন্দ্র করেই আপনাকে প্রকাশ বা বুঝতে চাইবে।

৩. সংশ্লিষ্ট জ্ঞান অর্জন : এবার তাহলে বলি- কোনো বিষয়ে আপনাকে প্রস্তুত করতে হবে। কি বুঝছে কষ্ট হচ্ছে। তাহলে শুনুন- আপনাকে কিন্তু দুনিয়ার সব বিষয় জানতে গিয়ে সময় ও শ্রম কোনোটা-ই নষ্ট করা চলবে না। তাই প্রস্তুতিটা নিতে হবে খুব কনসাইস/ সংক্ষিপ্ত; তবে তা হতে হবে যুতসই। এবার প্রশ্ন- সেটা সম্ভব কীভাবে? তবে বলি আপনি যে পদে ও প্রতিষ্ঠানে কাজের জন্য আবেদন করেছেন সে পদ সম্পর্কিত যে বিষয়গুলো জড়িত বা ওই পদে চাকরি করতে হলে যেসব বিষয়ের জ্ঞান থাকতে হয়; কেবল সেগুলোই জানুন। আর আপনাকে নিয়োগ দিলে ভবিষ্যতে ওই প্রতিষ্ঠানকে অতিরিক্ত কি দেবেন সেটাও বের করে আনার চেষ্টা করুন।