কেমন মেয়র চাই

  খুলনা ব্যুরো ১৫ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে অবাধ সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন প্রত্যাশা করেন নাগরিক নেতারা। তাদের মতে, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির মাধ্যমে ভোটার ও সব প্রার্থীর অংশ গ্রহণের নির্বাচন গণতন্ত্রের অন্যতম শর্ত। যে কোনো নির্বাচনে এর মাধ্যমেই জনগণের আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটে। যোগ্যতম ব্যক্তিই তখন নগরপিতার আসনে আসীন হতে পারেন। তারা খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ক্ষেত্রেও এমন একটি নির্বাচনের মাধ্যমে সৎ, দৃঢ়চেতা, নাগরিক সমস্যা সমাধানে সিদ্ধহস্ত এবং জনগণের আকাক্সক্ষা পূরণ ও উন্নয়ন কার্যক্রমে আন্তরিক মেয়র প্রত্যাশা করেন। যেখানে নগরবাসী তাদের ইচ্ছেমতো পছন্দের প্রার্থীকে আগামী ৫ বছরের জন্য নগরপিতা নির্বাচন করতে পারবেন। এ প্রেক্ষাপটে যুগান্তরের পক্ষ থেকে ‘কেমন মেয়র চাই’ এমন প্রশ্নের উত্তর খোঁজা হয়েছে।

প্রফেসর ড. আলমগীর হোসেন, ভিসি, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : যার নগরবাসীর প্রতি দায়িত্বানুভূতি থাকবে, উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন, যেকোনো সমস্যা সমাধানে তড়িৎ সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা থাকবে, যিনি সৎ এবং সাহসী ভূমিকা পালন করতে পারবেন এমন মেয়র খুলনাবাসী প্রত্যাশা করে।

প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, ট্রেজারার, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : কেসিসির মেয়র হিসেবে আমরা একজন যোগ্য মানুষ চাই, যিনি নগরের উন্নয়ন করতে পারবেন। আমরা নাগরিক সুবিধার ক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে আছি। ড্রেনেজ ব্যবস্থা, জলাবদ্ধতা আজও দূর হয়নি। জনসংখ্যা বাড়লেও কেসিসির আয়তন বৃদ্ধি পায়নি। এসব সমস্যা

নিয়ে দীর্ঘদিনের একটি স্থবিরতা সৃষ্টি হয়েছে। একজন পিতা যেমন তার পরিবারকে দেখভাল করেন, আমরা তেমন একজন নগরপিতা চাই। যিনি এ নগরীকে পিতার মতো দেখভাল করবেন।

কাজি আমিনুল হক, সভাপতি, খুলনা চেম্বার অব কমার্স : যে মেয়র পরিশ্রম করতে পারেন তেমন মেয়র চাই। যিনি নগর উন্নয়নের জন্য সরকারের বরাদ্দ আনতে পারবেন। যিনি ব্যবসা সম্প্রসারণে ট্রেড লাইসেন্স ফি সহনীয় পর্যায়ে রাখবেন। বর্তমানে ট্রেড লাইসেন্স ফি অনেক বেশি রয়েছে। এটা কমানো দরকার। হোল্ডিং ট্যাক্স সহনীয় পর্যায়ে আনবেন এমন মেয়র চাই। অবকাঠামো উন্নয়ন করতে পারবেন এমন ব্যক্তিকে মেয়র হিসেবে দেখতে চাই। খুলনা সিটিতে জলাবদ্ধতাসহ ছোট ছোট সমস্যা রয়েছে এসব সমস্যা সমাধান করতে পারবেন তেমন যোগ্য, দক্ষ ও সৎ ব্যক্তি চাই।

অধ্যাপক আনোয়ারুল কাদির, সভাপতি, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) : যিনি খুলনার উন্নয়নে রাজনীতির ঊর্ধ্বে থেকে কাজ করবেন, নাগরিক সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে নগরবাসীর নিকট বদ্ধপরিকর থাকবেন, মাদকের বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তুলতে পারবেন এবং প্যানামুক্ত নগরী উপহার দিতে পারবেন এমন মেয়র জনগণের জন্য প্রয়োজন। তেমন একজন মেয়রের জন্য অপেক্ষা করছি।

শেখ আশরাফ উজ জামান, মহাসচিব, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি : খুলনার অতীত ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার পরিবেশ সৃষ্টির পাশাপাশি উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সিদ্ধহস্ত, নাগিরকদের

জন্য অনুভূতিপ্রবণ, সৎ এবং দয়ালু ও কর্মঠ একজন মেয়র প্রত্যাশা করি।

অ্যাডভোকেট কুদরত-ই খুদা, সম্পাদক, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) : নগর ভবনে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় কঠোর, নাগরিক সংকট দূরীকরণে আন্তরিক, নাগরিক সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে পারবে এবং একটি পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলতে যিনি কাজ করতে পারবেন এমন মেয়র প্রত্যাশা করি।

অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম, সমন্বয়কারী, বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা : সিটি কর্পোরেশনকে নগরবাসীর সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে

উপহার দিতে পারবেন, মাদকের বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তুলতে পারবেন, নাগরিক সমস্যাকে যিনি প্রাধান্য দিয়ে নগর ভবনকে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার ভবনে পরিণত করবেন এমন যোগ্য ব্যক্তিকেই মেয়র হিসেবে দেখতে চাই।

হুমায়ুন কবির ববি, আহ্বায়ক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট : সৎ-যোগ্য উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে ভূমিকা রাখতে সক্ষম এবং সিটি কর্পোরেশনকে দুর্নীতি ও রাজনীতিমুক্ত রেখে যিনি নগর উন্নয়নে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করবেন এমন মেয়রই প্রত্যাশা করি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter